আরব সাগরে বিপুল পরিমাণ চিনা অস্ত্র বাজেয়াপ্ত মার্কিন সেনার

আরব সাগরের মাঝে প্রচুর পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার মার্কিন সেনার

আরব সাগরের আন্তর্জাতিক জলসীমায় একটি নৌযান থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রের চালান বাজেয়াপ্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী। আটক করা এসব অস্ত্র চিন ও রাশিয়ায় তৈরি হয়েছে বলে দাবি করেছে মার্কিন নৌবাহিনী

  • Share this:

    #ওয়াশিংটন: তাহলে কী পৃথিবীজুড়ে ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির ভেতরেও যুদ্ধের দামামা বাজছে? ঠান্ডা যুদ্ধ কী দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যাচ্ছে পৃথিবী? চিন এবং রাশিয়া গোপনে কী কোনও বড় প্ল্যানিং করছে? না হলে, এত সংখ্যক অস্ত্র উদ্ধার হবে কেন ? নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন করোনা পরিস্থিতি নিয়ে পূর্বসূরী ট্রাম্পের মত তিনিও চিনকে দোষী মনে করেন। চিন নিয়ে নরম পন্থা যে নেবে না আমেরিকা সেটা পরিষ্কার করে দিয়েছিলেন। সেটার শোধ নিতে চিন এবং রাশিয়া মিলে গোপন আঁতাত তৈরি করছে এমন সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

    আরব সাগরের আন্তর্জাতিক জলসীমায় একটি নৌযান থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রের চালান বাজেয়াপ্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী। আটক করা এসব অস্ত্র চিন ও রাশিয়ায় তৈরি হয়েছে বলে দাবি করেছে মার্কিন নৌবাহিনী। গত ৬-৭ মে নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবে আরব সাগরের উত্তরাংশ থেকে অস্ত্রের এ চালান আটক করা হয়। এসব অস্ত্র এখন যুক্তরাস্ট্রের হেফাজতে রয়েছে। রবিবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

    প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাহরাইনের উপকূলে অবস্থান করা যুক্তরাস্ট্রের পঞ্চম নৌবহর অস্ত্রের এ চালান জব্দ করেছে। এক বিবৃতিতে মার্কিন নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, জব্দ করা এসব অস্ত্রের মধ্যে রাশিয়ার তৈরি কয়েক ডজন ট্যাংক ধ্বংসকারী ক্ষেপণাস্ত্র, চিনের তৈরি হাজারের বেশি টাইপ-৫৬ রাইফেল, শতাধিক পিকেএম মেশিনগান, স্নাইপার রাইফেল, গ্রেনেড লঞ্চার রয়েছে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, বেআইনি অস্ত্রের চালানের কার্গোগুলো নামানোর পরে আটক নৌযানটির নাবিকদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

    যে নৌযান থেকে অস্ত্রগুলো জব্দ করা হয়েছে, সেটাতে কোনো দেশের পতাকা ছিল না। সেটি একটি সাধারণ পালতোলা নৌযান ছিল। মার্কিন নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সবদিক খতিয়ে দেখছে তাঁরা। দরকারে বিশেষ একটা দলকে এই রহস্য উদঘাটন করার দায়িত্ব দেওয়া হবে। তবে এটা যে বড় ষড়যন্ত্র এবং বিরাট কিছু ঘটনা ঘটানোর জন্য ভাবা হয়েছিল তাতে সন্দেহ নেই।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: