Home /News /international /
The World Count Report: আর মাত্র ২৭ বছরে শেষ হয়ে যাবে বিশ্বের সব খাবার! ভয়ঙ্কর দাবি রিপোর্টে

The World Count Report: আর মাত্র ২৭ বছরে শেষ হয়ে যাবে বিশ্বের সব খাবার! ভয়ঙ্কর দাবি রিপোর্টে

The World Count Report: হাতে কোটি কোটি টাকা থাকলেও খাবার কিনতে পারবে না কেউ! ভয়ঙ্কর দাবি করল এই প্রতিবেদন।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: মানুষ দুবেলা খাবার জোগাতে দিনরাত পরিশ্রম করে। রক্ত ​​ও ঘাম ঝরিয়ে নিজের এবং পরিবারের দু'বেলা খাবাররের সংস্থান করার চেষ্টা করে। কিন্তু সেই খাবার মহার্ঘ হয়ে ওঠে অনেক সময়।

    আর মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে শেষ হতে চলেছে পৃথিবীর খাবারের ভাণ্ডার। হাতে কোটি কোটি টাকা থাকলেও মানুষ আর দুবেলার খাবার জোগাড় করতে পারবে না। একটি রিপোর্টে এমনই দাবি করা হয়েছে।

    সামাজিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা দ্য ওয়ার্ল্ড কাউন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গোটা বিশ্বে এমন খাদ্য সংকট দেখা দিতে চলেছে যে ২০৫০ সাল নাগাদ খাদ্যশস্য শেষ হয়ে যাবে। প্রতিবেদন প্রকাশের পাশাপাশি দ্য ওয়ার্ল্ড কাউন্ট তাদের ওয়েবসাইটে পৃথিবীতে শস্য শেষ হওয়ার কাউন্টডাউন রেখেছে। এই কাউন্টডাউন অনুযায়ী, পৃথিবী থেকে শস্য শেষ হতে আর মাত্র ২৭ বছর বাকি।

    আরও পড়ুন- কালো চাঁদ আর সূর্যগ্রহণ এক দিনে! এপ্রিলের শেষ দিনটি রহস্যময়, কী বলছেন বিজ্ঞানীরা

    দ্য ওয়ার্ল্ড কাউন্ট তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বের জনসংখ্যা এক হাজার কোটি ছাড়িয়ে যাবে। এমন পরিস্থিতিতে ২০১৭ সালের তুলনায় ২০৫০ সালে খাদ্যের চাহিদা ৭০ শতাংশ বাড়বে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পৃথিবী প্রতি বছর ৭৫০০ মিলিয়ন টন উর্বর মাটি হারাচ্ছে।

    বিশ্বে গত ৪০ বছরে মোট জমির এক-তৃতীয়াংশ হ্রাস পেয়েছে। সেইসঙ্গে খাদ্যের চাহিদা এতটাই বেড়েছে যে আগামী ৪০ বছরে পৃথিবীর মানুষের খাদ্য চাহিদা মেটাতে এত বেশি শস্য উৎপাদন করতে হবে যা গত ৮ হাজার বছরে হয়নি। অর্থাৎ একদিকে বিশ্বে উর্বর ভূমি প্রতি বছরই কমছে, অন্য়দিকে প্রতিনিয়ত বাড়ছে জনসংখ্যা।

    দ্য ওয়ার্ল্ড কাউন্টের প্রতিবেদন অনুসারে, শস্য ফুরিয়ে গেলে মাংস খাওয়ার বিকল্প নেই। কারণ মাংস তৈরি করতে ভুট্টার চেয়ে ৭৫ গুণ বেশি শক্তি প্রয়োজন। যা উত্পাদন করা অসম্ভব কাজ। ওয়ার্ল্ড কাউন্ট তাদের প্রতিবেদনে ভবিষ্যদ্বাণী করেছে, ২০৩০ সাল নাগাদ চালের দাম বর্তমানের তুলনায় ১৩০ শতাংশ এবং ভুট্টার দাম ১৮০ শতাংশ বাড়বে।

    আরও পড়ুন- ভারতে বিদ্যুৎ সংকটের জেরে সমস্যায় নেপাল! বন্ধ হয়ে যেতে পারে একাধিক শিল্প

    এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে এক বা একাধিক দেশের মধ্যে খাবার ও জল নিয়েও যুদ্ধ বাধতে পারে। দ্য ওয়ার্ল্ড কাউন্ট তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, বর্তমান সময়ে মানুষ যেভাবে নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য পৃথিবীকে ব্যবহার করছে, তাতে ২০৩০ সালের পর প্রতিটি মানুষের খাদ্য ও পানীয়ের চাহিদা পূরণ করতে হলে দুটি পৃথিবীর প্রয়োজন হবে।

    একদিকে যেমন পৃথিবীতে খাদ্যশস্যের সংকট ঘনীভূত হচ্ছে, অন্যদিকে আমরা খাদ্যের অপচয় করতে পিছপা হচ্ছি না। গত বছর জাতিসংঘ কর্তৃক প্রকাশিত ইউএন ফুড ওয়েস্ট ইনডেক্স পেশ করা রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৯ সালে বিশ্বব্যাপী ৯৩ মিলিয়ন টনেরও বেশি খাদ্য নষ্ট হয়েছে। যা মোট উপলব্ধ খাদ্যের ১৭ শতাংশ। জাতিসংঘের Food Waste Index Report 2021 জানাচ্ছে, বিশ্বের প্রতিটি মানুষ বছরে ১২১ কেজি খাদ্য অপচয় করে।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    Tags: Food, United Nations, World

    পরবর্তী খবর