• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • জড়িয়ে ধরলেন পাক সেনাপ্রধানকে! ইমরান-শপথে গিয়ে আর যা যা করলেন সিধু

জড়িয়ে ধরলেন পাক সেনাপ্রধানকে! ইমরান-শপথে গিয়ে আর যা যা করলেন সিধু

ইমরানের শপথে সিধু -- ছবি: ANI

ইমরানের শপথে সিধু -- ছবি: ANI

দেখা যায়, সিধু বসে রয়েছেন পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট মাসুদ খানের পাশেই৷ বসার আগে পাক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার সঙ্গে কোলাকুলি ও আড্ডায় মাতেন সিধু৷ এরপরই তীব্র সমালোচনা শুরু হয়ে যায় ভারতে৷

  • Share this:

    #ইসলামাবাদ: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদে ইমরান খানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে গিয়ে পাকিস্তানের সেনাপ্রধানের সঙ্গে কোলাকুলি করে বিতর্ক তৈরি করলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার ও পাঞ্জাবের মন্ত্রী নভজ্যোত সিং সিধু৷ এমনকী পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্টের পাশের সিটেই জায়গা দেওয়া হয় সিধুকে৷

    আরও পড়ুন: 'ভারত-পাক শান্তিরক্ষার অন্যতম কারিগর ছিলেন বাজপেয়ী': ইমরান খান

    নীল শ্যুট ও গোলাপী পাগড়িতে সিধু হাজির ছিলেন ইমরানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে৷ ইসলামাবাদের আইওয়ান-ই-সদর (প্রেসিডেন্ট হাউস)-এ বিলাসবহুল আয়োজন করা হয়৷ স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৯টার কিছু পরে শুরু হয় শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান৷ কোরান পাঠ ও পরে পাকিস্তানের জাতীয় সঙ্গীত শেষে ছাই রঙের শেরওয়ানি পড়ে স্টেজে ওঠেন ইমরান৷

    দেখা যায়, সিধু বসে রয়েছেন পাক অধিকৃত কাশ্মীরের প্রেসিডেন্ট মাসুদ খানের পাশেই৷ বসার আগে পাক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার সঙ্গে কোলাকুলি ও আড্ডায় মাতেন সিধু৷ এরপরই তীব্র সমালোচনা শুরু হয়ে যায় ভারতে৷ জম্মু-কাশ্মীর কংগ্রেসের প্রধান গুলাম আহমেদ মীর বলেন, ‘উনি একজন দায়িত্বজ্ঞান সম্পন্ন মানুষ ও একজন মন্ত্রী৷ উনিই বলতে পারবেন, এটা কেন করলেন৷ কিন্তু উনি ওই কোলাকুলি এড়াতে পারতেন৷’ দেখুন সেই দৃশ্য:

    যদিও সিধু চেনা মেজাজেই ছিলেন শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে৷ পাকিস্তানের একটি সংবাদমাধ্যমকে তিনি কবিতা করে বলেন, ‘আমি এখানে রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আসিনি৷ এসেছি একজন বন্ধু হিসেবে৷ আমার বন্ধু ইমরানের খুশির ভাগীদার হতে এসেছি৷ হিন্দুস্তান জিবে, পাকিস্তান জিবে৷ আমি ইমরান সাহেবকে একটি কাশ্মীরি শাল উপহার দিয়েছি৷’

    ইমরানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে সিধু ছাড়াও সুনীল গাভাস্কার ও কপিল দেবের আমন্ত্রণ ছিল৷ কিন্তু তাঁরা ব্যক্তিগত কাজ আছে শেষ মুহূর্তে পাকিস্তান সফর বাতিলর করেছেন৷

    First published: