• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • আবার সে এসেছে ফিরিয়া! দু’মাস পর খোঁজ মিলল চিনা টাইকুন জ্যাক মা-র

আবার সে এসেছে ফিরিয়া! দু’মাস পর খোঁজ মিলল চিনা টাইকুন জ্যাক মা-র

চিনা বিজনেস টাইকুন Jack Ma প্রায় দু’মাস নিরুদ্দেশ ছিলেন

চিনা বিজনেস টাইকুন Jack Ma প্রায় দু’মাস নিরুদ্দেশ ছিলেন

চিনা বিজনেস টাইকুন Jack Ma প্রায় দু’মাস নিরুদ্দেশ ছিলেন

  • Share this:

#বেজিং: চিনা বিজনেস টাইকুন জ্যাক মা (Jack Ma) প্রায় দু’মাস নিরুদ্দেশ ছিলেন। তিনি যে ঠিক কেথায় উধাও হয়ে গিয়েছিলেন, সেটা কেউ জানত না। তবে গায়েব হওয়ার আগে তিনি খবরের কাগজকে জানিয়েছিলেন যে অনেক তো কাজকর্ম হল, এবার একটু লেখাপড়া করবেন! তা বেশ! ঘোড়া-রোগ শুধু গরিবদের নয়, যাঁদের অনেক টাকা আছে, তাঁদেরও হয়। তবে গত দুই মাস ধরে জল্পনা আর কল্পনার অন্ত ছিল না যে লোকটা আসলে গেল কোথায়? আলিবাবার সহ প্রতিষ্ঠাতা কি আলিবাবার গুহাতেই লুকিয়ে পড়লেন? জ্যাক মা-র কয়েকটি কোম্পানির ভরাডুবির পরেই তাঁর এভাবে গা ঢাকা দেওয়া অনেকটা চিন্তার কারণও ছিল। চিন্তার কারণ আরও গভীর হল যখন নেটিজেনরা দেখলেন যে সোশ্যাল মিডিয়াতেও জ্যাক নেই। তাঁর দেওয়া শেষ পোস্ট ছিল গত বছরের ১০ অক্টোবর। তখনও তিনি খবরের শিরোনামে ছিলেন, আর এবার ফিরে এসে ফের দখল করলেন খবরের শিরোনাম।

গত কাল চিনের অন্যতম খ্যাতিমান ব্যাবসায়ীর একটি ভিডিও দেখা যায়। গ্লোবাল টাইম নিউজের চিফ রিপোর্টার কিংকিং চেন (Quingqing Chen) খবরে জানান যে জ্যাক মা নিরুদ্দেশ হননি। চিনা সরকার পরিচালিত এই নিউজ সংস্থার হয়ে চেন বলেন যে ১০০ জন গ্রাম্য শিক্ষকের সঙ্গে মিটিং করেছেন চিনা টাইকুন।

চেন একটি ছোট্ট ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে নীল রঙের পুল ওভার পরা জ্যাক শিক্ষকদের সঙ্গে লাইভ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলছেন। অক্টোবর ২০২০-র পর এটাই তাঁর প্রথম পাবলিক অ্যাপিয়ারেন্স।

কিন্তু এরকম একটি ঘটনা দেখে শুনেও কি নেটিজেনরা চুপ করে বসে থাকতে পারেন? তাঁরা এই সুযোগ ভরপুর নিয়েছেন। জ্যাক মা-র আচমকা গায়েব হয়ে যাওয়া এবং ফিরে আসা নিয়ে মজাদার মিমে ভরে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া।

হারানো প্রাপ্তি অর্থাৎ লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড বলে ঠাট্টা করছেন অনেকেই।

সুপারহিরোর মতো ফিরে এসেছেন জ্যাক মা, সেটাও বলছেন কেউ কেউ।

জ্যাক মা নাম ও পদবী নিয়েও কম জলঘোলা হচ্ছে না। 'দিওয়ার' (Deewaar) ছবির বিখ্যাত সংলাপ 'মেরে পাস মা হ্যায়'-এর অন্য মানেও খুঁজে পেয়েছেন কেউ কেউ!

Published by:Ananya Chakraborty
First published: