corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে গৃহবন্দি মানুষ, জনপ্রিয় শৈল শহরের কাছেই ক্যামেরাবন্দি অতি বিরল তুষার চিতা

লকডাউনে গৃহবন্দি মানুষ, জনপ্রিয় শৈল শহরের কাছেই ক্যামেরাবন্দি অতি বিরল তুষার চিতা
সংগৃহীত ছবি

লকডাউনের জেরে বন্ধ মানুষের আনাগোনা । তাই অতি বিরল এই তুষার চিতা নেমে এসেছে শহরের একদম কাছেই । আর তাতেই ঘুম ছুটেছে শহরের বাসিন্দাদের ।

  • Share this:

#কাজাখস্থান: করোনা সংক্রমণে রুখতে বিশ্বের একাধিক দেশ এখনও লকডাউনে ।  ফলে বন্ধ মানুষের অকারণ যাতায়াত । কিছু কিছু দেখে লক ডাউন শিথিল করা হলে , প্রয়োজনের বাইরে কারও ঘুরে বেড়ানোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে ।  আর তার জেরেই পৃথিবীর নানা প্রান্তে না অদ্ভুত ঘটনা ঘটে চলেছে প্রতিদিন । কোথাও চিড়িয়াখানায় ঘুরে বেড়াচ্ছে পশুরা, কোথাও বিমানবন্দরে লাইন দিয়ে ঘুরছে বিরল কোনও পাখি , কোনও নদীতে আবার ফিরেছে বিলুপ্ত প্রজাতির নানা মাছ । এমনকি ভারতেও নানা জায়গায় দেখা মিলছে বিরল বন্যপ্রাণীদের । গঙ্গায় ফিরেছে শুশুক, কুমীর । মুম্বই গোলাপি হয়েছে ফ্লেমিঙ্গোর রঙে । গোয়া , দার্জিলিং-এ বেড়িয়ে পড়েছে ব্ল্যাক প্যান্থার । গুজরাতের বসতিতে দেখা ঢুকে পড়েছিল চিতা । মুম্বইয়ের বস্তিতে বাড়ির ছাদ ভেঙে ঢুকে পড়ে হরিণ । এই তালিকায় নয়া সংযোজন কাজাকস্থানের অতি বিরল তুষার চিতা ।

লকডাউনের জেরে বন্ধ মানুষের আনাগোনা । তাই অতি বিরল এই তুষার চিতা নেমে এসেছে কাজাকস্থান শহরের একদম কাছেই । আর তাতেই ঘুম ছুটেছে শহরের বাসিন্দাদের । ওয়াইল্ড লাইফ অ্যাক্টিভিস্টদের মতে, বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া এই তুষার চিতা বাঁচাতে আরও উদ্যোগ নেওয়া হবে আগামীতে । পরিসংখ্যান অনুযায়ী, মাত্র ১৫০ তুষার চিতা রয়েছে মধ্য এশিয়ার বিভিন্ন দেশ মিলিয়ে, আর সারা পৃথিবীতে সংখ্যাটা ১০ হাজার । মূলত রাশিয়া , মঙ্গোলিয়া , চিন , নেপাল , পাকিস্তান , আফগানিস্থানে পাহাড়ি এলাকা, যেখানে বরফ পড়ে নিয়মিত, সেই সব অঞ্চলে তুষার চিতার অস্তিত্ব মেলে ।

স্নো লেপার্ড ফাউন্ডেশনের সদস্য অ্যালেক্স গ্রাচভ জানিয়েছেন, দিন কয়েক ধরে একটি পুরুষ, একটি মহিলা এবং একটি তুষার চিতার বাচ্চার ছবি বার বার সেন্সর ক্যামেরায় ধরা পড়ছে । অলমাটি লেক (যেটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হাইকিং ডেস্টিনেশন )  সংলগ্ন পাহাড়ি অঞ্চলে মাত্র ২০টি চিতার অস্তিত্ব মেলে । আর তাদের দেখা পাওয়া অত্যন্ত বিরল ঘটনা ।

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 26, 2020, 9:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर