সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইক করে চলেছেন খ্রিস্টধর্মের প্রধান পুরুষ পোপ ফ্রান্সিস

সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইক করে চলেছেন খ্রিস্টধর্মের প্রধান পুরুষ পোপ ফ্রান্সিস

আর তো মাত্র কয়েকটা ঘণ্টা বাকি রয়েছে হাতে! যে-ই না ঘড়ির কাঁটা বারোটার ঘর ছুঁয়ে ফেলবে, সারা বিশ্ব জুড়ে শুরু হয়ে যাবে যিশু খ্রিস্টর জন্মোৎসব।

আর তো মাত্র কয়েকটা ঘণ্টা বাকি রয়েছে হাতে! যে-ই না ঘড়ির কাঁটা বারোটার ঘর ছুঁয়ে ফেলবে, সারা বিশ্ব জুড়ে শুরু হয়ে যাবে যিশু খ্রিস্টর জন্মোৎসব।

  • Share this:

#ভ্যাটিকান: আর তো মাত্র কয়েকটা ঘণ্টা বাকি রয়েছে হাতে! যে-ই না ঘড়ির কাঁটা বারোটার ঘর ছুঁয়ে ফেলবে, সারা বিশ্ব জুড়ে শুরু হয়ে যাবে যিশু খ্রিস্টর জন্মোৎসব। দেশ এবং বিদেশের অসংখ্য গির্জা মুখরিত হয়ে উঠবে ঈশ্বরের পুত্রের সম্মিলিত বন্দনাগানে। রোমের ভ্যাটিকান সিটিতেও চলবে এই উৎসব। আর এ হেন পুণ্যলগ্নেই ঠিক যেন বিনা মেঘে বজ্রপাত হল! জানা গেল যে এক বিকিনি-পরিহিতা মডেলের লাস্যময়ী ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইক করেছেন খ্রিস্টধর্মের প্রধান পুরুষ পোপ ফ্রান্সিস (Pope Francis)!

সত্যি বলতে কী, পোপ হিসেবে ফ্রান্সিস নানা সময়ে যে উদারমনের পরিচয় দিয়েছেন, তা বিশ্বকে মাঝে মধ্যেই স্তম্ভিত করে তুলেছে। কট্টর ক্যাথলিক খ্রিস্টানধর্মে যাজকদের সংসারবাসনা খুবই নিন্দনীয় বলে বিচার করা হয়। কিন্তু বেশ কয়েক বছর আগে এমনটা হলে কী কর্তব্য, কতটা ছাড় দেওয়া যায় যাজকদের, সে নিয়ে রীতিমতো একটা বই লিখে ফেলেছিলেন পোপ! এমনকি প্রয়োজন বিশেষে যাজকদের বিবাহকেও সমর্থন জানিয়েছিলেন তিনি। যা নিয়ে নানা সমালোচনাও হয়েছিল। কিন্তু এ হেন পোপ যে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনাবৃত নারীশরীর দেখতে ভালোবাসেন, সে কথাটা জোর দিয়ে বলা যায় না। কেন না, প্রথমত তা বিতর্কের বিষয়, এবং দ্বিতীয় তা এখনও পর্যন্ত রয়েছে বিচারাধীন স্তরে। https://twitter.com/margot_foxx/status/1329234363314298882?s=20 খবর বলছে যে চলতি বছরের নভেম্বর মাসেই মার্গট নামের এক বিকিনি মডেল এক সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমে তুমুল আলোড়ন ফেলে দেন বিশ্বে। স্ক্রিনশট নিয়ে তিনি সবাইকে জানিয়েছিলেন যে পোপ তাঁর দেহসুষমা লাইক করেছেন! এ বার ব্রাজিলের মডেল নাতালি গারিবোতো ২৩ ডিসেম্বরের উল্লেখ করে লিখতে ছাড়েননি যে তাঁর মা মেয়ের নিতম্ব অনাবৃত দেখলে রেগে আগুন হয়ে যেতেন, কিন্তু পোপ পাক্কা দু'বার সেই ছবি ট্যাপ করেছেন! ঘটনার পর ভ্যাটিকান সিটি ফেসবুক-অধীন ইনস্টাগ্রামের কাছে কৈফিয়ৎ চেয়ে পাঠায়! জানতে চায় যে এ রকম ঘটনা কী করে সম্ভব হতে পারে! ভ্যাটিকান সিটি বিষয়টাকে টেকনিক্যাল এরর হিসেবেই প্রতিপন্ন করতে চাইছে। কিন্তু বাস্তবে ঠিক কী ঘটছে, তা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি।a
Published by:Akash Misra
First published:

লেটেস্ট খবর