৪ দিন পর শেষ সেনা-জঙ্গি যুদ্ধ, উদ্ধার জঙ্গিদের লাশ

৪ দিন পর শেষ সেনা-জঙ্গি যুদ্ধ, উদ্ধার জঙ্গিদের লাশ

প্রায় চার দিন পর থামল সেনা-জঙ্গি লড়াই ৷ অবশেষে জঙ্গিমুক্ত সিলেটের শিববাড়ি এলাকার আতিয়া মহল ৷

  • Share this:

#সিলেট: প্রায় চার দিন পর থামল সেনা-জঙ্গি লড়াই ৷ অবশেষে জঙ্গিমুক্ত সিলেটের শিববাড়ি এলাকার আতিয়া মহল ৷ টানা চারদিন ধরে চলছে অপারেশন টোয়ালাইট ৷ এই সেনা অভিযানে আরো চার জঙ্গির লাশ মিলেছে বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনীর উচ্চ পদস্থ আধিকারিক। লড়াই শেষে সব জঙ্গিরই মৃত্যু হয়েছে বলে খবর ৷ তবে এখনও শেষ নয় অভিযান ৷ আবাসন জুড়ে চলছে শেষ মুহূর্তের চিরুণি তল্লাশি ৷

বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম বিডি২৪ সূত্রে খবর, ২৭ মার্চ অর্থাৎ সোমবার দিনভর অভিযান শেষে সন্ধ্যা ৭ টা ৩০ মিনিটে এক প্রেস ব্রিফিং এ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান এই তথ্য জানান। নিহত জঙ্গিদের মধ্যে তিনজন পুরুষ ও এক জন মহিলা। অভিযান চললেও ভেতরের পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে ৷ চলছে বিস্ফোরক নিস্ক্রিয়করণের কাজ ৷

জঙ্গিরা অত্যন্ত প্রশিক্ষিত ও সুসজ্জিত হওয়ায় অভিযান শেষ হতে অনেকটা সময় লাগল বলে জানিয়েছেন সেনা আধিকারিকরা। অন্যদিকে, ISIS হামলার দায়স্বীকার করলেও, দেশে আইএস-এর অস্তিত্ব মানতে নারাজ বাংলাদেশ সরকার। হামলার পিছনে স্থানীয় জঙ্গিরাই রয়েছে বলে দাবি শেখ হাসিনা প্রশাসনের।

বৃহস্পতিবার মাঝরাতে শুরু হয়েছিল জঙ্গি-পুলিশ গুলির লড়াই। শুক্রবার আটঘাট বেঁধে অভিযানে নেমেছিল সেনাবাহিনী। তা সত্ত্বেও জঙ্গিমুক্ত করা যায়নি সিলেটের পাঠানপাড়ার একটি বহুতলকে। রবিবারও দিনভর জঙ্গিদের সঙ্গে গুলির লড়াই চলে সেনাবাহিনীর প্যারা কমান্ডোদের।

রবিবার সকাল থেকেই দফায় দফায় গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দে কেঁপে ওঠে এলাকা। বহুতলটি চারদিক থেকে ঘিরে রেখেছে সেনা, র‍্যাব ও সিলেট পুলিশের যৌথ বাহিনী। জঙ্গিদের বাগে আনতে টিয়ার শেল ও ক্লোরোফর্ম ব্যবহার করেও কাজ হয়নি। লাভ হয়নি গ্রেনেড ছুড়েও। তবে লাগাতার গুলির লড়াইয়ে ৪ জঙ্গিকে খতম করেছে সেনাবাহিনী ৷

Loading...

গোপন সূত্রে জঙ্গি আস্তানার খবর পেয়ে, বৃহস্পতিবার রাতেই অভিযানে নামে সিলেট পুলিশ। শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয় সেনাবাহিনীর প্যারা কমান্ডোদের 'অপারেশন টোয়াইলাইট'। শনিবার বহুতল থেকে আটাত্তর পণবন্দিকে উদ্ধার করা হয়।

শনিবার সন্ধ্যা ও গভীর রাতে দু’দফায় আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে ৷ আহতের সংখ্যা ৪০ ছাড়িয়েছে ৷ বাংলাদেশের পুলিশ সূত্রে খবর, জঙ্গিরা আবসনের প্রত্যের প্রবেশদ্বার ও ভিতরে বিস্ফোরক পেতে রেখেছিল, যাতে কেউ ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করলে বোমা বিস্ফোরণে প্রাণ হারায় ৷

শনিবার সিলেটে এক জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায় বাংলাদেশ সেনা ৷ সেই ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’ চলাকালীন ঘটে একের পর এক বিস্ফোরণ ৷ ঘটনাস্থলে সে সময় কম্যান্ডো বাহিনী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বহু সাধারণ মানুষ ৷ আহত হন প্রচুর পুলিশ কর্মী, সেনা জওয়ান সহ সাধারণ মানুষ ৷

মৃতদের মধ্যে রয়েছেন জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম এবং ছাত্রলীগের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা শাখার উপ-পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল ফাহিম ও একজনকে আত্মঘাতী বোমারু হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে ৷ আহতরা ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৷

চারদিন পরে অবশেষে স্বস্তির নিশ্বাস সিলেটে ৷ তবে পর পর এমন জঙ্গি হানায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে পড়শি দেশে ৷

First published: 08:18:28 PM Mar 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर