• Home
  • »
  • News
  • »
  • explained
  • »
  • EXPLAINED: আন্তর্জাতিক পর্যকদের জন্য নয়া গাইডলাইন সরকারের, বাধ্যতামূলক RT-PCR নেগেটিভ রিপোর্ট

EXPLAINED: আন্তর্জাতিক পর্যকদের জন্য নয়া গাইডলাইন সরকারের, বাধ্যতামূলক RT-PCR নেগেটিভ রিপোর্ট

আন্তর্জাতিক পর্যকদের জন্য নয়া গাইডলাইন সরকারের, বাধ্যতামূলক RT-PCR নেগেটিভ রিপোর্ট

আন্তর্জাতিক পর্যকদের জন্য নয়া গাইডলাইন সরকারের, বাধ্যতামূলক RT-PCR নেগেটিভ রিপোর্ট

বিভিন্ন দেশের পরিস্থিতি দেখে এবার আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য কয়েকটি নতুন গাইডলাইন জারি করেছে ভারত সরকার। New Guidelines for International Travelers | Coronavirus) (Explained)

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা বিধি সামান্য শিথিল হতেই দেশ, বিদেশে ঘুরতে যাওয়া শুরু করে দিয়েছে মানুষ। অনেকে কাজের খাতিরেও ভ্রমণ করছেন এদিক ওদিক। অনেকে আবার ফিরছেন নিজের জন্মস্থানে। কিন্তু করোনা বিধি কমলেও একাধিক দেশে করোনার নতুন স্ট্রেইন মিলছে এবং করোনা সংক্রমণের সংখ্যা বাড়ছে। সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতি সামলাতে শতাধিক ফ্লাইট বাতিল করেছে চিন। স্কুল বন্ধ করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। বিভিন্ন দেশের পরিস্থিতি দেখে এবার আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য কয়েকটি নতুন গাইডলাইন জারি করেছে ভারত সরকার।

কেন নয়া বিধি?

করোনা পরিস্থিতির জেরে একাধিক ক্ষেত্রে কোপ পড়েছে। যার মধ্যে ট্র্যাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম অন্যতম। একের পর এক পর্যটন কেন্দ্রগুলি বন্ধ হয়েছে। লোকসানের মুখে পড়েছে হোটেল থেকে খাবার ব্যবসায়ীরা। ট্র্যাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ক্ষতির মুখে পড়ে দেশের অর্থনীতিও। এই পরিস্থিতিতে করোনা বিধি শিথিল হতেই সমস্ত SOP মেনে পর্যটন কেন্দ্রগুলি খুলতে শুরু করে।

করোনার প্রথম ওয়েভের পর সামান্য কিছু দিন পর্যটন কেন্দ্রগুলি খুললেও চলতি বছর মার্চের শেষের দিকে ফের থাবা বসার করোনা। রেকর্ড হারে বাড়ে সংক্রমণ। হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু, অক্সিজেনের অভাব, ফের লাগু হয় করোনা বিধি। ফের বন্ধ হয় ভ্রমণ। ভারত থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয় বহু দেশ। এদেশও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে পর্যটকদের জন্য নতুন নতুন SOP তৈরি করা শুরু করে।

বর্তমানে করোনা সংক্রমণ দেশে অনেকাংশেই কম। গতকাল ১০০ কোটি টিকাকরণের লক্ষ্যমাত্রাও পূরণ করেছে সরকার। এই পরিস্থিতিতে ফের যাতে সংক্রমণ না বাড়ে তার জন্য আন্তর্জাতিক পর্যটকদের ক্ষেত্রে নয়া গাইডলাইন জারি হল। আগামী ২৫ তারিখ অর্থাৎ ২৫ অক্টোবর, ২০২১ থেকে এই নিয়ম লাগু হবে।

বর্তমানে যারা বিদেশ থেকে এদেশে আসার কথা ভাবছেন, তাদের প্রথমেই করিয়ে নিতে হবে RT-PCR টেস্ট। এবং টেস্ট রিপোর্টে নেগেটিভ থাকলে তবেই এদেশে আসা সম্ভব হবে। বিশেষ করে UK থেকে কেউ আসতে চাইলে ফ্লাইটেই তাঁকে দেখাতে হবে RT-PCR নেগেটিভ রিপোর্ট।

এবিষয়ে ভারত সরকার জানিয়েছে, বিশ্বে করোনা টিকাকরণের পরিমাণ বাড়া এবং প্যানডেমিকের ভোলবদলের বিষয়টি মাথায় রেখে যে গাইডলাইন ছিল এতদিন আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য, তা পুর্নবিবেচনা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: কোভিড সংক্রমণ থেকে সেরে ওঠার পরও নানা উপসর্গ? কী ভাবে কাটিয়ে উঠবেন জটিলতা?

যাঁরা ইউনাইটেড কিংডম, ফ্রান্স, জার্মানি, নেপাল, বেলারুজ, লেবানন, আর্মেনিয়া, ইউক্রেন, বেলজিয়াম, হাঙ্গেরি ও সার্বিয়া থেকে এদেশে আসার কথা ভাবছেন, তাদের এই নতুন গাইডলাইনগুলি মানতে হবে।

এছাড়াও যে সকল দেশ বিপদে আছে যেমন- দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, বাংলাদেশ, বোতসোয়ানা, চিন, মরিশাস, নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবোয়ে এবং ইউনাইটেড কিংডম; এখান থেকে এদেশে আসতে চাইলে নতুন গাইডলাইনের পাশাপাশি আরও বাড়তি কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে ।

কী কী রয়েছে নতুন নিয়মে ? জেনে নেওয়া যাক -

১. ২৫ অক্টোবর থেকে ভারতে আসতে চাইলে প্রথমেই একটি সেল্ফ-ডিকলারেশন ফর্ম পূরণ করে তা Air Suvidha পোর্টালে আপলোড করতে হবে (www.newdelhiairport.in)। এবং তার পরই তারিখ বেছে বাকি কাজ করা যাবে।

২. আসার তারিখ যেদিন নির্ধারণ করা হবে, তার ৭২ ঘণ্টা আগে করা RT-PCR রিপোর্ট নেগেটিভ হতে হবে। এবং সেই রিপোর্ট Air Suvidha পোর্টালেও আপলোড করতে হবে।

৩. রিপোর্টটি সঠিক কি না তার একটি ডিকলারেশন যাত্রীদের দিতে হবে। কারণ ভুল বা মিথ্যা রিপোর্ট ক্রিমিনাল প্রসিকিউশন হিসেবে গণ্য হবে।

৪. এর পর আরোগ্য সেতু অ্যাপ ফোনে ডাউনলোড করতে হবে। এই অ্যাপটি ফ্লাইটে প্রবেশ করার পূর্বে দেখতে চাইতে পারে কর্তৃপক্ষ।

৫. মাথায় রাখতে হবে, যারা Air Suvidha পোর্টালে সেল্ফ- ডিকলারেশন ফর্ম জমা করেছে, শুধুমাত্র তাদেরই যাত্রা করতে দেওয়া হবে।

৬. এই নিয়মগুলি ছাড়াও বেশ কয়েকটি জিনিস দেখা হবে। যার মধ্যে অন্যতম থার্মাল স্ক্রিনিংয়ে তাপমাত্রা নির্ণয়। তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকলে তবেই যাত্রা করতে দেওয়া হবে। অর্থাৎ উপসর্গহীন থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: ভ্যাকসিনের ককটেল নিরাপদ, কোভিশিল্ড-কোভ্যাকসিন মেশানো নিয়ে ঠিক বলছে ICMR?

এই নিয়মগুলি ছাড়াও বেশ কয়েকটি বিষয় জেনে রাখা ভালো-

১. যারা ভারতে আসতে চাইছে অন্য দেশ থেকে তাদের কোভিড টিকার সঙ্গে ভারতে চলবে কি না তেমন বা WHO অনুমোদিত টিকাগুলি নিতে হবে। তবেই এদেশে আসার অনুমতি মিলবে। এক্ষেত্রে মাথায় রাখতে হবে, টিকাকরণের ১৫ দিন যেন পেরিয়ে যায় যাত্রার পূর্বে। পাশাপাশি দেশে প্রবেশের পর ১৪ দিন সেল্ফ মনিটরিংয়ে থাকতে হবে।

২. ২টি টিকা বা টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নিয়ে তবেই এদেশে আসতে হবে, তার কোনও বাধ্যবাধকতা নেই। যে কোনও একটি ডোজ নিয়েও আসা যেতে পারে কিন্তু সেক্ষেত্রেও RT-PCR পরীক্ষার রিপোর্টে নেগেটিভ আসা বাধ্যতামূলক।

৩. দিল্লি থেকে VISA-র ক্ষেত্রে কিছু নতুন নিয়ম তৈরি করা হয়েছে। যারা আকাশ পথে এবং জল পথে এদেশে আসবে তাদেরই ভিসা দেওয়া হবে। প্রতি মাসে একটি করেই ভিসা বা ই-ভিসা দেওয়া হবে।

৪. Indian High Commission in Dhaka, Bangladesh সম্প্রতি ট্যুইট করে জানিয়েছে, ১৫ অক্টোবর থেকে ভারত -বাংলাদেশের মধ্যে উড়ান সংখ্যা বেড়েছে। অবশ্যই এক্ষেত্রে এয়ার বাবলের ব্যবস্থা থাকছে।

৫. যারা ভারত থেকে UK-তে যাবে তাদের যদি কোভিশিল্ডের ২টো ডোজ থাকে, তা হলে ৮ নম্বর দিনে যে RT-PCR করতে হয়, সেটা আর করতে হবে না এবং ১০ দিনের কোয়ারান্টিনেও থাকতে হবে না।

৬. সম্প্রতি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, যারা চার্টার্ড ফ্লাইটে অন্য দেশ থেকে ভারতে আসবে তাদের কোনও সমস্যা হবে না। প্রত্যেককে ভারতে প্রবেশের বর্তমাবে অনুমতি দেওয়া হবে। ১৫ নভেম্বরের পর যারা আসবে নন-চার্টার্ড ফ্লাইটে তাদেরও কোনও সমস্যা হবে না।

রাজ্যের পৃথক গাইডলাইন

তবে, দেশের একটি নির্দিষ্ট গাইডলাইন থাকলেও রাজ্যগুলির পৃথক কিছু গাইডলাইন রয়েছে। সব রাজ্য সব দেশ থেকে পর্যটকদের অনুমতি বর্তমানে দিচ্ছে না। কেরল যেমন আন্তর্জাতিক পর্যকদের জন্য একটি নয়া গাইডলাইন বানিয়েছে। তাদের টিকাকরণের নিয়ম অনুযায়ী নেওয়া টিকা থাকলে তবেই একজনকে বিদেশ থেকে অরাজ্যে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। UK থেকে যারা আসবে তাদের ১০ দিন কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে। সাউথ আফ্রিকা, ইউরোপ, ব্রাজিল থেকে যারা আসবে তাদের ৭ দিন কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে।

ভারতে যাত্রার পূর্বে এবং যে যে রাজ্যে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে, সেখানে যাওয়ার পূর্বে অবশ্যই সেখানকার কোভিড নিয়ম দেখে নিতে হবে। তার পরই ভ্রমণের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। প্রয়োজনে ভারত সরকার কর্তৃক প্রকাশিত গাইডলাইনটি পড়ে নেওয়া যেতে পারে।

আরও পড়ুন: টিকার সম্পূর্ণ ডোজ নিয়েও কোভিডে আক্রান্ত, কাদের সংক্রমণের সম্ভাবনা সব চেয়ে বেশি?

Published by:Raima Chakraborty
First published: