• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • বিরাট চমক! ‘নতুন বউ’ টলি নায়িকা সায়ন্তিকা

বিরাট চমক! ‘নতুন বউ’ টলি নায়িকা সায়ন্তিকা

সায়ন্তিকা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় ৷ ছবি: ইনস্টাগ্রাম ৷

সায়ন্তিকা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় ৷ ছবি: ইনস্টাগ্রাম ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: গত সাত-আট বছরের সম্পর্ক ৷ ২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলা ছবি ‘টার্গেট: দ্য ফাইনাল মিশন’৷ সেই ছবিতেই নায়ক-নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেন জয় মুখোপাধ্যায় এবং সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ সেই থেকে বন্ধুত্ব শুরু ৷ এরপর সেই বন্ধুত্ব ধীরে ধীরে সম্পর্কে পরিণতি পায় ৷

    একের পর এক বড় বড় ছবির অফার পেতে শুরু করেন সায়ন্তিকা ৷ বড় ব্যানারের ছবিতে দেখা যায় তাঁকে ৷ অন্যদিকে, জয়ের কেরিয়ার ততোটা জমকালো ছিল না বিলকুল ৷ কেরিয়ারের দৌড়ে জয়কে অনেকটাই পিছনে ফেলে এগিয়ে রয়েছেন সায়ন্তিকা। বেশ কিছু মূল ধারার ছবি— ‘কেলোর কীর্তি’, ‘অভিমান’, ‘আমি যে কে তোমার’ ছাড়াও সম্প্রতি ‘উমা’-তেও নজর কেড়েছেন তিনি। তাঁর কেরিয়ার গ্রাফ গত দু’বছর ধরেই বেশ ঊর্ধমুখী। তবে, জয়ের কেরিয়ার থমকে গিয়েছে ৷ দীর্ঘ দিন ধরেই তাঁদের মধ্যে একটি প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ইদানীং জয়ের নানা আচরণ ও ব্যবহারে সেই প্রেমে ফাটল ধরে। তার পর থেকেই নানা ভাবে জয় তাঁকে উত্যক্ত করছিলেন বলে সায়ন্তিকার অভিযোগ।

    Shubh Dhanteras to all...

    A post shared by Sayantika Banerjee (@iamsayantikabanerjee) on

    আর এক রাতে রাস্তার মধ্যে নায়িকার গাড়ি আটকে তাঁর ম্যানেজারকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছিল অভিনেতা জয় মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ৷ পুলিশের কাছে অভিযোগও জানিয়েছিলেন নায়িকা ৷ তবে, সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন জয় ৷ অভিনেতার সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর অন্য আরেকজনের সঙ্গে সায়ন্তিকা সম্পর্কে জড়িয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে ৷ আর এই সব খবরের মাঝেই বিরাট চমক দিলেন নায়িকা ৷

    2

    এক্কেবারে বাঙালি বধূর বেশে হাজির নায়িকা ৷ ইনস্টাগ্রামে এমনই একটি ছবি পোস্ট করলেন সায়ন্তিকা ৷ আসলে আজ ধনতেরাস ৷ সেই কথা মাথায় রেখেই এমন ছবি পোস্ট করেছেন তিনি ৷ আর সেই ছবি দেখে আপ্লুত নায়িকার ভক্তরা ৷ তাঁরা সায়ন্তিকাকে ধনতেরাসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ৷ আবার কেউ লিখেছেন-‘নতুন বউ’ ৷ ভক্তরা তাঁর কেরিয়ারের উন্নতির সঙ্গে সঙ্গেই তাঁর চার হাত এক করার কথাও ভেবে চলেছেন ৷ তবে কবে নায়িকা বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন, তা সময়ই বলবে ৷

    First published: