'সুস্থ বাঘিনীর চেয়ে আহত বাঘিনী বেশি ভয়ঙ্কর', মমতাকে নিয়ে ট্যুইট রাজ-মিমিদের

'সুস্থ বাঘিনীর চেয়ে আহত বাঘিনী বেশি ভয়ঙ্কর', মমতাকে নিয়ে ট্যুইট রাজ-মিমিদের

Raj Chakraborty Mimi Chakraborty Sayantika Banerjee tweeted on Mamata Banerjee Wheelchair comeback

ফের ভোটের ময়দানে প্রত্যাবর্তন করলেন মমতা৷ রাস্তায় নামলেন বাংলার 'স্ট্রিট ফাইটার'৷ হুইল চেয়ারেই কামব্যাক করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷

  • Share this:

    #কলকাতা: পায়ে চোট নিয়ে হাসপাতালে শুয়েই তিনি বলেছিলেন যে, দরকার হলে হুইল চেয়ারে বসেই প্রচার করবেন৷ আর সেটাই করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)৷ ফের ভোটের ময়দানে প্রত্যাবর্তন করলেন মমতা৷ রাস্তায় নামলেন বাংলার 'স্ট্রিট ফাইটার'৷

    হুইল চেয়ারেই কামব্যাক করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ আজ ১৪ মার্চ, নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষ্যে হাজরায় তৃণমূলের মিছিলে নেতৃত্ব দিলেন তিনি৷ ছুটির দুপুরে ভাঙা পায়ে হুইল চেয়ারে বসেই নিজের উপস্থিতি জানিয়ে দিলেন মমতা৷ তাঁকে ফের স্বমহিমায় দেখে উচ্ছ্বসিত দলের কর্মী থেকে প্রার্থী ও মন্ত্রীরা৷

    ট্যুইট করলেন রাজ চক্রবর্তী (Raj Chakraborty), মিমি চক্রবর্তী Mimi (Chakraborty) ও সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় (Sayantika Banerjee)৷ এদিন ব্যারাকপুরের  তৃণমূলের প্রার্থী রাজ লিখলেন, "সুস্থ বাঘিনীর চেয়ে আহত বাঘিনী বেশী ভয়ঙ্কর। নন্দীগ্রাম দিবস উৎযাপনে বাংলার জনপ্লাবনের মাঝে আজ বাংলার জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বিজেপিকে বার্তা আমার , বাংলা ছাড়ো তুমি এবার।"

    বাঁকুড়া কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী সায়ন্তিকা লিখলেন, "নন্দীগ্রামে আহত হলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ লড়াইয়ের ময়দানে পুনরায় অবতীর্ণ। বাংলার একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী, যিনি বাংলার মানুষের উপর আসন্ন আঘাতের বরাবর মোকাবিলা করে এসেছেন এবং আজও তা অব্যাহত।"

    ট্যুইট করলেন আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী সায়নী ঘোষ৷ তিনিও মমতাকে বাঘিনী সম্বোধন করে #MamataIsBack হ্যাশট্যাগ জুড়ে তিনি লিখলেন, "বাঘিনীর প্রত্যাবর্তন। বাঘিনী সেই, যাকে শত আঘাত করলেও দমে থাকেন না। অন্যায়ের প্রতিবাদে গর্জে ওঠেন,পথে নামেন। যতই আঘাত করো আমাদের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিদি তোমাদের জমানত জপ্ত করেই ছাড়বে। তৈরী থেকো,আহত খেলা হবে।"

    অভিনেত্রী সাংসদ মিমি তৃণমূল নেত্রীর ছবি ট্যুইট করে লিখলেন, "বাংলা নিজের মেয়েকেই চায় .. কি তাইতো?"
    Published by:Subhapam Saha
    First published:

    লেটেস্ট খবর