Mimi Chakraborty-Anindya Chatterjee|| অনিন্দ্য খুবই কাছের মানুষ, সোশ্যাল মিডিয়ায় 'ধন্যবাদ' জানালেন মিমি, কিন্তু কেন?

টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে মিমি-অনিন্দ্যর বন্ধুত্ব ইদানিং কালের নয়, বহুদিনের। বিভিন্ন গেট টুগেদারে দুজনকে একসঙ্গে দেখতে পাওয়া যায়।

টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে মিমি-অনিন্দ্যর বন্ধুত্ব ইদানিং কালের নয়, বহুদিনের। বিভিন্ন গেট টুগেদারে দুজনকে একসঙ্গে দেখতে পাওয়া যায়।

  • Share this:

    #কলকাতা: টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে মিমি চক্রবর্তী-অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়ের বন্ধুত্ব ইদানিং কালের নয়, বহুদিনের। বিভিন্ন গেট টুগেদারে দুজনকে একসঙ্গে দেখতে পাওয়া যায়। দুজনের Instagram হ্যান্ডলে তাঁদের বন্ধুত্বের ছবি জ্বলজ্বল করছে। সম্প্রতি মিমি চক্রবর্তী (Mimi chakraborty), অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়কে (Anindya Chattopadhyay) একটি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমে ‘ধন্যবাদ’ জানিয়েছেন। কারণ, লকডাউনের গভীর রাতে অনিন্দ্য, মিমির পোষ্য চিকু জুনিয়রকে (Chickoo Junior) পশু চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন। মিমি এবং অনিন্দ্য দুজনেই পশুপ্রেমি।

    অনিন্দ্য জানিয়েছেন, “মিমি টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে আমার সবচেয়ে পুরনো বন্ধু। আমরা বাপি বাড়ি যা (Bapi Bari Jaa) ছবি দিয়ে একসঙ্গে আমাদের কেরিয়ার শুরু করেছিলাম। সেই সময় থেকেই আমরা বন্ধু। যে কোনও ছেলে বন্ধুর সঙ্গে আমি যেভাবে মিশি মিমির সঙ্গেও আমার সম্পর্কটা ঠিক তেমনই। আমাদের সম্পর্ক খুব খোলামেলা। ওঁর বন্ধুত্বপূর্ণ খুনসুটিগুলো আমার ভালো লাগে। দুজনেই আমরা নিজেদের পোষ্যকে ভালবাসি। পথে ঘাটের কোনও কুকুর যদি অসহায় অবস্থায় পড়ে থাকে, সেই সময় যদি কোনও সাহায্যের প্রয়োজন পড়ে আমি মিমির সঙ্গে যোগাযোগ করি। মিমি এক সেকেন্ডও সময় লাগায় না আমাকে রিপ্লাই করতে”। একইসঙ্গে অনিন্দ্য আরও বলেন, “কলকাতায় লকডাউনের এক রাতে, মিমির পোষ্য চিকু জুনিয়র অসুস্থ হয়ে পড়ে। মিমি আমাকে জানায় চিকু বমি করছে। তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়া দরকার। আমার পরিচিত এক চিকিৎসক ছিল। আমি একটুকুও সময় নষ্ট না করে মিমির বাড়িতে হাজির হই”।

    প্রসঙ্গত, অনিন্দ্যর হাতে এখন কোনও নতুন প্রজেক্ট নেই। তবে তাঁর অভিনীত অনেক ছবি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। অনিন্দ্য আশা প্রকাশ করেছে, আবার সিনেমাহলগুলি চালু হবে। দর্শক আবার প্রেক্ষাগৃহে পরিবার সমেত যেতে পারবে। অন্যদিকে, মিমির আসন্ন ছবি বাজি (Baazi)। যেখানে তাঁর বিপরীতে রয়েছেন টলিউডের সুপারস্টার জিৎ (Jeet)। ছবিটি পরিচালনা করবেন অংশুমান প্রত্যুষ (Angshuman Pratyush) এবং প্রযোজনায় থাকছে জিতের প্রোডাকশন হাউজ।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: