• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • TOLLYWOOD MOVIES ANJAN DUTT SHARES HOW HE HAS THOUGHT TO DESIGN HIS NEW DETECTIVE CHARACTER SWD

Anjan Dutt: সাদামাটা চেহারা, পরনে সুতির প্যান্ট, সাধারণ বাঙালি! অঞ্জন দত্তের নতুন গোয়েন্দা চরিত্র সুব্রত শর্মার ভূমিকায় কে, জল্পনা শুরু

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ফ্যান গ্রুপেই এই ঘোষণা করেছেন পরিচালক। তবে এই গোয়েন্দার কোনও নায়কোচিত চেহারা নেই, বিরাট পাণ্ডিত্যও নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ফ্যান গ্রুপেই এই ঘোষণা করেছেন পরিচালক। তবে এই গোয়েন্দার কোনও নায়কোচিত চেহারা নেই, বিরাট পাণ্ডিত্যও নেই।

  • Share this:

    #কলকাতা: গোয়েন্দা গল্পের প্রতি বাঙালির আসক্তি বরাবরই এগিয়ে থাকে। শার্লক হোমস হোক বা খাস বাংলার ব্যোমকেশ বক্সী, পড়ার সময়ে বাঙালি পাঠকের নিজের মনের মধ্যেও একটি গোয়েন্দা জন্ম নেয়। শেষ পর্যন্ত সে রহস্যের সমাধান নিজের মতো করে মেলাতে থাকে। আর তাই সাহিত্যিক শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যোমকেশ বড় পর্দায় চাক্ষুস করা বাঙালির কাছে ছিল এক বিরাট প্রাপ্তি। পরিচালক অঞ্জন দত্ত (Anjan Dutt) বড় পর্দায় সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ বক্সীকে নিয়ে বেশ কয়েকটি গল্প ফুটিয়ে তোলেন। এর পরে অন্যান্য পরিচালকরাও নিজেদের মতো করে এই গোয়েন্দা চরিত্র নিয়ে কাজ করেছেন। আর এবার স্বয়ং অঞ্জন দত্ত একটি গোয়েন্দা চরিত্র লিখছেন।

    সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ফ্যান গ্রুপেই এই ঘোষণা করেছেন পরিচালক। তবে এই গোয়েন্দার কোনও নায়কোচিত চেহারা নেই, বিরাট পাণ্ডিত্যও নেই। ছাপোষা বাঙালি বলতে মানুষ যা বোঝে, তেমনই হল অঞ্জন দত্তের এই নতুন গোয়েন্দা-সুব্রত শর্মা। পরিচালক লিখছেন, "একটি নতুন গোয়েন্দা আসতে চলেছে। আমারই লেখা। আমারই ডিটেক্টিভ...রুদ্র সেনের বয়স বেড়ে গেলো। তখন নিয়ে এলাম ব্যোমকেশ। ব্যোমকেশ যখন সকলের হয়ে গেলো। বেরিয়ে এলাম। এখন এই ওয়েব প্ল্যাটফর্ম- এর দৌলতে ইচ্ছে হলো শেষ জীবনে একটা নিজের গোয়েন্দা তৈরি করি।"

    দিন কয়েক আগেই হইচই-তে মুক্তি পেয়েছে অঞ্জন দত্তের মার্ডার ইন দ্য হিলস। দার্জিলিং এর প্রেক্ষাপটে থ্রিলার সিরিজটি ইতিমধ্যেই পছন্দ করেছে দর্শক। পর্যটন স্থল দার্জিলিং নয়। অঞ্জন দত্তের চোখ দিয়ে দার্জিলিং এর রোজকার গল্প দেখেছে দর্শক। আরই তারই সঙ্গে খুনের রহস্য সমাধানে খোঁজে এগিয়েছে দর্শক মন। আর তাই তার পরিচালনায় আরও একটি আনকোরা গোয়েন্দা চরিত্র পেতে তাঁর অনুরাগীরা উৎসুক হয়ে রয়েছেন।

    পরিচালক তাঁর পোস্টে লিখছেন, "একেবারেই এই সময় দাঁড়িয়ে, খুবই বিশ্বাসযোগ্য ভাবে। একটা প্রায় অকেজো, কোনমতে টিকে থাকা, সস্তার ডিটেক্টিভ এজেন্সি-র এক সেক্রেটারির গোয়েন্দা হয়ে ওঠার গল্প। বার বার, খুব তুচ্ছ অ্যাসাইনমেন্ট দিয়ে শুরু হয়, কিন্তু বিশাল বড়ো মাপের চক্রান্তে পৌঁছে যায়।"

    এর পরেই সেই গোয়েন্দা সম্পর্কে বর্ণনা দিয়েছেন অঞ্জন দত্ত। তিনি লিখছেন, "সুব্রত সর্মা। ৩৮ বছরের খুবই সাধারণ বাঙালী। প্রখর মস্তিষ্ক, সব ব্যাপারে বিশাল পাণ্ডিত্য, প্রবল গায়ের জোর... এসব কিছুই নেই। আছে সাহস, ইনস্টিংক্ট। আর যে কোনো অবস্থ্যা থেকে স্রেফ কথা বলে বেরিয়ে আসার ক্ষমতা। সুব্রত, ট্রেনের সেকেন্ড ক্লাস কামরায় চড়ে প্রায় গোটা দেশ দেখে ফেলেছে। যে ভ্রমণ প্রিয়। সে একা থাকে। তার সেলফোন স্রেফ ফোন করার জন্য। সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে তার আগ্রহ নেই। জিন্স পরে না। সুতির প্যান্ট পরে। এখনও রিস্ট ওয়াচ পরে। খবরের কাগজ পড়ে। সিনেমা বা কবিতায় খুব একটা আগ্রহ নেই। সস্তার হুইস্কি খায়। পিস্তল চালানোটা শিখতে হয়েছে। কিন্তু প্রায় সেটা কেড়ে নেওয়া হয়, নাক কাটা যায়, মার খায়... কিন্তু ওর জেদ ওকে ঠিক সত্য খুঁজে বার করতে সাহায্য করে। অপরাধী ওর থেকে অনেক বেশি প্রতাপশালী। কিন্তু ওই! পুরনো পন্থী মধ্যবিত্ত বাঙালির আর কিছু নেই, আছে আত্মসম্মান বোধ। সুব্রতকে টাকা দিয়ে কেনা যায়না।"

    শেষে একটি সারপ্রাইজের কথাও উল্লেখ করেছেন পরিচালক। এমন বর্ণনা শুনে অঞ্জন দত্তের অনুরাগীরা ইতিমধ্যেই আগ্রহী। অনেকেই আবার কল্পনা করতে শুরু করে দিয়েছেন, টলিউডের কোন অভিনেতাকে দেখা যাবে এই চরিত্রে। শোনা যাচ্ছে কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। অক্টোবরে ওয়েব প্ল্যাটফর্ম ক্লিক-এ এই নতুন গোয়েন্দা চরিত্রের দেখা পাবে দর্শক।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: