Saayoni Ghosh: আবার শাড়ির কুচি ধরে ছুটলেন সায়নী! কিন্তু কেন, সেই জবাবও দিলেন নেটিজেনদের

Saayoni Ghosh: আবার শাড়ির কুচি ধরে ছুটলেন সায়নী! কিন্তু কেন, সেই জবাবও দিলেন নেটিজেনদের

আবার শাড়ির কুঁচি ধরে ছুটলেন সায়নী! কিন্তু কেন, সেই জবাবও দিলেন নেটিজেনদের

প্রচারে নেমে শাড়ির কুচি ধরে ছুটছেন অভিনেত্রী তথা আসানসোলের তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ। সেই ভিডিও মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। ট্রোলিংও শুরু হয় সেই ভিডিও নিয়ে।

  • Share this:

    #কলকাতা: প্রচারে নেমে শাড়ির কুচি ধরে ছুটছেন অভিনেত্রী তথা আসানসোলের তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ। সেই ভিডিও মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। ট্রোলিংও শুরু হয় সেই ভিডিও নিয়ে। অনেকেই প্রশ্ন তোলেন, কেন হঠাৎ ছুটতে শুরু করলেন সায়নী। কিন্তু সেই সব ট্রোলিং ও প্রশ্নের জবাব দিতেই আবার ছুটলেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী।

    সায়নী যে ভিডিওটি পোস্ট করেছিলেন, আসানসোলের মানুষ সায়নীর গলায় রাশি রাশি ফুলের মালা পরিয়ে দিচ্ছেন। কিছু মালা আবার খুদেদের গলায় পরিয়ে দিচ্ছেন অভিনেত্রী। উদ্দীপনার সঙ্গে সায়নীকে প্রচার করতে দেখা যাচ্ছে। পিছনে বাজছে তৃণমূলের খেলা হবে ডিজে ভারশন। সবই ঠিক ছিল। কিন্তু হঠাৎই কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই শাড়ির কুচি ধরে দৌড়তে শুরু করেন সায়নী। সেই নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয় কাটাছেঁড়া। আর তার জবাব দিতেই আবার একটি ভিডিও শেয়ার করলেন সায়নী।

    এই ভিডিওতেও সায়নীকে ফের একই ভাবে ছুটতে দেখা গিয়েছে। বেশ কিছুটা ছুটে গিয়ে আসানসোলের মানুষকে আগলে নেন তিনি। তাঁরাও ফুল ও মালা দিয়ে সায়নীকে ভরিয়ে দেন। সেই ১৫ সেকেন্ডের ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হিসেবে চলছে, গালি বয় ছবির বিখ্যাত গান, 'তু নাঙ্গা হি তো আয়া হ্য়ায়, কেয়া ঘণ্টা লে কর জায়গা'।

    এই ভিডিওর ক্যাপশনে সায়নী লিখেছেন, "আমার পা, আমার ইচ্ছে"। প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই তারকা প্রার্থীদের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। তাঁদের মধ্যে অন্যতম সায়নী। এবারের নির্বাচনে তিনি একটি গুরুত্বপূর্ণ মুখ বলেই মনে করা হচ্ছে। পাশাপাশি কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। তবে সায়নী নিজে বেশ আত্মবিশ্বাসী। নিজের কেন্দ্রের মানুষদের সঙ্গে দেখা করেও খুশি অভিনেত্রী। যদিও আসানসোলে কিছু অঞ্চলে তাঁকে দেখে গো ব্যাক স্লোগান ওঠে। আবার তেমনই কিছু জায়গায় তাঁকে ফুলের মালা দিয়ে স্বাগত জানান মানুষ।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: