Home /News /entertainment /
Bela Shuru: ‘আপনার কাঁদিবার জন্য একটি বাটি!’ ‘বেলাশুরু’-র ডাবিং শেষে বলেছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

Bela Shuru: ‘আপনার কাঁদিবার জন্য একটি বাটি!’ ‘বেলাশুরু’-র ডাবিং শেষে বলেছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

Bela Shuru: স্টুডিওতে ডাবিং পর্বের এই মুহূর্ত মঙ্গলবার সমাজমাধ্যমে শেয়ার করেছেন পরিচালক প্রযোজক শিবপ্রসাদ৷ তার পর এই ভিডিও ভাইরাল সমাজমাধ্যমে৷

  • Share this:

    কলকাতা : ‘‘যতটা দেখলেন কীরকম লাগল?’’ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে প্রশ্ন করেছিলেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়৷ ‘বেলাশুরু’ ছবির ডাবিং শেষে৷ প্রশ্নের উত্তর এসেছিল রসবোধে সিঞ্চিত হয়েই৷ বর্ষীয়ান অভিনেতা বলেছিলেন ছবি দেখে লোকে কত কাঁদবে জানি না৷ তাঁদের বাটি দিতে হবে৷ তাঁর উত্তরে হেসে উঠেছিলেন পাশে দাঁড়ানো শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায় দু’জনেই৷ স্টুডিওতে ডাবিং পর্বের এই মুহূর্ত মঙ্গলবার সমাজমাধ্যমে শেয়ার করেছেন পরিচালক প্রযোজক শিবপ্রসাদ৷ তার পর এই ভিডিও ভাইরাল সমাজমাধ্যমে৷

    সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বলা বাটির প্রসঙ্গে মজা করে নন্দিতা বলেন এ বার ছবির প্রেমিয়ারে তাঁরা একটি করে বাটি দেবেন৷ সৌমিত্রর সুরসিক পরামর্শ, টিকিটের সঙ্গে একটি করে বাটি দিতে হবে-‘‘আপনার কাঁদিবার জন্য একটি বাটি!’’ এ কথার পর একসঙ্গে হেসে উঠলেন দুই পরিচালক এবং অভিনেতা নিজে৷ সঙ্গে রয়েছে সৌমিত্রর কণ্ঠে ডাবিং-সংলাপের অংশ-‘‘আমি মানসিকভাবে বড় ক্লান্ত, বুড়ি৷’’ এক বার বলে পছন্দ না হওয়ায় আরও এক বার এই সংলাপ বলেন তিনি৷  ডাবিং পর্বে  হাসির রেশ যখন অনুরণিত হচ্ছে, তখন কেউ দুঃস্বপ্নেও ভাবতে পারেননি এই ছবি যখন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে, তখন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় চলে যাবেন বহুদূরে৷

    জীবনসঙ্গীকে ভাল রাখার জন্য এক জন কত দূরত্ব পর্যন্ত যেতে পারেন? সেই যাত্রাপথ ধরেই এগিয়েছে ‘বেলাশুরু’৷ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত জুটির শেষ ছবি মুক্তি পাবে শুক্রবার, ২০ মে৷ ‘গোত্র’-র আড়াই বছর পর আবার প্রেক্ষাগৃহে আসতে চলেছে শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়ের যুগলবন্দি৷ ইতিমধ্যেই তুমুল জনপ্রিয় ‘টাপা টিনি’, ‘সোহাগে আদরে’-সহ এখনও অবধি প্রকাশিত ছবির সব গান৷ বাকি গান-সহ ছবির মিউজিক লঞ্চ বৃহস্পতিবার, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে৷ শুক্রবার এ ছবির প্রেমিয়ার শো প্রদর্শিত হবে বিজলী প্রেক্ষাগৃহে৷

    আরও পড়ুন : অনীকের শ্রদ্ধার্ঘ্য নামেও ‘অপরাজিত’, কাজেও অপরাজিত! জিতুর অভিনয় অতুলনীয়

    সেখানেও শূন্য রয়ে যাবে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও স্বাতীলেখা সেনগুপ্তর আসন দু’টি৷ এ আক্ষেপ শিবপ্রসাদ ও নন্দিতার চিরসঙ্গী হয়েই থাকবে৷ এই জুটিকে দেখতে পারলেন না ‘বেলাশুরু’৷ তাঁদের মতো আরও এক জুটির অনুপস্থিতি শূন্যতা তৈরি করবে প্রতি মুহূর্তে৷ তাঁরা পবিত্রচিত্ত নন্দী এবং গীতা নন্দী৷ দমদমের এই দম্পতির জীবনের লড়াই নিয়েই ‘বেলাশুরু’ ছবির গল্প৷

    আরও পড়ুন : অতীতে একাধিক সম্পর্ক, প্রেম থিতু হতে পারতেন না পল্লবী, বলেন তাঁর মা

    আরও পড়ুন : ছুটে গিয়ে কেক খাওয়ালেন মাকে, পল্লবীর শেষ জন্মদিনের মুহূর্তে নেটিজেনদের চোখে জল

    এক বিরল অসুখের জন্য স্বামীকে আর চিনতে পারতেন না গীতাদেবী৷ তাঁরা দু’জনে এক সময় পাড়ি দিয়েছেন বিশ্বের বহু দেশে৷ সে সব স্মৃতির ফ্রেমবন্দি ছবি লাগানো থাকত বাড়ির একতলার একটি ঘরের দেওয়ালে৷ সেগুলি দেখিয়ে স্ত্রীর স্মৃতি ফেরানোর চেষ্টা করতেন চিত্তপ্রসাদ৷ তাঁর এই মরিয়া প্রয়াস হয়ে উঠেছিল চিকিৎসকদের ‘কেস স্টাডি’৷ এই দম্পতির কথা সংবাদপত্রে পড়ে ছবি তৈরির কথা ভাবেন শিবপ্রসাদ ও নন্দিতা৷ কিন্তু দীর্ঘ অতিমারি পর্বে সৌমিত্র, স্বাতীলেখার মতো না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন পবিত্রচিত্ত এবং গীতাও৷ তাঁদের গল্প এ বার সেলুলয়েডবন্দি নতুন প্রহর শুরুর প্রতিশ্রুতি নিয়ে৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Belasheshe, Belashuru, Soumitra Chaterjee, Swatilekha Sengupta

    পরবর্তী খবর