Shilpa Shetty Kundra: এবার ওটিটি প্ল্যাটফর্মে আসতে চলেছেন, প্রোজেক্ট নিয়ে মুখ খুললেন শিল্পা!

Shilpa Shetty Kundra: তিনি এই বিষয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত, তিনি আশা করেছেন, দর্শক তাঁকে পছন্দ করবেন।

Shilpa Shetty Kundra: তিনি এই বিষয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত, তিনি আশা করেছেন, দর্শক তাঁকে পছন্দ করবেন।

  • Share this:

#মুম্বই: হাঙ্গামা ২ (Hungama 2) মুক্তি পেয়েছে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে, এবার একটি ওয়েব সিরিজ দিয়ে ডিজিটালে আত্মপ্রকাশের ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন বলিউডের হট অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টি কুন্দ্রা (Shilpa Shetty Kundra)। তিনি এই বিষয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত, তিনি আশা করেছেন, দর্শক তাঁকে পছন্দ করবেন। অভিনেত্রী একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, “খুব তাড়াতাড়ি বড় কিছুর ঘোষণা করা হবে। আমি ২০২২ সালে এই প্রোজেক্টের কাজ শুরু করতে চাই। আমি একটা কাজ শুরু করতে চলেছি যা নিয়ে এখন থেকে চিন্তা-ভাবনা শুরু করেছি। আশা করছি আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ে এই প্রোজেক্টের কাজ শুরু করতে পারব। OTT প্ল্যাটফর্মগুলি বর্তমানে আমি সহ বহু অভিনেতার কাজের জন্য পথ খুলে দিয়েছে। এছাড়াও বড় কিছু করতে গেলে একটু সময় নিয়ে করার দরকার পড়ে, এতে সেই কাজের ফল ভালো হয়, দর্শকের কাছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা বাড়ে”।

লাইফ ইন আ মেট্রো (Life in a Metro) এবং ধড়কন (Dhadkan) ছবিতে শিল্পা শেট্টির অভিনয় প্রশংসা কুড়িয়েছিল দর্শকের। প্রায় ১৪ বছর পর সাবির খানের (Sabbir Khan) অ্যাকশন-রোমান্টিক-কমেডি ছবি নিকম্মা (Nikamma) দিয়ে বলিউডে কামব্যাক করার কথা ছিল অভিনেত্রীর। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি সেই পরিকল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছে। নিকম্মা এখনও মুক্তি পায়নি। এই ছবিতে অভিমন্যু দাসানি (Abhimanyu Dassani) ও শার্লি শেটিয়া (Shirley Setia) অভিনয় করেছেন।

শিল্পা জানিয়েছেন, “আমি বলিউডে কামব্যাক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম নিকম্মা ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে। আমি ভেবেছিলাম ফিরতেই যখন হবে তখন অন্যর কম কিছু কাজ করা ভালো। আমি সেটাই করছিলাম, যাই হোক হাঙ্গামা ২ আগেই মুক্তি পাচ্ছে, এমন অনেকেই আছে যাঁরা করোনার জন্য বাইরে বেরোতে পছন্দ করছেন না তাই তাঁরা এবার ঘরে বসেই নতুন ছবি দেখতে পারবেন। এতে অভিনেতাদের জন্যেও বড় পথ প্রশস্ত হয়েছে। আরও নতুন কাজ করার সুযোগ থাকছে। অমি কাজের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মেনে চলি। আমার মনে হয়ে স্ক্রিপ্টে জোর থাকলে অভিনেতারাও নিজের কাজ আরও ভালো করে করতে পারেন, আমার ক্ষেত্রেও তেমনটাই হয়েছে আর সেটা কাজও করেছে”।

Published by:Piya Banerjee
First published: