Home /News /entertainment /
Pallavi Dey Death: পল্লবীর বন্ধু সায়কের চাঞ্চল্যকর দাবি! ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে গয়না কিনতে যান সাগ্নিক, সামনে এল চমকে দেওয়া সেই ছবি

Pallavi Dey Death: পল্লবীর বন্ধু সায়কের চাঞ্চল্যকর দাবি! ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে গয়না কিনতে যান সাগ্নিক, সামনে এল চমকে দেওয়া সেই ছবি

Pallabi Dey Death: পল্লবীর জন্য গয়না কিনতে যাওয়ার সময় সায়ককেই সঙ্গে নিতে চেয়েছিলেন সাগ্নিক। কিন্তু সায়কের সময় হয়নি। ফলে, সাগ্নিক সঙ্গে নেন ঐন্দ্রিলাকে৷ হাওড়া থেকে সাগ্নিকের গাড়িতেই আসেন ঐন্দ্রিলা৷ ঐন্দ্রিলার কথা অনুযায়ী সাগ্নিকের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ ছিল না৷ ফলে অসংগতি ধরা পড়ছে আবারও৷ দুটি ঘটনা কোনওভাবেই মেলানো যাচ্ছে না৷

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    #কলকাতা: পল্লবী দের রহস্যমৃত্যুতে সামনে এল আরও এক চাঞ্চল্যকর  তথ্য৷ শুক্রবার নিউজ ১৮ বাংলাকে পল্লবী দে-র বন্ধু সায়ক চক্রবর্তী জানান, ‘‘ঐন্দ্রিলার কথা ভিত্তিহীন৷ তিনি বলেছেল যে সাগ্নিককে বেশিদিন চিনতেন না। অথচ পল্লবী-সাগ্নিকের অ্যানিভার্সারিতে লক্ষাধিক টাকার হার কিনেছিলেন সাগ্নিক৷ এবং সঙ্গী ছিলেন ঐন্দ্রিলা৷’ সেই ছবি প্রকাশ্যে এনেছেন সায়ক৷

    কী হয়েছিল আসলে? পুরো বিষয়টাই জানিয়েছেন সায়ক৷ পল্লবীর জন্মদিনে নিমন্ত্রিত ছিলেন সায়ক৷ তখনই সাগ্নিকের সঙ্গে পরিচয়৷ এরপর তাঁদের সম্পর্কের বর্ষপূর্তিতে নিমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন সায়ক। সায়কের থেকে পোশাক শিল্পীদের নম্বরও চান সাগ্নিক। সাগ্নিকের ইচ্ছা ছিল তিনি আর পল্লবী এক রকম ডিজাইনার পোশাক পরবেন। সায়ক সাগ্নিককে বেশ কিছু পোশাকশিল্পীর হদিশ দেন। এরপর পল্লবীকে কী উপহার দেওয়া যায় তা নিয়ে সায়কের সঙ্গে  আলোচনা করেন সাগ্নিক ৷ পুরো কথোপকথনই হয় ইনস্টাগ্রামে৷ সেখানেই একটি ছবি পাঠিয়েছিলেন সাগ্নিক৷ যেখানে দেখা যাচ্ছে ঐন্দ্রিলার গলায় গয়না পরিয়ে তিনি দেখে নিচ্ছেন কেমন লাগছে৷ এটিই পল্লবীকে উপহার দেন তিনি৷

    আরও পড়ুন : জুনের শুরুতেই মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা, রেজাল্ট জানতে চোখ রাখুন এই ওয়েবসাইটগুলিতে...

    সায়ক জানান, ‘‘বর্ষপূর্তির আয়োজন দেখে আমি চমকে গিয়েছিলাম।বাওয়ালি রাজবাড়ি ভাড়া করেছিল সাগ্নিক। এলাহি আয়োজন।  কেকের ভিতরে ছিল দামি আংটি৷’’ প্রশ্ন এসেছিল সায়কের মনে৷ কোথা থেকে আসছে এত টাকা? কিন্তু পল্লবী যেহেতু খুবই ভাল বন্ধু, তাই তিনি আর জিজ্ঞাসা করেননি, এত টাকা কোথা থেকে আসছে।

    পল্লবীর জন্য গয়না কিনতে যাওয়ার সময় সায়ককেই সঙ্গে নিতে চেয়েছিলেন সাগ্নিক। কিন্তু সায়কের সময় হয়নি। ফলে, সাগ্নিক সঙ্গে নেন ঐন্দ্রিলাকে৷ হাওড়া থেকে সাগ্নিকের গাড়িতেই আসেন ঐন্দ্রিলা৷ ঐন্দ্রিলার কথা অনুযায়ী সাগ্নিকের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ ছিল না৷ ফলে অসংগতি ধরা পড়ছে আবারও৷ দুটি ঘটনা কোনওভাবেই মেলানো যাচ্ছে না৷

    মেয়ের মৃত্যুর পর পল্লবীর পরিবারের পক্ষ থেকে সাগ্নিকের বিরুদ্ধে গড়ফা থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়। দফায় দফায় সাগ্নিককে জিজ্ঞাসাবাদের পর, গ্রেফতার করে পুলিশ৷

    আরও পড়ুন : দুর্নীতি মামলার জের! লালুপ্রসাদ যাদবের ১৬ ঠিকানায় একযোগে CBI তল্লাশি!

    পল্লবীর ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে এখনও জ্বলজ্বল করছে প্রাণশক্তি ভরপুর এক জলজ্যান্ত মেয়ের বেঁচে থাকার মুহূর্তগুলি। যার বেশিরভাগেই তাঁর সঙ্গী সাগ্নিক। অগুণতি প্রেমের মুহূর্ত লেন্সবন্দি হয়েছে তাঁকে নিয়ে। সেসবই আজ মাত্র পঁচিশ বছর বয়সি এই ঝকঝকে প্রতিভাবান টেলি অভিনেত্রী পল্লবী দে-র মৃত্যুতে ঘোরাফেরা করছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে৷  পল্লবী অভিনেত্রী হলেও সাগ্নিক আগাগোড়াই ইন্ডাস্ট্রির বাইরে। তিনি কী করতেন, তা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি। তবে তাঁর বাবা সুভাষ চক্রবর্তী জানান, ‘অনলাইন’-এ কাজ করেন ছেলে। দেখা যাচ্ছে সাগ্নিকের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলটি রয়েছে ‘প্রাইভেট’ করা। অর্থাৎ তাঁর অনুমতি ছাড়া সেই প্রোফাইলের ছবি ভিডিয়ো দেখা যাবে না। তবে কী করে সাগ্নিকের এত বিলাসবহুল চালচলন ছিল সেই প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে৷

    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: Pallavi dey

    পরবর্তী খবর