মঞ্চে এবার ফেলুদার ভূমিকায় ইন্দ্রাশিস রায়

মঞ্চে এবার ফেলুদার ভূমিকায় ইন্দ্রাশিস রায়
নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করে দিয়েছে অঙ্কুর। ইন্দ্রাশিস ও অঙ্কুরের সদস্যরা আবার দেখা করেন সন্দীপ রায়ের সঙ্গে। নাটকের চিত্রনাট্য ও নানা খুঁটিনাটি নিয়ে আলোচনা হয়।

নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করে দিয়েছে অঙ্কুর। ইন্দ্রাশিস ও অঙ্কুরের সদস্যরা আবার দেখা করেন সন্দীপ রায়ের সঙ্গে। নাটকের চিত্রনাট্য ও নানা খুঁটিনাটি নিয়ে আলোচনা হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: বাঙালি আমোদ প্রিয়। বাঙালির রুচি বোধ অসামান্য। তবে প্রত্যেক বাঙালিই রহস্য পছন্দ করেন। পছন্দের গোয়েন্দা, রহস্যের জোট খুললে, কেমন যেন 'আমি' জিতে গিয়েছি এটা মনে করেন। বার বার বাঙালিয়ানায় ভরপুর গোয়েন্দাদের গল্প পড়তে ভালবাসেন। তাঁদের পর্দায় দেখতে ভালবাসেন। ফেলুদা- ব্যোমকেশের সঙ্গে কারও পরিচয় বইয়ের পাতায় কারও পর্দায়। নানা ভাবে, নানা আকারে আমরা দেখেছি এই দুই চরিত্র।সম্প্রতি সিরিজের আকারে সৃজিত মুখোপাধ্যায় ফেলুদা বানিয়েছেন। টোটা রায় চৌধুরী ফেলুদা হিসেবে বেশ জনপ্রিয়। এবার, এক অন্য নায়ক হয়ে উঠতে চলেছেন ফেলুদা। টেলিভিশন, সিনেমা, ওয়েব কোনোটাই নয়। এবার মঞ্চে হতে চলেছে ফেলুদা। নাম ভূমিকায় ইন্দ্রাশিস রায়।


সত্যজিৎ রায়ের জন্ম শতবার্ষিকীতে অঙ্কুর নামে একটি নাটকের দল মঞ্চে ফেলুদা করার পরিকল্পনা করেন। সন্দীপ রায়ের কাছ থেকে অনুমতিও নেওয়া হয়। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়ায় করোনা। কোনও নতুন প্রযোজনা সম্ভব ছিল না করোনা পরিস্থিতিতে। স্থগিত রাখতে হয় ফেলুদা নিয়ে নাটকের কাজও।মঞ্চে ফেলুদা হতে পেরে বেজায় খুশি ইন্দ্রাশিস। তাঁর কথায়, 'আমার কাছে যখন প্রস্তাবটা আসে, প্রথমে প্রচণ্ড নার্ভাস হয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু এরকম একটা চরিত্র, কে করতে চাইবে না বলুন। তারপর হ্যাঁ বলে দিই। কিন্তু করোনার জন্য পিছিয়ে যায় এই নাটক।'করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আবার নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করে দিয়েছে অঙ্কুর। ইন্দ্রাশিস ও অঙ্কুরের সদস্যরা আবার দেখা করেন সন্দীপ রায়ের সঙ্গে। নাটকের চিত্রনাট্য ও নানা খুঁটিনাটি নিয়ে আলোচনা হয়।ইন্দ্রাশিসকে ফেলুদা হিসেবে কেমন মানায়, সেই নিয়ে একটা কৌতূহল থেকেই যায়। ফেলুদার কোন গল্পটা মঞ্চস্থ করা হয়ে? সেখানে লালমোহন বাবু, তপসে এই চরিত্র গুলো কারা করবেন? এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর মিলবে,  মে মাসের ২ তারিখ। নাটকটি মঞ্চস্থ হচ্ছে এই তারিখে। মঞ্চে ফেলুদা কেমন হবে সেই নিয়ে যে প্রবল আগ্রহ তৈরি হবে তা বলাই বাহুল্য।

Published by:Pooja Basu
First published: