Home /News /entertainment /
Godhuli Alap: বিয়ের আসরে পুলিশ! 'নাবালিকা' নোলককে বিয়ের অপরাধে অরিন্দমের হাজতবাস নিয়ে শোরগোল

Godhuli Alap: বিয়ের আসরে পুলিশ! 'নাবালিকা' নোলককে বিয়ের অপরাধে অরিন্দমের হাজতবাস নিয়ে শোরগোল

Godhuli Alap: আবারও আলাদা হয়ে গেল নোলক-অরিন্দম? প্রেম নিবেদনের আগেই দূরে সরে যাবে দু'জন? হেরে যাবে 'গোধূলি আলাপ'-এর অসমবয়সি প্রেম?

  • Share this:

    #কলকাতা: শেষ মেশ ধুমধাম করে বিয়ের মণ্ডপ সেজে উঠল অরিন্দম রায় এবং নোলকের জন্য। হয়তো এ বার একে অপরের প্রতি প্রেম নিবেদনও ফেলবে তারা। সত্যিকারের সংসার পাতার আভাস। সবই তো ঠিকঠাক চলছিল। দর্শকমনেও আশার আলো। হঠাৎই সব ভেস্তে গেল রোহিনীর জন্য। বিয়ের সাজে সে-ও চলে আসে অরিন্দম-নোলকের মাঝে! শুভদৃষ্টির পর মালাবদলের মাঝে বাধা দিয়ে খলনায়িকা এসে বলে, ''অ্যাডভোকেট অরিন্দম রায় এক জন নাবালিকাকে বিয়ে করছে?'' চমকে যায় নোলকের স্বামী। রোহিনী বলে, ''এই বার্থ সার্টিফিকেট তার প্রমাণ।'' কিন্তু নোলকের চিৎকার করে বলে ওঠে, ''আমার বিয়ের বয়স হয়ে গেছে।'' ইতিমধ্যে রায়বাড়িতে পুলিশের প্রবেশ। আইনজীবীকে গ্রেফতার করার জন্য প্রস্তুত তারা। নিজের স্বামীকে আটকে দিয়ে নোলক বলে, ''এই অভিযোগ মিথ্যে উকিলবাবু!'' আইনজীবীর কথায়, ''তোমারল কথা যদি সত্যি হয় নোলক, আদালতে আমি সেটা প্রমাণ করব।'' এ দিকে তাদের বিয়ে ভেঙে দিতে পেরে বধূবেশে রোহিনী যেন স্বস্তির নিশ্বাস ফেলল।

    তবে কি আবারও আলাদা হয়ে গেল নোলক-অরিন্দম? প্রেম নিবেদনের আগেই দূরে সরে যাবে দু'জন? হেরে যাবে 'গোধূলি আলাপ'-এর অসমবয়সি প্রেম?

    অরিন্দমের মা আবার করে নিজের ছেলের বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নোলক বারবার দেখেছে যে, আইনজীবী অরিন্দম রায় নোলককে তার স্ত্রী হিসেবে পরিচয় দিতে দ্বিধা বোধ করে। তাই সে নিজেই অরিন্দমের থেকে দূরে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। স্থির করেছিল, বিয়ের আগেই সে এ বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে যাবে। কিন্তু সে কথা কাউকে জানাতে পারছে না নোলক।

    আরও পড়ুন: 'গোধূলি আলাপ' দেখে চোখে জল দর্শকের, কৌশিক-সমুর প্রেম দেখতে চেয়ে বিদ্রোহ!

    অন্য দিকে অরিন্দম ভেবেছিল, নোলক তার সঙ্গে থাকতে চায় না। মনে মনে নিজের স্ত্রীকে ভালবেসে ফেললেও তাকে নিজের কাছ থেকে দূরে সরিয়ে দেবে বলে স্থির করেছিল রায়বাড়ির বড় ছেলে। তাই ধুমধাম করে বিয়ের আগেই তাকে অন্য কোথাও লুকিয়ে রেখে পরে নিজে হাতে নোলককে নতুন জীবনসঙ্গী খুঁজে দেওয়া পরিকল্পনা করেছিল। অরিন্দম এমন কারও হাতে নোলককে তুলে দিতে চেয়েছিল, যার সঙ্গে তার বয়সের ফারাক খুব বেশি হবে না।

    আরও পড়ুন: ফুলঝুরির ফুলশয্যা, কিন্তু একী! লালনের বউ হিসেবে হাজির সাবিত্রী চট্টোপাধ্য়ায়

    কিন্তু নোলক সে দিন রাতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেলেও ভুল করে মত্তদের আড্ডায় পৌঁছে যায়। তাকে ধাওয়া করতে থাকে সেই গুন্ডারা। আচমকা নিজের স্ত্রীকে উদ্ধার করতে সেখানে হাজির হয় অরিন্দম। নিয়ে আসে নিজের বাড়িতেই। তার পরেই তাদের আশীর্বাদের তোড়জোড় শুরু হয়।

    একই মণ্ডপে আদি এবং রোহিনীর বিয়ের প্রস্তুতি চলছে। সেখানেই রোহিনীর বাধ সাধা।

    Published by:Teesta Barman
    First published:

    Tags: Bengali Serial

    পরবর্তী খবর