Home /News /entertainment /
Aparajito: টিভি অভিনেতা নিয়ে মিথ গুঁড়িয়ে দিয়েছো! জিতুর প্রশংসায় কী লিখলেন তথাগত

Aparajito: টিভি অভিনেতা নিয়ে মিথ গুঁড়িয়ে দিয়েছো! জিতুর প্রশংসায় কী লিখলেন তথাগত

টিভি অভিনেতা নিয়ে মিথ গুঁড়িয়ে দিয়েছো! জিতুর প্রশংসায় কী লিখলেন তথাগত

টিভি অভিনেতা নিয়ে মিথ গুঁড়িয়ে দিয়েছো! জিতুর প্রশংসায় কী লিখলেন তথাগত

Aparajito: ছবিতে সত্য়জিৎ রায়ের চরিত্রে অভিনয় করে সাড়া ফেলেছেন জিতু কামাল। জিতুর প্রশংসাও করলেন তথাগত।

  • Share this:

    #কলকাতা: অনীক দত্ত পরিচালিত অপরাজিত ছবিটি দেখার আগে ফেসবুকে একটি লম্বা পোস্ট করেছিলেন পরিচালক তথা অভিনেতা তথাগত মুখোপাধ্যায়। ছবিটি দেখতে সকলকে অনুরোধ করেছিলেন তিনি। এবার ছবিটি দেখার পরে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানালেন। ছবিতে সত্য়জিৎ রায়ের চরিত্রে অভিনয় করে সাড়া ফেলেছেন জিতু কামাল। জিতুর প্রশংসাও করলেন তথাগত।

    তথাগত লিখছেন, "গত পরশু "অপরাজিত রায়" এর চরিত্রে তোমার অভিনয় দেখার পর একজন বাঙালি অভিনেতা হিসেবে সত্যিই গর্ববোধ করছি। এক রকম হ্যাংওভারেও আছি বলতে পারো। ঘোর কাটিয়ে আজ লিখছি,বাংলা টেলিভিশনে সাপ্লাই আর ডিমান্ডের তাগিদে ধর তক্তা মার পেরেক পরিস্থিতিতে তাড়াহুড়োর অভিনয় বিচার করে যে কোনও অভিনেতারই যে মূল্যায়ন সম্ভব নয় তা তুমি তোমার পারফরমেন্স দিয়ে শুধু প্রমাণই করনি। প্রমাণ করেছ অভিনেতার সেরা ক্ষমতা প্রমাণের জন্য সম দক্ষতার মাঠও প্রয়োজন। নিশ্চিত ভাবে পরিচালক,চিত্রনাট্য, ক্যামেরা,আলো প্রক্ষেপণ, এডিটিং,কস্টিউম ডিজাইন,মেকআপ তোমাকে সাহায্য করেছে অপরাজিত রায় হয়ে উঠতে। কিন্তু একজন নিছক সাধারণ উৎসাহী অভিনেতা হিসেবে আমি সেসব পেরিয়ে দেখতে পাচ্ছিলাম তোমার চরিত্রটার মেধা, পড়াশুনা সর্ম্পকে স্পষ্ট ধারনা, চরিত্রটার দৈনন্দিন যাপন সর্ম্পকে যথেষ্ট কল্পনার অভ্যাস আর চরিত্রটার বিশ্বাসের সংযম। (যে সংযম হয়তো আসল মানুষটার জীবন অভ্যাস ও সিনেমাতে ওতোপ্রতো ভাবে জড়িয়ে ছিল।)

    জিতুর প্রশংসা করতে গিয়ে তথাগত লিখছেন, "অর্থাৎ তোমার চরিত্রটার মনস্তত্বটার ওপর একটা প্রবল দখল, যেখানে তোমার বডি ল্যাংগোয়েজ এতটাই বিশ্বাসযোগ্য হয়ে ওঠে যে আন্তর্জাতিক মানের যে কোনও অভিনেতার ভাল অভিনয়ের সঙ্গে তা তুলনীয় হয়ে ওঠে ক্রমশ। এ সিনেমাতে তোমার অভিনয় বাস্তবিক আন্তর্জাতিক মানের, আমার সচেতন দশাতে বাংলা সিনেমাতে এই মানের নুয়ান্সড পারফরমেন্স কবে দেখেছি মনে করতে পারছি না। সিনেমাটি আমি আরও বার তিনেক দেখতে পারি শুধু মাত্র তোমার অভিনয়ের ডিটেলিং দেখার জন্য। আমি অপরাজিত রায়কে যদি নিছক কাল্পনিক চরিত্র হিসেবে দেখি তাহলেও চরিত্রটি একই রকম শক্তিশালী ও বিশ্বাসযোগ্য।(আমি অবশ্য দেখার সময় সেভাবেই দেখার চেষ্টা করেছি,কোনো ছায়া ছাড়াই)। আবার বলব জিতু অভিনেতা হিসেবে তুমি নিছক স্বার্থক হওনি, টেলিভিশনের অভিনেতা হিসেবে যে খারাপ ভালর ট্যাগ লাগিয়ে দেওয়ার, সিনেমা অভিনেতা, টিভি অভিনেতার যে পলিটিক্স চলে প্রতিনিয়ত সেই মিথ তুমি গুঁড়িয়ে চুরমার করে দিয়েছ। তোমার অভিনেতা জীবনে এর পরে অভিনীত চরিত্রগুলোতে একই রকম বিশ্বাসযোগ্যতা আর কল্পনা থাকবে এটাই আমার প্রত্যাশা।"

    অনীক দত্ত সম্পর্কে তথাগত লিখেছেন, "অনীক দত্তদা এসবই আপনার দুর্দান্ত সিদ্ধান্তের ফসল। আপনার দূরদর্শিতা এখানেই প্রমানিত যে আপনি একজন প্রথিত যশা অভিনেতাকে মূল চরিত্র থেকে সরিয়ে জিতুকে নির্বাচন করেছিলেন। সিনেমার ক্ষেত্রে বিষয় নির্বাচন এবং তার যথোপযুক্ত প্রয়োগে অপেক্ষাকৃত শুধু এবং শুধুমাত্র নতুন মুখ নিয়ে যে হাউজফুলের বোর্ড ঝোলানো যায় তা আবার আপনি প্রমাণ করলেন। বাজেট এবং সে সংক্রান্ত ঝুঁকি যে কোনও ভাবেই স্টার নামক ধারনার আর ধার ধারে না অপরাজিত তার প্রকৃষ্ট উদারহন হয়ে রইল। সত্যজিৎ রায়ের পথের পাঁচালীর দৃশ্য পুননির্মাণে আপনি এবং আপনার টিমের প্রত্যেকে ডিওপি, ডিজাইনার,এডিটর অভূতপূর্ব সাফল্য লাভ করেছেন।

    আরও পড়ুন- মনে হচ্ছে গলার কাছে কিছু আটকে! 'অপরাজিত' দেখে কেমন উপলব্ধি, বললেন গৌরব

    প্রসঙ্গত, এই ছবিতে উঠে এসেছে কিংবদন্তি পরিচালকের পথের পাঁচালী নির্মাণের নেপথ্যের কাহিনি। ছবিটি তৈরি সম্পূর্ণ সাদা কালোয়। বিজয়া রায়ের চরিত্রে দেখা গিয়েছে সায়নী ঘোষকে।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published:

    Tags: Aparajito

    পরবর্তী খবর