corona virus btn
corona virus btn
Loading

শর্বরীদি আমাদের মধ্যে থেকে যাবেন তাঁর সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে: প্রসেনজিৎ

শর্বরীদি আমাদের মধ্যে থেকে যাবেন তাঁর সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে: প্রসেনজিৎ
Photo Courtesy: Facebook

বৃহস্পতিবার রাত ১১-৩০ নাগাদ বাথরুম থেকে তাঁর মৃত দেহ উদ্ধার হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: শর্বরী দত্তের (Sharbari Dutta) ডিজাইন করা পোশাকে বহুবার দেখা গিয়েছে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে৷ শর্বরীদি খুব ভাল ভালে বুঝতেন আমার পছন্দ, তাই একবার বলে দিলেই মনের মতো করে তৈরি করে দিতেন আমার জন্য পোশাক৷ প্রয়াত ডিজাইনার শর্বরী দত্তের মৃত্যুতে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে জানান প্রসেনজিত৷ তিনি বলেন যে পুরুষদের কথা পোশাক তৈরির সর্বপ্রথম শর্বরী দত্তই চালু করেন বাংলায়৷ এরপর অনেক ডিজাইনার এলেও নিজের আলাদা জায়গা তৈরি করে গিয়েছেন শর্বরী৷ তাঁর প্রয়াণে গভীরভাবে শোকাহত অভিনেতা৷

স্মৃতির সরণী বেয়ে উঠে আসে পুরনো দিনের অনেক কথা৷ ২০ থেকে ২২ বছর আগে শর্বরীদির পোশাকে আমি মডেলিং করেছিলাম৷ চোখের বালিতে অভিনয় করার আগে৷ সেই সময় স্টার বা সেলেব্রিটিরা মডেলিং করত না৷ তবে শর্বরীদির সঙ্গে আমার সেই কাজ বেশ সাড়া ফেলেছিল৷ বলছেন প্রসেনজিৎ৷ তাঁর বহুদিনের পরিচিত এই কাছের মানুষের মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবে মর্মাহত অভিনেতা৷

শর্বরী দত্ত নেই, তবে মানুষ তাঁকে তাঁর কাজের মধ্যে দিয়ে মনে রাখবেন৷ বলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়৷ শর্বরীদি বাংলার একজন কিংবদন্তী, যিনি তাঁর সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে সকলের কাছে বেঁচে থাকবেন৷ বলেন অভিনেতা৷ তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করেছেন প্রসেনজিৎ৷

আরও পড়ুন শর্বরীদি আমার বিয়ে ও বৌভাতে সঞ্জয়ের পাঞ্জাবি ডিজাইন করেন, ওঁর মৃত্যুতে মর্মাহত: ঋতুপর্ণা

বৃহস্পতিবার রাত ১১-৩০ নাগাদ বাথরুম থেকে তাঁর মৃত দেহ উদ্ধার হয়। পরিবার সূত্রে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় কড়েয়া থানার পুলিশ। পুলিশের গাড়িতেই আসেন পারিবারিক বন্ধু অর্থপেডিক সার্জেন অমল ভট্টাচার্য্য।

পুলিশের অনুমতি নিয়ে দেহ ঘরে আনা হয়। রাত ২-২০ নাগাদ কড়েয়া থানার ওসি আসেন। ৩টে নাগাদ আসেন লালবাজারের হোমিসাইড শাখার আধিকারিকরা। ভোর ৪ টে নাগাদ দেহ ময়না তদন্তের জন্য এন আর এস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুনবাথরুমের শিঁড়িতে জমাট রক্ত, বেডরুমের কার্পেটে শর্বরীর দেহ ছিল রাখা, পুলিশের বয়ানে...

মৃত্যুর খবর পেয়ে বিখ্যাত ডিজাইনারের ব্রড স্ট্রিটের বাড়িতে যায় কড়েয়া থানা ও লাল বাজারের পুলিশ৷ তখন শর্বরী দত্তের দেহ রাখা ছিল তাঁর বেডরুমের কার্পেটে৷ তাঁর শৌচাগারের প্রবেশ পথটি ছিল একটি নীচু৷ একটি সিঁড়ির ধাপ নেমে যেতে হত৷ সেখানেই সম্ভবত তিনি পিছলে পড়েন৷

Debobpriyo Dutta Majumdar

Published by: Pooja Basu
First published: September 18, 2020, 4:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर