corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা নিয়ে সচেতনতায় অন্য ভাবনায় জয়জিৎ, পাশে  অভিনেতা, ক্রিকেটার, ফুটবলাররা

করোনা নিয়ে সচেতনতায় অন্য ভাবনায় জয়জিৎ, পাশে  অভিনেতা, ক্রিকেটার, ফুটবলাররা

'হ্যাশট্যাগ হিউম্যানিটি' ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ক্রিকেটার এবং ফুটবলারদেরও। লকডাউনের তৃতীয় পর্যায় একেবারে শেষের দিকে, এতদিন পরে কেন এই উদ্যোগ সেই প্রশ্নে জয়জিৎ জানিয়েছেন ' আমি একটু অন্যভাবে ভেবেছি।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা নিয়ে সচেতনতার বার্তা এবার অভিনেতা জয়জিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মূল ভাবনা তাঁর হলেও তিনি পাশে পেয়েছেন টেলি জগতে তাঁর চেনা বন্ধু, অনুজদের।  'হ্যাশট্যাগ হিউম্যানিটি' ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ক্রিকেটার এবং ফুটবলারদেরও। লকডাউনের তৃতীয় পর্যায় একেবারে শেষের দিকে, এতদিন পরে কেন এই উদ্যোগ সেই প্রশ্নে জয়জিৎ জানিয়েছেন ' আমি একটু অন্যভাবে ভেবেছি। এই  সময়টা আমার মতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আমাকে জড় পদার্থগুলো ভাবিয়েছে। আমার মনে হয়েছে তাঁরাও বুঝতে পারছে জরুরী কারণ ছাড়া ঘর থেকে বেরোনো বা স্বাস্থ্য বিধি না মেনে , কোনও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার শর্ত না মেনে কিছুই করা উচিত নয়। তাই তাঁরা কিছুতেই বেরোতে চাইছে না , তাঁরা বাঁচাতে চায় তাদের মালিকদের। আসলে এই সময়টায় আমরা উতলা হয়ে পড়ছি ।  মানুষ বিরক্ত হয়ে পড়েছে। কিন্তু আমাদের আরো সচেতন থাকতে হবে , এটা ফাইনাল স্টেজ, এই সময় সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি হওয়ার আশঙ্কা,তাই সচেতন না হলে এতদিনের সব প্রচেষ্টা বৃথা ।'

ভিডিওটিতে সচেতনতার বার্তা দিয়েছেন অভিনেতা বিশ্বনাথ বসু, চাঁদনি সাহা, সন্দীপ্তা সেন, ভাবনা বন্দ্যোপাধ্যায়,গৌরব রায়চৌধুরী ও  ঊষসী রায়। এই উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আনন্দিত প্রত্যেকেই। ভিডিওটিতে রয়েছেন ক্রিকেটার রণদেব বসু, ফুটবলার মেহতাব হোসেন ও শিলটন পালও। শিলটন জানিয়েছেন '  জয়জিৎদার এই  উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছি। আমি মনে করি এভাবে বহু মানুষকে সচেতন করা সম্ভব হবে। ফুটবল তো মিস করছি। নিজেকে ফিট রাখতে ফ্ল্যাটের ছাদে এক্সারসাইজ করছি। তাই বলতে চাই, যার যতই প্রয়োজনীয়তা থাকুক, ঘরে থেকে সেসব পূরণ করার উপায় বার  করুন। '  ভিডিওটির শেষে দেখা যাবে জয়জিতের ছেলে যশোজিতকেও। সম্পাদনা সহ পোস্ট প্রোডাকশনের পুরোটাই সামলেছেন মহম্মদ কালাম।

বিনোদন জগতের মানুষদের নিয়ে এই সময়েও সমালোচনা অব্যাহত, সে প্রসঙ্গেও চাঁচাছোলা জয়জিৎ ' আমরা বিনোদন জগতের মানুষ। আমাদের বিনোদন দেওয়াই কাজ। বিপদের দিনেও তাঁদের মুখে হাসি ফোটালে ক্ষতির কিছু তো নেই। আমাদের ইন্ডাস্ট্রিও বন্ধ দু' মাস ধরে। আমাদের জগৎটা শুধুই রঙিন এমন নয়। আমরাও খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। প্রতিষ্ঠিতদের বাইরেও তো অনেকে আছে যারা প্রতিদিনের কাজের পারিশ্রমিকের ওপর নির্ভর করে থাকেন। আর প্রত্যেকেই তো মানুষ, প্রত্যেকের যেমন আয় তেমন ব্যায় আছে। আমরাও দিন আনি দিন খাই মানুষের মধ্যে পড়ি ।  বেশি সংখ্যক অভিনেতা অভিনেত্রীদের অবস্থা খারাপ। '

আসলে পারফর্মারদের কাজটাই পারফর্ম করা। যে কোনও সময়,যে কোনও ভাবে। আমরা প্রত্যেকেই কোথাও  না কোথাও জীবনের মঞ্চে 'মেরা নাম জোকার' এর রাজু।  তাই নিজের বিয়ের দিন হোক বা ছেলে জন্মানোর দিন বা স্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি থাকা অবস্থায় জয়জিৎ কাজ করেছেন হাসিমুখে। তিনিও তো মনে করেন 'শো মাস্ট গো অন '

Published by: Akash Misra
First published: May 14, 2020, 5:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर