Home /News /education-career /
Cheating Mafia: দশম ও দ্বাদশের পরীক্ষা চলাকালীন সমস্ত প্রাইভেট শিক্ষককে থাকতে হবে থানায়! চিটিং মাফিয়াদের রুখতে অভিনব নির্দেশিকা

Cheating Mafia: দশম ও দ্বাদশের পরীক্ষা চলাকালীন সমস্ত প্রাইভেট শিক্ষককে থাকতে হবে থানায়! চিটিং মাফিয়াদের রুখতে অভিনব নির্দেশিকা

পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলে পরীক্ষা, সেই সময়টা এই শিক্ষকরা থানাতে বসে থাকবেন। ছবি- প্রতীকী

পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলে পরীক্ষা, সেই সময়টা এই শিক্ষকরা থানাতে বসে থাকবেন। ছবি- প্রতীকী

Cheating in Exam: বিভিন্ন সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা সত্ত্বেও ‘চিটিং মাফিয়া’দের (Cheating Mafia) হাত থেকে বাঁচতে পারেনি জীবনের বড় দুই স্কুল পরীক্ষা।

  • Share this:

    #মধ্যপ্রদেশ: দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা চলাকালীন সমস্ত প্রাইভেট (Private Tutors) শিক্ষকদের থাকতে হবে থানায়! এমন অদ্ভুত নির্দেশিকা জারি করেছেন মধ্যপ্রদেশের ভিন্ড এবং মোরেনার জেলা শিক্ষা আধিকারিক। মধ্যপ্রদেশে (MP Board of secondary Education) দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা শুরু হয়েছে ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে। পরীক্ষা চলবে ১২ মার্চ অবধি। দীর্ঘকাল ধরেই পরীক্ষায় চিটিং (Cheating Mafia) করার স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে মোরেনা এবং ভিন্ড। বারেবারেই পরীক্ষায় টোকাটুকি রুখতে নানান পদক্ষেপ করেছে মধ্যপ্রদেশের মধ্যশিক্ষা পর্ষদ (MPBSE)। বিভিন্ন সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা সত্ত্বেও ‘চিটিং মাফিয়া’দের (Cheating Mafia) হাত থেকে বাঁচতে পারেনি জীবনের বড় দুই স্কুল পরীক্ষা।

    আরও পড়ুন- ভারতে ঢালাও নিয়োগ মাইক্রোসফটে! জেনে নিন যোগ্যতা ও আবেদনের বিশদ

    পরীক্ষা চলার সময়ে সমস্ত প্রাইভেট শিক্ষকদের থানায় পুলিশের নজরদারিতে (Cheating Mafia) থাকার নির্দেশিকাটি জনসমক্ষে আসতেই তা নিয়ে ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে। ভিন্ডের জেলা শিক্ষা আধিকারিক ব্লক শিক্ষা আধিকারিককে একটি চিঠিও লিখেছেন, যেখানে তাঁকে সমস্ত প্রাইভেট শিক্ষকদের একটি তালিকা প্রস্তুত করে প্রকাশ করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। ব্লক শিক্ষা আধিকারিককে নির্দেশও দেওয়া হয়েছে, যাতে পরীক্ষা চলাকালীন এই সমস্ত প্রাইভেট শিক্ষক থানাতে হাজির থাকেন।

    সূত্রের খবর, ওই তালিকায় প্রায় ১৫০ জন প্রাইভেট শিক্ষকের (Cheating Mafia) নাম রয়েছে যাদেরকে পড়ুয়াদের পরীক্ষায় টোকাটুকিতে সাহায্য করায় সন্দেহ করা হচ্ছে। ২০১৬ সাল থেকে ঘটে চলা ব্যাপক চিটিংয়ের ঘটনাগুলি নিয়ে সমস্ত দিক খতিয়ে দেখেই এই তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয় একটি সংবাধমাধ্যমকে ডিইও হরিভুবন সিং তোমর জানিয়েছেন, এই প্রাইভেট শিক্ষকরা যাতে পরীক্ষায় পড়ুয়াদের চিটিং করতে সাহায্য না করতে পারেন তা ঠেকাতেই এমন ব্যবস্থা। পাঁচ ঘণ্টা ধরে চলে পরীক্ষা, সেই সময়টা এই শিক্ষকরা থানাতে (Preventive Detention) বসে থাকবেন। ভিন্ড জেলা পুলিশের সুপার শৈলেন্দ্র সিং চৌহান জানিয়েছেন, পড়ুয়াদের চিটিং করানো থেকে প্রাইভেট শিক্ষকদের ঠেকাতেই স্কুল শিক্ষা দফতরের সঙ্গে মিলেই এমন পরিকল্পনা করা হয়েছে।

    আরও পড়ুন- এই সপ্তাহেই প্রকাশ UGC NET ফলাফল? জানুন, কোথায় কীভাবে দেখবেন নিজের ফল

    বৃহস্পতিবার একটি ভিডিও ভাইরাল হয় যেখানে কিছু প্রাইভেট শিক্ষকদের থানায় বসে থাকতে দেখা যায়। সূত্রের খবর, কিছু শিক্ষককে ডিস্ট্রিক্ট ইনস্টিটিউট অব এডুকেশন অ্যান্ড ট্রেনিং-য়েও বসিয়ে রাখা হয় পরীক্ষা চলাকালীন। বিগত কয়েক বছর ধরেই মধ্যশিক্ষা পর্ষদ এবং মোরেনা ও ভিন্ডের স্থানীয় প্রশাসনের কাছে স্বচ্ছ এবং সুন্দরভাবে পরীক্ষার আয়োজন করাটা রীতিমতো চ্যালেঞ্জিং হয়ে উঠেছিল। শুধু পরীক্ষায় টোকাটুকি নয়, অপরাধ এবং অবৈধ খনির জন্যও কুখ্যাত এই দুই জেলা।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Board Examinations, Cheating

    পরবর্তী খবর