হোম /খবর /বিদেশ /
'বিপজ্জনক সময়!' ১০০ দেশে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সন্ধান মেলায় উদ্বিগ্ন WHO প্রধান

WHO On Delta : 'বিপজ্জনক সময়!' ১০০ দেশে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সন্ধান মেলায় উদ্বিগ্ন WHO প্রধান

সতর্ক করলেন হু-প্রধান

সতর্ক করলেন হু-প্রধান

ভারতে জন্ম নেওয়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট (Delta varient) এখনও নিজের ভোলবদলে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠছে। যা কোভিড-১৯-এর (Covid-19) ভ্যারিয়েন্টগুলির মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভয়ংকর। সতর্ক করলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) প্রধান ডা. টেড্রোস আধানম।

আরও পড়ুন...
  • Last Updated :
  • Share this:

#ওয়াশিংটন : অতিমারীর (Pandemic) বর্তমান সময়ই সবচেয়ে বেশি ভয়ংকর বলে এবার দাবি করলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) প্রধান ডা. টেড্রোস আধানম। তাঁর কথায়, ভারতে জন্ম নেওয়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট (Delta varient) এখনও নিজের ভোলবদলে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠছে। যা কোভিড-১৯-এর ভ্যারিয়েন্টগুলির মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভয়ংকর। আর যেভাবে বহু দেশে এই ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ছে, তাতে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন WHO কর্তা।

প্রায় ১০০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার নয়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। যা আরও বেশি প্রাণঘাতী বলেই দাবি করেছেন বিশেষজ্ঞরা। আর তাই প্রতিটি দেশকেই টিকাকরণে জোর দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে WHO। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানের কথায়, “আগামী বছর এই সময়ের মধ্যে প্রত্যেকটি দেশের অন্তত ৭০ শতাংশ মানুষকে ভ্যাকিসন দেওয়া নিশ্চিত করতে হবে। বিশ্বের সমস্ত দেশের প্রধানদেরই এনিয়ে আর্জি জানানো হয়েছে।” এই লক্ষ্যে পৌঁছনো সম্ভব না হলে সমস্যা কাটিয়ে ওঠা আরও কঠিন হয়ে উঠবে বলেই ইঙ্গিত দিয়েছেন WHO প্রধান।

টেড্রস আধানম ঘেব্রেসাস বলেছেন, কোনও দেশই বিপদের বাইরে যায়নি। কেননা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টটি বিপজ্জনক এবং ক্রমাগত রূপ বদলাচ্ছে। যার জন্য ক্রমাগত মূল্যয়নের পাশাপাশি জনস্বাস্থ্যের দিকগুলিকেও সাবধনতার সঙ্গে সমন্বয়ের প্রয়োজন। কড়া নজরদারি, পরীক্ষা, সনাক্তকরণ, আলাদা করার পাশাপাশি মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, ভিড় জায়গা এড়িয়ে যাওয়া প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরও জানান, শক্তিশালী ও পুঁজিপথি দেশগুলি করোনা ভ্যাকসিন কুক্ষিগত করার চেষ্টা করলে আখেরে লাভ কিছুই হবে না। বরং প্রতিটি দেশ সমান পরিমাণে টিকা না পেলে সকলকেই ভুগতে হবে। তাই চেষ্টা করতে হবে আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যেই সমস্ত দেশের ১০ শতাংশ নাগরিককে ভ্যাকসিন দেওয়ার। আর বছরের শেষে ৪০ শতাংশ মানুষকে টিকাকরণের আওতায় আনার। পরের বছর জুলাইয়ের মধ্যে যা নিয়ে যেতে হবে ৭০ শতাশে। সব দেশের মানুষ টিকা পেলে তবেই মহামারীর বিরুদ্ধে জয়ের পথে এগোনো সম্ভব হবে। নাহলে এই ভয়ংকর পরিস্থিতি তীব্র থেকে তীব্রতরই হতে থাকবে বলে সতর্ক করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published:

Tags: Corona Pandemic, WHO