বাজারে অমিল N95 মাস্ক, দেশি মাস্কেই করোনা ভাইরাস ঠেকাচ্ছে শহরবাসী

বাজারে অমিল N95 মাস্ক, দেশি মাস্কেই করোনা ভাইরাস ঠেকাচ্ছে শহরবাসী
photo source collected

শরীরে করোনা ভাইরাসের আক্রমণ ঠেকাতে যে মাস্ক ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা, এবার তাতেও কালোবাজারি ।

  • Share this:

#কলকাতা: শরীরে করোনা ভাইরাসের আক্রমণ ঠেকাতে যে মাস্ক ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা, এবার তাতেও কালোবাজারি ।অভিযোগ এমনটাই। সত্যিই কি হচ্ছে কালোবাজারি? তা জানতে পথে নামল পুলিশ। কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ শনিবার শহরের বিভিন্ন মেডিক্যাল স্টোরে অভিযান চালায়। মূলত n95 মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিয়ে কোনও কালোবাজারি হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখেন তারা। মেডিক্যাল স্টোরে গিয়ে তারা মূলত দেখেন কি কি ধরনের মাস্ক বিক্রি হচ্ছে, n95 মাস্ক বিক্রি হচ্ছে কিনা এবং স্টক কি রয়েছে।

বেশিরভাগ মেডিক্যাল স্টোরে গিয়ে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের অফিসারেরা দেখেন 95 মাস্ক অমিল। যা বিক্রি হচ্ছে সবই স্থানীয়ভাবে তৈরি। যাকে বলে 'দেশি'। যা একসময় ফুটপাতে বিক্রি হতো, সেই মাস্ক এবার ঠাঁই পেয়েছে নামি মেডিকেল স্টোরে। সৌজন্যে করোনা ভাইরাস। বিক্রি হচ্ছে দ্বিগুণ-তিনগুণ দামে।বিক্রেতারা বলছেন, চাহিদা ব্যাপক হারে বাড়লেও, বাজারে অমিল n95 মাস্ক। ভিন রাজ্য কিংবা বিদেশ থেকে যে মাস্ক আমদানি করা হতো তাও আসছে না। ফলে নিরুপায় হয়ে দেশি মাস্কেই কাজ চালাতে হচ্ছে শহরবাসীকে। একসময় পাইকারি বাজারে এই মাস্ক বিক্রি হত ছয় টাকা পিস। এখন চাহিদার জেরে সেগুলি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা প্রতি পিস।

কিন্তু কেন এই n95 মাস্ক এর এত আকাল? বেঙ্গল কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্তা বলেন, "যে কোম্পানিগুলো এই মাস্ক মানায় তারা সুযোগ বুঝে এখন কম পরিমাণ মাস্ক বাজারে ছাড়ছে। কৃত্তিম চাহিদা তৈরি করে দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। আমরা সব ডিলারদের বলেছি তারা যেন এই ধরনের কাজ না করে।" বৃহস্পতিবার নবান্নে করোনা সংক্রান্ত বৈঠকে শেষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেছিলেন, মাস্ক নিয়ে কালোবাজারি চলছে। তারপরেই নড়েচড়ে বসে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। শুরু হয় কালোবাজারি রুখতে কড়া পদক্ষেপ। এনফর্সমেন্ট বিশ্বজিৎ ঘোষ বলেন, "মাস্ক নিয়ে কোথাও কোনও কালোবাজারি হচ্ছে কিনা সেদিকে আমাদের নজর রয়েছে। লাগাতার এরকম অভিযান চলবে।" বাগরি মার্কেটের এক মেডিক্যাল স্টোরের মালিক বলেন, "n95 মাস্ক না মেলায় যে মাস্কগুলো বিক্রি হচ্ছে সেগুলি মূলত দেশি anti-pollution মাস্ক।কলকাতার আশেপাশেই গুলি তৈরি হয়। ভাইরাস ঠেকাতে এগুলি যথেষ্ট নয়।"

সুজয় পাল

First published: March 7, 2020, 8:46 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर