Tathagata and Chandrima : 'ঘরছাড়া কর্মীরা, পালিয়েছে K-S-A' তথাগতর নিশানায় ফের শীর্ষ নেতৃত্ব, উত্তর দিলেন চন্দ্রিমা!

তথাগত-চন্দ্রানী সৌজন্য Photo : Collected

যেই ঘটনার কথা তথাগতবাবু (Tathagata Roy) উল্লেখ করেছিলেন, সেই সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য চেয়ে দোষীদের শাস্তি দেওয়ার আশ্বাসও দেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য (Chandrima Bhattachayra)। ট্যুইটারে চলে দু-পক্ষের শান্তিপূর্ণ সৌজন্য বিনিময়ও।

  • Share this:

    #কলকাতা : নির্বাচন পরবর্তী হিংসায় ঘরছাড়া বিজেপি কর্মীরা কান্নাকাটি করছেন। অথচ তিনজন প্রথম সারির বিজেপি নেতা প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছেন। আরেকজন আবার ফোন ধরছেন না। দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে এহেন বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে বুধবার একটি ট্যুইট করেন বরিষ্ঠ বিজেপি নেতা তথাগত রায় (Tathagata Roy)। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই তৃণমূলে পক্ষ সেই ট্যুইটের জবাব দিয়ে বলা হল, রাজনৈতিক পরিচয় নির্বিশেষে সবাইকে ঘরে ফেরাতে চায় শাসকদল। যেই ঘটনার কথা তথাগতবাবু উল্লেখ করেছিলেন, সেই সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য চেয়ে দোষীদের শাস্তি দেওয়ার আশ্বাসও দেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য (Chandrima Bhattachayra)। ট্যুইটারে চলে দু-পক্ষের শান্তিপূর্ণ সৌজন্য বিনিময়ও।

    সম্প্রতি শীর্ষ নেতাদের বিঁধে প্রায়ই ট্যুইট করতে দেখা যাচ্ছে বিজেপি নেতা তথাগত রায়কে (Tathagata Roy)। বুধবার ফের এমনি একটি ট্যুইট সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তোলে। দলের কর্মীরা ঘরে ফিরতে পারছেন না বলে অভিযোগ আনেন তথাগত। এই প্রেক্ষিতেই তাঁর ট্যুইট রিট্যুইট করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য (Chandrima Bhattacharya) । সৌজন্য দেখিয়ে মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান বিজেপি নেতাও।

    উল্লেখ্য বিগত কয়েকদিন ধরেই তথাগত নিজের ট্যুইটে বিজেপি নেতাদের নিশানায় নিতে তাঁদের নামের প্রথম ইংরেজি অক্ষর ব্যবহার করছেন। এ ক্ষেত্রে ‘কে’-র অর্থ কৈলাস বিজয়বর্গীয়। ‘এস’ এবং ‘এ’-র অর্থ শিবপ্রকাশ ও অরবিন্দ মেনন। ‘ডি’ বলতে সরাসরি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেই ইঙ্গিত করতে চাইছেন তিনি।

    তথাগতর এই টুইটে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। তিনি লেখেন,''স্যর আপনাকে অনুরোধ করছি আপনি বিস্তারিত তথ্য দিন। যে দলেরই হোক না কেন আমরা যেন সকলকে তাড়াতাড়ি সুরক্ষিত বাড়ি পৌঁছতে পারি। এই ধরনের কাজে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ারও আশ্বাস দিচ্ছি।''

    চন্দ্রিমার আশ্বাস পেয়ে ধন্যবাদ জানালেন তথাগত। তাঁর কথায়,''অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। আপনার ব্যবহার প্রশংসনীয়। বলতে হবে, জয় উদারতা আনে। যদিও আমি কয়েকটা নাম আপনাকে বলতে পারি। আপনাদের পুলিস ও গোয়েন্দা বিভাগ রয়েছে। আপনি চেষ্টা করলে বহু মানুষকে ঘরে ফেরাতে পারেন।''

    পাল্টা ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি চন্দ্রিমা। তিনি ট্যুইটারে লিখেছেন, ধন্যবাদ! এই ধরনের ঘটনার মোকাবিলায় বদ্ধপরিকর তৃণমূল। আরও সজাগ থাকব আমরা। প্রয়োজন মতো ব্যবস্থা নেব।

    প্রসঙ্গত, বুধবার রাতে প্রাক্তন রাজ্যপাল একটি ট্যুইট করেন। যেখানে তিনি লেখেন, “একজন কাছের মানুষ আজ কাঁদতে কাঁদতে আমার কাছে এসেছিলেন। বললেন, এমন কয়েক হাজার ব্যক্তি যারা বিজেপির হয়ে কাজ করেছিলেন তাঁদের তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাড়িয়ে দিয়েছেন (বাড়ি থেকে)। ফিরতে হলে তাঁদের কাছে থেকে মোটা টাকা চাওয়া হচ্ছে। আমি অসহায় বোধ করছি।” ঠিক এরপরেই কয়েকজন বিজেপি নেতার নাম ইঙ্গিত করে তথাগত লেখেন, “রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত কে-এস-এ পালিয়ে গিয়েছেন। ডি ফোন ধরছেন না।”

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: