corona virus btn
corona virus btn
Loading

লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, উদ্বেগে কাটোয়ার বাসিন্দারা

লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, উদ্বেগে কাটোয়ার বাসিন্দারা

গত ২৪ ঘণ্টায় বর্ধমান শহরে নতুন করে করনো আক্রান্ত হয়েছেন ৮জন। কালনা শহরে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ জন।

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমান শহরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমলেও সেপ্টেম্বরের গোড়ায় তা চিন্তা বাড়াচ্ছে কাটোয়া শহরে। বর্ধমান শহরকে পিছনে ফেলে কাটোয়া শহরে সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় উদ্বিগ্ন সেখানকার বাসিন্দারা। গঙ্গাপাড়ের এই শহরে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই সময় বাসিন্দাদের যথাসম্ভব ঘরে থাকা প্রয়োজন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলছেন, যেভাবে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের না হওয়া উচিত। প্রয়োজনে বাইরে বের হতে হলে মাস্কে মুখ ঢেকে যাবতীয় সাবধানতা গ্রহণ করা জরুরি।

গত ২৪ ঘণ্টায় বর্ধমান শহরে নতুন করে করনো আক্রান্ত হয়েছেন ৮জন। কালনা শহরে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ জন। গুসকরা শহরে একজন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে।সেখানে কাটোয়া শহরে নতুন করে বাইশ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। তাদের মধ্যে আবার ৯জন শহরের চোদ্দ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। এই শহরের আঠারো নম্বর ওয়ার্ডেও ১০ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। এছাড়া শহরের চার নম্বর ওয়ার্ড, আট নম্বর ওয়ার্ড ও দশ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, পূর্ব বর্ধমান জেলায় এ দিন পর্যন্ত ২৭০৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ২২৪৬ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে ৪১৬ জন পুরুষ মহিলা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ দিন পর্যন্ত এই জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে ৫৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩৬ জন শহর এলাকার বাসিন্দা।

গ্রামীণ এলাকার মধ্যে বর্ধমান এক নম্বর ব্লকে তিনজন, বর্ধমান দু'নম্বর ব্লকে চারজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া কালনা এক নম্বর ব্লক, মেমারি দু'নম্বর ব্লক, মঙ্গলকোট ও রায়না এক নম্বর ব্লকে দুজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আউশগ্রাম দু'নম্বর ব্লক, ভাতার, গলসি এক নম্বর ব্লক, কাটোয়া এক নম্বর ব্লক ও কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লকে একজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

Published by: Pooja Basu
First published: September 4, 2020, 5:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर