করোনার ওষুধ মজুত করার অভিযোগ, গম্ভীরের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দিল্লি হাইকোর্টের

বিপাকে গম্ভীর৷

করোনা (Coronavirus) অতিমারির সময় সাধারণ মানুষকে ফ্যাবিফ্লু ওষুধ বিতরণ করেছিলেন গম্ভীর (Gautam Gambhir) এবং তাঁর সঙ্গীরা৷

  • Share this:

    #দিল্লি: করোনার ওষুধ মজুত করার অভিযোগে এবার প্রাক্তন ক্রিকেটার এবং বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে তদন্ত করার জন্য ড্রাগ কন্ট্রোল জেনারেল অফ ইন্ডিয়াকে নির্দেশ দিল দিল্লি হাইকোর্ট৷ করোনা অতিমারির সময় সাধারণ মানুষকে ফ্যাবিফ্লু ওষুধ বিতরণ করেছিলেন গম্ভীর এবং তাঁর সঙ্গীরা৷ এই প্রসঙ্গ উল্লেখ করেই তাঁর বিরুদ্ধে ওষুধ মজুত করার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়৷ গম্ভীরের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দিয়ে আদালতের পর্যবেক্ষণ, জাতীয় দলের প্রাক্তন এই ক্রিকেটার সৎ উদ্দেশ্যে ওষুধ বণ্টন করলেও তিনি যে পদ্ধতিতে তা করেছেন তা সঠিক নয়৷

    ইন্ডিয়া টুডে-তে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী নির্দেশ দিতে গিয়ে আদালত বলে, 'যা তদন্ত করার ড্রাগ কন্ট্রোলার তা করবে৷ উনি (গৌতম গম্ভীর) জাতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার ছিলেন৷ আমরা নিশ্চিত, উনি যা করেছেন তা সৎ উদ্দেশ্যেই করেছেন৷ কিন্তু যেভাবে তিনি এগিয়েছেন, তা অনিচ্ছাকৃত হলেও জাতীয় স্বার্থের বিরোধী৷'

    আদালতে জমা পড়া নথি অনুযায়ী, ডক্টর গর্গ নামে একজন চিকিৎসকের পরামর্শে নিজের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে ফ্যাবিফ্লু-র ২৬২৮টি স্ট্রিপ কিনেছিলেন গম্ভীর৷

    মামলার স্ট্যাটাস রিপোর্টে বলা হয়েছে, ওষুধ বিতরণের পর গম্ভীরের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হাতে থাকা ২৮৫ স্ট্রিপ ওষুধ সরকারি কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে৷ আদালত প্রশ্ন তোলে, কীভাবে একটি প্রেসক্রিপশন দেখে সরবরাহকারীরা এত বিপুল সংখ্যক ওষুধ গম্ভীরের সংস্থার হাতে দিল?

    এক সপ্তাহের মধ্যে ডিজিসিআই-কে তদন্ত করে স্ট্যাটাস রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ একই সঙ্গে গোটা এই প্রক্রিয়ায় কাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত, তাও আদালতকে জানাতে বলা হয়েছে৷

    আপ বিধায়ক প্রবীণ কুমার এবং প্রীতি তোমারের বিরুদ্ধেও ডিজিসিআই-কে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ কারণ ওই দুই বিধায়কের বিরুদ্ধে অক্সিজেন মজুত করার অভিযোগ৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: