• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • ১২ বছরের উর্দ্ধে শিশুদের কোভ্যাক্সিন টিকা প্রয়োগের ছাড়পত্র পেল ভারত বায়োটেক

১২ বছরের উর্দ্ধে শিশুদের কোভ্যাক্সিন টিকা প্রয়োগের ছাড়পত্র পেল ভারত বায়োটেক

আজ সোমবার কোভ্যাক্সিনকে ডিসিজিআই ১২ বছর বয়সের উর্দ্ধে শিশুদের উপর টিকা পরীক্ষা করার অনুমোদন দিয়েছে।

আজ সোমবার কোভ্যাক্সিনকে ডিসিজিআই ১২ বছর বয়সের উর্দ্ধে শিশুদের উপর টিকা পরীক্ষা করার অনুমোদন দিয়েছে।

আজ সোমবার কোভ্যাক্সিনকে ডিসিজিআই ১২ বছর বয়সের উর্দ্ধে শিশুদের উপর টিকা পরীক্ষা করার অনুমোদন দিয়েছে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: নতুন বছরের শুরুতেই ট্যুইট করে দারুণ একটি খবর দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পুণের সিরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড এবং হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনকে করোনার কার্যকরী টিকা হিসেবে অনুমোদন দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া।

    তবে ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন এখনও ক্লিনিকাল ট্রায়াল মোডে রয়েছে। এই সংস্থাকে জরুরি ভিত্তিতে ছাড়পত্র দেওয়া হয় কেন্দ্র থেকে। সুখবর এটাই, আজ সোমবার এই সংস্থাকে ডিসিজিআই ১২ বছর বয়সের উর্দ্ধে শিশুদের উপর এই টিকা পরীক্ষা করার অনুমোদন দিয়েছে। কোভ্যাক্সিন ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর)-এর সহযোগিতায় ভারত বায়োটেক দেশীয়ভাবে তৈরি করেছে। যেখানে অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার সহযোগিতায় সিরামের কোভিশিল্ড ১৮ বছর উর্দ্ধে  অর্থাৎ প্রাপ্তবয়স্কদের উপর পরীক্ষার জন্য অনুমোদিত হয়েছে।

    কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাক্তার হর্ষ বর্ধন রবিবার দিন স্পষ্ট করেছিলেন যে, কোভ্যাক্সিনের জন্য জরুরি অনুমোদনের বিষয়টি সিরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ডের চেয়ে আলাদা, কারণ কোভ্যাক্সিন এখনও পর্যন্ত ‘ক্লিনিকাল ট্রায়াল মোড’ অর্থাৎ পরীক্ষামূলক পর্যবেক্ষণ তৃতীয় ধাপে থাকবে। যাঁরা কোভ্যাক্সিন গ্রহণ করবেন তাঁদের নজরে রাখা হবে এবং কী ধরণের প্রতিক্রিয়া হচ্ছে সেই সব বিষয় কেন্দ্রকে রিপোর্ট দিতে হবে।

    ডিসিজিআই-এর তরফে জানানো হয়েছে, কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিন প্রতিষেধক দেওয়া হবে দু’টো ধাপে। এই ভ্যাকসিন গুলি ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে সংরক্ষণ করতে হবে। তবে কোভ্যাক্সিনক গ্রিন সিগন্যাল দেওয়ার জন্য রবিবার দিন সন্ধ্যেবেলায় একটি রাজনৈতিক বিতর্কের আয়োজন করা হয়। কারণ কোভ্যাক্সিন এখনও পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে। সঠিক তথ্য পরিবেশন করতে ব্যর্থ ভারত বায়োটেক নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা হয়। কংগ্রেসের তরফে বলা হয়েছিল, এই টিকার ব্যবহার এখন করা উচিৎ নয়। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাক্তার হর্ষ বর্ধন বলেছিলেন, এই নিয়ে একটি রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব তৈরি করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেছেন, ব্রিটেনে যে নতুন স্ট্রেন পাওয়া গিয়েছে, তার বিরুদ্ধে এই কোভ্যাক্সিন অনেক বেশি কার্যকর।

    Published by:Somosree Das
    First published: