পাকিস্তান হামলা করলেও কি বাঁচার দায়িত্ব রাজ্যের? কেন্দ্রের টিকা নীতিকে খোঁচা কেজরীওয়ালের

কেন্দ্রের টিকা নীতিকে খোঁচা কেজরীওয়ালের৷

কেজরীওয়াল দাবি করেছেন, দিল্লি সহ গোটা দেশে যাতে টিকাকরণের জন্য পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন (Coronavirus Vaccine) পাওয়া যায়, রাজ্যকেই তার জন্য কেন্দ্রকে উদ্যোগী হতে হবে৷

  • Share this:

    #দিল্লি: ভ্যাকসিন কেনার জন্য রাজ্যগুলির ঘাড়েই কেন্দ্র যেভাবে দায় চাপাচ্ছে, তার বিরোধিতা করে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে তীব্র আক্রমণ করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল৷ তাঁর প্রশ্ন, ভ্যাকসিন কেনার জন্য কখনওই রাজ্যগুলি এ ভাবে নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় নামতে পারে না৷ এই দায়িত্ব কেন্দ্রের৷ কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী আরও প্রশ্ন তুলেছেন, তবে কি পাকিস্তান আক্রমণ করলে নিজেদের বাঁচার ব্যবস্থাও কি রাজ্যগুলিকেই করতে হবে?

    কেজরীওয়াল দাবি করেছেন, দিল্লি সহ গোটা দেশে যাতে টিকাকরণের জন্য পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন পাওয়া যায়, রাজ্যকেই তার জন্য কেন্দ্রকে উদ্যোগী হতে হবে৷ তাঁর মতে, এভাবে নিজেদের দায়িত্ব এড়াতে পারে না কেন্দ্রীয় সরকার৷

    ক্ষুব্ধ কেজরীওয়াল বলেন, 'কেন্দ্র বলছে রাজ্যগুলিকে ভ্যাকসিন কিনে নিতে হবে৷ রাজ্যগুলি নিজেদের মধ্যে কথা বলেছে৷ এখনও পর্যন্ত কোনও রাজ্য নিজেদের জন্য অতিরিক্ত এক ডোজ ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করতে পারেনি৷ এই দায়িত্ব তো কেন্দ্রের ছিল৷' দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী এর পর আরও বলেন, 'রাজ্যগুলি নিজেদের সাধ্যমতো সব কিছু করছে৷ আমরা গ্লোবাল টেন্ডার ডেকেছি, কিন্তু ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থাগুলির সঙ্গে কথা বলতে গেলে তারা রাজি হচ্ছে না৷ পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে পাকিস্তান এখন যদি ভারতের উপর হামলা চালায় তাহলে কি নিজেদের রক্ষা করার দায়ও রাজ্যগুলির উপরেই চাপাবে কেন্দ্রীয় সরকার? তখনও কি কেন্দ্র বলবে, দিল্লি নিজের পরমাণু বোমা বানিয়ে নিক, উত্তর প্রদেশ কেন ট্যাঙ্ক কিনল না? '

    কেজরীওয়াল আরও অভিযোগ করেছেন, ভারত টিকাকরণ শুরু করতে ৬ মাস দেরি করেছে৷ তিনি আরও যুক্তি দেন, ভারতে যখন ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছিল তখন থেকেই টিকা মজুত করার কাজ শুরু করা উচিত ছিল৷ কেজরীওয়ালের দাবি, এমনটা হলে হয়তো করোনার ধাক্কায় বেশ কিছু মৃত্যু এড়ানো যেত৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: