Home /News /cooch-behar /
Cooch Behar: বেহাল অবস্থা বিধায়কের তহবিল থেকে কেনা অ্যাম্বুলেন্সের!

Cooch Behar: বেহাল অবস্থা বিধায়কের তহবিল থেকে কেনা অ্যাম্বুলেন্সের!

বেহাল পড়ে রয়েছে বিধায়ক তহবিলে কেনা অ্যাম্বুলেন্স।

বেহাল পড়ে রয়েছে বিধায়ক তহবিলে কেনা অ্যাম্বুলেন্স।

বিধায়কের এলাকা উন্নয়ন তহবিলের টাকা দিয়ে কেনা হয়েছিল অ্যাম্বুলেন্স। দীর্ঘদিন ধরে অচল হয়ে পড়ে রয়েছে অ্যাম্বুলেন্সটি। যা নিয়ে কোচবিহার শহরে একাধিক বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

  • Share this:

    #কোচবিহার : বিধায়কের এলাকা উন্নয়ন তহবিলের টাকা দিয়ে কেনা হয়েছিল অ্যাম্বুলেন্স। দীর্ঘদিন ধরে অচল হয়ে পড়ে রয়েছে অ্যাম্বুলেন্সটি। যা নিয়ে কোচবিহার শহরে একাধিক বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। মূলত শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের কয়েকজনের বক্তব্য, বছরখানেক আগে তৎকালীন ফরওয়ার্ড ব্লক দলের বিধায়ক অক্ষর ঠাকুরের এলাকা উন্নয়ন তহবিলের টাকায় কেনা হয়েছিল অ্যাম্বুলেন্স। কিন্তু বর্তমানে তা সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ক্লাবের মাঠের এক কোনায় পড়ে নষ্ট হচ্ছে অ্যাম্বুলেন্সটি। সাধারণত এলাকার মানুষের কাছে সঠিক সময়ে জরুরী পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার জন্যই কোন ক্লাব বা সংগঠনের তরফে এলাকার বিধায়কের কাছে অ্যাম্বুলেন্স বা প্রয়োজনীয় বিষয় নিয়ে আবেদন জানানো হয়। এক্ষেত্রেও বাজার এলাকার মানুষ ও ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে তৎকালীন বিধায়ক সেই অ্যাম্বুলেন্সটা দিয়েছিলেন মৈত্রী সংঘ ক্লাবকে।

    কিন্তু, এলাকার অ্যাম্বুলেন্স থাকা সত্ত্বেও বারংবার পরিষেবা না পেয়ে হতাশ হয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। কোচবিহারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাসিন্দা জানান, \"কোন মুমূর্ষু রোগীকে হাসপাতাল নিয়ে যেতে হলে অ্যাম্বুলেন্স আসা পর্যন্ত অপেক্ষায় বসে থাকতে হয়। সেক্ষেত্রে যদি এই অ্যাম্বুলেন্সটি চালু থাকত তাহলে কিছুটা হলেও সুবিধা হত কোচবিহারের মানুষদের।\" যদিও এ বিষয়টি নিয়ে ক্লাব কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, \"তেলের দাম বাড়ার কারণে বিনামূল্যে পরিষেবা দিতে অসুবিধা হচ্ছে। তাই অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে\"।

    আরও পড়ুনঃ স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষ পূর্তিতে হকি টুর্নামেন্ট কোচবিহারে

    তবে এ বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার পুরসভার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ ঘোষ এর কোন বক্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি। তবে এ বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার মৈত্রী সংঘ ক্লাবের সম্পাদক সুকুমার নাগ বলেন, \"তেলের দাম বাড়ায় আমরা বিনা টাকায় এই পরিষেবা চালাতে পারছিলাম না। এছাড়া ড্রাইভারদের হাতেও এটি পুরোপুরি হ্যান্ডওভার করা যায় না। এসবের কারণেই আপাতত গাড়িটিকে বসিয়ে রাখা হয়েছে। তবে এ বিষয়টি নিয়ে আমরা জেলা শাসকের কাছে চিঠি দেব।\"

    আরও পড়ুনঃ জল নিকাশের সমস্যা মেটাতে উদ্যোগী পৌরসভা, উদ্বোধন করা হল কালভার্ট

    যে বিধায়কের ফান্ড থেকে অ্যাম্বুলেন্সটি প্রদান করা হয়েছিল সেই প্রাক্তন বিধায়ক তথা ফরওয়ার্ড ব্লকের জেলা সম্পাদক অক্ষয় ঠাকুর বলেন, \"সাধারণ মানুষকে স্বল্প খরচে জরুরী সুবিধা প্রদান করা যাবে। সেকথা ভেবেই এই অ্যাম্বুলেন্সটি দেওয়া হয়েছিল কিন্তু তারা এর মুখে ছাই ঢেলে দিল।\"

    Sarthak Pandit
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Cooch behar

    পরবর্তী খবর