Home /News /business /
Post Office: প্রতি মাসে ঘরে বসেই ২৫০০ টাকা পেতে চান? তা-হলে দেরি না-করে বিনিয়োগ করতে হবে পোস্ট অফিসে

Post Office: প্রতি মাসে ঘরে বসেই ২৫০০ টাকা পেতে চান? তা-হলে দেরি না-করে বিনিয়োগ করতে হবে পোস্ট অফিসে

Post Office: আসলে এমআইএস (MIS) হল পোস্ট অফিসের (Post Office) সবথেকে জনপ্রিয় স্কিম।

  • Share this:

    #কলকাতা: অধিকাংশ ভারতীয় বেতনভোগী মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষ বিনিয়োগের জন্য এমন বিকল্প খোঁজেন, যেখানে ঝুঁকি তো থাকবেই না। সেই সঙ্গে ভালো পরিমাণ অর্থ রিটার্নও পাওয়া যাবে। আর তাই তাঁদের জন্য বিনিয়োগের সেরা ঠিকানা হয়ে ওঠে ভারতীয় ডাক বিভাগ বা পোস্ট অফিস। এ-দিকে আবার সম্প্রতি সরকারের তরফে পোস্ট অফিস ন্যাশনাল মান্থলি ইনকাম স্কিম (Post Office Monthly Income Scheme) বা এমআইএস (MIS)-সহ স্মল সেভিংস স্কিম (Small Savings Schemes)-গুলির হার ঘোষণা করা হয়েছে। সরকার যদিও এই সব স্কিমের হার অপরিবর্তিত অর্থাৎ ৬.৬ শতাংশই রেখে দিয়েছে। তবে এই হার কিন্তু বহু ব্যাঙ্কের ফিক্সড ডিপোজিটের হারের তুলনায় অনেকটাই বেশি।

    আসলে এমআইএস (MIS) হল পোস্ট অফিসের (Post Office) সবথেকে জনপ্রিয় স্কিম। আর তাই বাজারে প্রাপ্ত বিনিয়োগের সেরা মাধ্যম হিসেবে এই স্কিমকেই বেছে নেন বিনিয়োগকারীরা। কারণ এর থেকে বেশ ভাল পরিমাণ অর্থ রিটার্ন হিসেবে পাওয়া যায়। শুধু তা-ই নয়, কোনও বিনিয়োগকারী বিনিয়োগ শুরু করার সময় যে সুদের হার ছিল, সেই হারেই তিনি স্থায়ী রিটার্ন পাবেন। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীকে সুদের হারের ওঠা-নামা নিয়ে চিন্তা করতে হয় না। আর পরে গিয়ে সুদের হার কমে গেলেও রিটার্নের ক্ষেত্রে তার কোনও প্রভাব পড়বে না।

    আরও পড়ুন: আর কষ্ট করে বাড়ির মহিলাদের রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার টেনে বদল করতে হবে না, বড় ঘোষণা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

    পোস্ট অফিস এমআইএস-এর ন্যূনতম ডিপোজিটের পরিমাণ কত?

    যাঁরা পোস্ট অফিসে এমআইএস অ্যাকাউন্ট খুলতে চাইছেন, তা খোলার জন্য ন্যূনতম ১০০০ টাকা দিতে হবে। পোস্ট অফিসের গাইডলাইন অনুযায়ী, এর পর ডিপোজিটের পরিমাণ ১০০০-এর গুণিতক হতে হবে। ২০২০ সালের ১ এপ্রিল থেকে এই নীতি কার্যকর হয়েছে। সিঙ্গল অ্যাকাউন্টের জন্য সর্বোচ্চ বিনিয়োগের সীমা ৪.৫ লক্ষ টাকা। আর জয়েন্ট অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বিনিয়োগের সীমা ৯  লক্ষ টাকা। অর্থাৎ কোনও বিনিয়োগকারী একাই বিনিয়োগ করতে চাইলে তিনি সর্বোচ্চ ৪.৫ লক্ষ টাকা এমআইএস-এ (জয়েন্ট অ্যাকাউন্টে তাঁর শেয়ার-সহ) বিনিয়োগ করতে পারবেন। জয়েন্ট অ্যাকাউন্টে এক জনের শেয়ারের হিসেব কষার জন্য জন প্রতি জয়েন্ট হোল্ডারের প্রতিটি জয়েন্ট অ্যাকাউন্টে সমপরিমাণ অংশ থাকে।

    শিশুদের কি পোস্ট অফিসে এমআইএস অ্যাকাউন্ট থাকতে পারে?

    সন্তানের হয়ে তার অভিভাবক পোস্ট অফিসের এমআইএস অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। তবে নাবালকের ১০ বছর বয়স হয়ে গেলে সে নিজের নামে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে। আর প্রতি মাসে সেখান থেকে যে পরিমাণ সুদ পাওয়া যাবে, সেই সুদের টাকা দিয়েই ছেলে-মেয়েদের স্কুলের বেতন মেটানো যেতে পারে। অথবা সন্তানের জন্য অন্যান্য ভালো কাজেও লাগানো যাবে ওই টাকা।

    আরও পড়ুন: ডাল চোর! বাংলার অঙ্গনওয়ারি কেন্দ্রে চাঞ্চল্যকর চুরি, তাজ্জব গোটা এলাকা

    পোস্ট অফিস এমআইএস-এর মাসিক সুদের হিসেব:

    ধরা যাক, কেউ সিঙ্গেল অ্যাকাউন্ট খুলে তাতে ২ লক্ষ টাকা জমা করতে চাইছেন। তা-হলে বার্ষিক সুদের সাম্প্রতিক হার অনুযায়ী তিনি প্রতি মাসে ১১০০ টাকা করে পেতে পারেন। আবার অন্য দিকে, কেউ যদি ৩.৫০ লক্ষ টাকা নিজের সন্তানের নামে বিনিয়োগ করেন, তা-হলে তিনি প্রতি মাসে সুদ পাবেন ১৯২৫ টাকা। আর কেউ যদি সর্বোচ্চ সীমা অর্থাৎ ৪.৫ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেন, তা-হলে তিনি প্রতি মাসে ২৪৭৫ টাকা সুদ হিসেবে পাবেন। তবে মাথায় রাখতে হবে যে, আমানতকারীর হাতে পাওয়া এই সুদ কিন্তু করযোগ্য। শুরুর পর থেকে পাঁচ বছরের মেয়াদ সম্পূর্ণ হলে পোস্ট অফিসের এমআইএস অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া যাবে। তার জন্য সংশ্লিষ্ট পোস্ট অফিসে পাস বই-সহ নির্ধারিত আবেদন ফর্ম জমা করতে হবে।

    Published by:Uddalak B
    First published:

    Tags: Post office

    পরবর্তী খবর