corona virus btn
corona virus btn
Loading

হুহু করে বিকোচ্ছে Maruti-এর এই গাড়ি, চোখের নিমেষে বিক্রি ৫.৫ লক্ষ ইউনিট, কারণটা জানলে অবাক হবেন

হুহু করে বিকোচ্ছে Maruti-এর এই গাড়ি, চোখের নিমেষে বিক্রি ৫.৫ লক্ষ ইউনিট, কারণটা জানলে অবাক হবেন

ক্রেতাদের পাশাপাশি অটো-এক্সপার্টদের অবাক করেছে এই গাড়ি

  • Share this:
২০১৮ সালের নভেম্বরে লঞ্চ করেছিল এই নেক্সট জেনারেশন মাল্টি পারপাস ভেহিকল Maruti Suzuki Ertiga। এ দিকে এ বছর শুরু থেকেই বাজারের অবস্থা খুবই খারাপ। কিন্ত তার মাঝেই ৫.৫ লক্ষ ইউনিটের সেলস মার্ক পেরোল Maruti Suzuki-এর তৈরি করা গাড়িটি। যা নিয়ে ক্রেতাদের পাশাপাশি অটো-এক্সপার্টদের কৌতূহলও তুঙ্গে। আসুন গাড়িটি সম্পর্কে বিশদে জেনে নেওয়া যাক। এ বিষয়ে, Maruti Suzuki India-র মার্কেটিং ও সেলসের একজিকিউটিভ হেড শশাঙ্ক শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, ৫.৫ লক্ষের মাইলস্টোন ছুঁয়ে ফেলেছে গাড়ির বিক্রি। এই বাজারে যা রীতিমতো স্বস্তি দেওয়ার মতো খবর। ২০১২ সালের এপ্রিল মাসে Ertiga মডেলের পথচলা শুরু। তার পর ২০১৮ সালে নতুন রূপে নানা ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে হাজির হয় গাড়িটি। বর্তমানে ২০ শতাংশ রিপিট কাস্টমারসহ সব চেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া MPV এটি। মাল্টি পারপাস ভেহিকল সেগমেন্টে আপাতত শীর্ষে রয়েছে এই মডেল। প্রায়শই MPV ও UV মডেলের মধ্যে নানা ধরনের তুলনা টানেন ক্রেতারা। একাধিক বিচার-বিবেচনা চলে। আর সেই দৌড়েই যেন অনেকটা এগিয়ে গেছে Ertiga। বাড়িয়ে চলেছে মার্কেট শেয়ারও। এ বার জেনে নেওয়া যাক গাড়িটি সম্পর্কে। Ertiga মডেলের ইন্টিরিয়র ও আউটলুক নজর কাড়বে ক্রেতাদের। এই গাড়ির ক্রোমস্টাডেড ফ্রন্ট গ্রিল, প্রোজেক্টর হেডল্যাম্প ও 3D টেল ল্যাম্প আকর্ষণীয়। গাড়িতে স্টিয়ারিং মাউন্টেড অডিও, কলিং কন্ট্রোল, এয়ার কুলড কাপ হোল্ডার, অটো ক্লাইমেট কন্ট্রোলসহ একাধিক ফিচার রয়েছে। গাড়ির নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিয়েও খুব একটা চিন্তা করতে হবে না। কারণ, Maruti Suzuki Ertiga-তে থাকছে ডুয়াল এয়ারব্যাগ, হিল হোল্ড, ISOFIX, ইলেকট্রনিক স্টেবিলিটি প্রোগ্রাম ও ABS-EBD সিস্টেম। গাড়িটির দাম শুরু হচ্ছে ৭.৫৯ লক্ষ টাকা থেকে। এ ক্ষেত্রে ভ্যারিয়েন্ট অনুযায়ী সর্বোচ্চ দাম ১০.১৩ লক্ষ টাকা। অর্থাৎ Ertiga LXi-এর দাম ৭.৫৯ লক্ষ টাকা। Ertiga VXi-এর দাম ৮.৩৪ লক্ষ টাকা। Ertiga VXi CNG-এর দাম ৮.৯৫ লক্ষ টাকা এবং Ertiga ZXi AT-এর দাম ১০.৩১ লক্ষ টাকা। মোট পাঁচটি কালার অপশন অর্থাৎ মেটালিক ম্যাগমা গ্রে, পার্ল মেটালিক অক্সফোর্ড ব্লু, পার্ল আর্কটিক হোয়াইট, মেটালিক সিল্কি সিলভার ও পার্ল মেটালিক আর্বান রেড-এ পাওয়া যাচ্ছে এই গাড়ি। গাড়ির মাইলেজ ১৭.৯৯-২৬.২ কিমি। ম্যানুয়াল ও অটোম্যাটিক ট্রান্সমিশনের ব্যবস্থাও থাকছে। সাতজন পর্যন্ত নিশ্চিন্ত বসতে পারেন গাড়ির মধ্যে। গাড়ির ইঞ্জিনে ১.৫ লিটার ফোর সিলিন্ডার ও ১.৫ লিটার ফোর সিলিন্ডার ন্যাচারাল গ্যাসের অপশন রয়েছে। থাকছে ১.৫ লিটার K সিরিজ পেট্রোল ইঞ্জিন। রয়েছে S-CNG অপশনও।
Published by: Elina Datta
First published: November 20, 2020, 3:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर