Home /News /business /
Post Office: ঘরে বসেই পোস্ট অফিসের কাজ! কীভাবে নেট ও মোবাইল ব্যাঙ্কিং চালু করবেন দেখে নিন!

Post Office: ঘরে বসেই পোস্ট অফিসের কাজ! কীভাবে নেট ও মোবাইল ব্যাঙ্কিং চালু করবেন দেখে নিন!

Post Office: পোস্ট অফিসে সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাকলে কীভাবে নেট ব্যাঙ্কিং চালু করতে হবে সেটা দেখে নেওয়া যাক।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: পোস্ট অফিসে যাওয়ার দরকার নেই। সেভিংস অ্যাকাউন্ট থেকে ঘরে বসেই লেনদেন করা যাবে। এমনই সুবিধা নিয়ে এল ভারতীয় ডাকবিভাগ। ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং মারফত পোস্ট অফিসের সেভিংস অ্যাকাউন্ট থেকে যে কোনও ব্যক্তিকে টাকা পাঠানোও যাবে। শুধু তাই নয়, এখন থেকে নেট ব্যাঙ্কিং বা মোবাইল ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমে টাকা জমা করা যাবে পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড বা সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনাতেও। এখন পোস্ট অফিসে সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাকলে কীভাবে নেট ব্যাঙ্কিং চালু করতে হবে সেটা দেখে নেওয়া যাক।

    আরও পড়ুন: আপনার শহরে কত হল পেট্রোল-ডিজেলের দাম ? দেখে নিন এখানে....

    কী কী লাগবে? ইন্ডিয়া পোস্ট ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পেতে গেলে যে যে শর্তগুলি পূরণ করতে হবে ১) সিবিএস সাব পোস্ট অফিস বা হেড পোস্ট অফিসের বৈধ একক বা জয়েন্ট ‘বি’ সেভিংস অ্যাকাউন্ট ২) শাখা পোস্ট অফিসগুলির সেভিংস অ্যাকাউন্টগুলিতে ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং পরিষেবা মিলবে না ৩) ইতিমধ্যে জমা না করলে প্রয়োজনীয় কেওইয়াইসি নথিপত্র দাখিল করতে হবে ৪) বৈধ মোবাইল নম্বর ৫) ইমেল ৬) প্যান নম্বর।

    আরও পড়ুন: গ্রাহকদের জন্য বিশাল খবর! এই ব্যাঙ্ক ফিক্সড ডিপোজিটে সুদের হার বৃদ্ধি করেছে

    সেভিংস অ্যাকাউন্টে ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পেতে হলে

    ১। কাছের পোস্ট অফিসে গিয়ে ফর্ম পূরণ করতে হবে। ৪৮ ঘন্টার মধ্যে রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরে এসএমএস আসবে।

    ২। এসএমএস পেয়ে গেলে ডিওপি ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং পোর্টালে গিয়ে হোম পেজে ‘নিউ ইউজার অ্যাক্টিভেশন’ হাইপার লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে।

    ৩। সেখানে দিতে হবে কাস্টমার আইডি এবং অ্যাকাউন্ট আইডি। কাস্টমার আইডি হল সেভিংস অ্যাকাউন্ট পাসবুকের প্রথম পৃষ্ঠায় দেওয়া সিআইএফ আইডি। এবং গ্রাহকের সেভিংস অ্যাকাউন্ট নম্বর হল অ্যাকাউন্ট আইডি।

    ৪। প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করে ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং লগইন এবং লেনদেনের পাসওয়ার্ড সেট করতে হবে। মনে রাখতে হবে, লগইন পাসওয়ার্ড এবং লেনদেন পাসওয়ার্ড আলাদা রাখতে হবে।

    ৫। এবার লগ ইন করে সিকিউরিটি প্রশ্ন-উত্তর এবং পাসওয়ার্ড ঠিক করতে হবে।

    এরপর নিরাপত্তার জন্য ‘পাস ফ্রেজ’-এর মধ্যে দিয়ে যেতে হতে পারে। এর মাধ্যমে গ্রাহক সঠিক ডিওপি ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিংয়ের ইউআরএল ব্যবহার করছেন কি না তা যাচাই করে নেওয়া হয়। এটা হয়ে গেলেই গ্রাহক অনলাইন ব্যাঙ্কিং শুরু করতে পারবেন।

    আরও পড়ুন: কমছে গ্রাহক, পড়ছে শেয়ার- নেটফ্লিক্স আদৌ চালু থাকবে তো?

    মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা চালু করতে হলে গুগল প্লে স্টোর থেকে ইন্ডিয়া পোস্ট মোবাইল ব্যাঙ্কিং অ্যাপ ইনস্টল করতে হবে- ১। এরপর ক্লিক করতে হবে ‘অ্যাক্টিভেট মোবাইল ব্যাঙ্কিং’ ট্যাবে। ২। নিরাপত্তা সংক্রান্ত নথি পূরণ করে দিতে হবে ওটিপি। ৩। চার সংখ্যার এমপিআইএন দিতে হবে। ৪। সাবমিটে ক্লিক করতে হবে। এবার গ্রাহক মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা চালু করতে পারবেন।

    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published:

    Tags: Internet banking, Post office

    পরবর্তী খবর