• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • Ration Card: বাড়িতে বসে এক ক্লিকেই বানিয়ে ফেলতে পারবেন রেশন কার্ড!

Ration Card: বাড়িতে বসে এক ক্লিকেই বানিয়ে ফেলতে পারবেন রেশন কার্ড!

কীভাবে করবেন আবেদন ?

কীভাবে করবেন আবেদন ?

কীভাবে করবেন আবেদন ?

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: এক দেশ এক রেশন কার্ড (One nation one card) ব্যবস্থা লাগু হওয়ার পর থেকে প্রত্যেক নাগরিকের জন্য রেশন কার্ড থাকা আরও বেশি জরুরি হয়ে উঠেছে ৷ কেবল সস্তায় রেশন নেওয়ার জন্য নয় পরিচয় পত্র হিসেবেও বেশ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হিসেবে মানা হয় রেশন কার্ডকে ৷ এই যোজনা লাগু হওয়ার পর থেকে যে কোনও রাজ্যের বাসিন্দা দেশের যে কোনও জায়গা থেকে রেশন নিতে পারবেন ৷ আধার ও প্যান কার্ডের পাশাপাশি রেশন কার্ড থাকাও অত্যন্ত জরুরি ৷

    আরও পড়ুন: আগামী ৫ দিন এই শহরগুলিতে বন্ধ থাকবে ব্যাঙ্ক, দেখে নিন ছুটির লিস্ট

    আপনার কাছে রেশন কার্ড না থাকলে চিন্তার কোনও কারন নেই ৷ এবার বাড়িতে বসে স্মার্টফোন থেকে অনলাইনে রেশন কার্ডের (Apply online for ration card) জন্য আবেদন করতে পারবেন ৷ এর জন্য প্রত্যেকটি রাজ্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেছে ৷ আপনার রাজ্যের ওয়েবাসইটে গিয়ে রেশন কার্ডের জন্য সহজেই আবেদন করতে পারবেন ৷

    আরও পড়ুন: ঊর্ধ্বমুখী সোনার দাম, দেখে নিন কলকাতায় কত টাকা দাম বাড়ল ১০ গ্রাম সোনার

    রেশন কার্ড তিন ধরনের হয়

    >> দারিদ্র সীমার উপরে (APL)

    >> দারিদ্রা সীমার নীচে (BPL)

    >> Antyodaya Anna Yojana (AAY)

    বার্ষিক আয়ের উপরে নির্ভর করবে আপনার রেশন কার্ডের ক্যাটাগরি ৷

    আবেদনের জন্য কী কী শর্তাবলী রয়েছে ?

    • রেশন কার্ড তৈরির জন্য দেশের নাগরিক হতে হবে
    • কোনও রাজ্যের রেশন কার্ড থাকলে আর আবেদন করা যাবে না
    • যাঁর নামে রেশন কার্ড হবে তাঁর বয়স ১৮ বছরের বেশি হতে হবে
    • পরিবারের প্রধানের নামে রেশন কার্ড হয়ে থাকে
    • রেশন কার্ড যে সদস্যদের নাম যুক্ত করা হবে তাঁদের রেশন কার্ড হোল্ডারের নিকটতম সম্পর্ক হতে হবে

    কীভাবে করবেন আবেদন

    • রেশন কার্ড বানানোর জন্য প্রথমে রাজ্য সরকারের ওয়েবসাইটে যেতে হবে
    • এরপর Apply online for ration card লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে
    • রেশন কার্ড তৈরির জন্য আইডি প্রুফ হিসেবে আধার কার্ড, ভোটার আইডি, পাসপোর্ট, হেলথ কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি দিতে হবে
    • রেশন কার্ড তৈরির জন্য ৫ থেকে ৪৫ টাকা পর্যন্ত শুল্ক দিতে হতে পারে ৷ আবেদন পত্র ফিলআপ করার পর পেমেন্ট করে অ্যাপ্লিকেশন সাবমিট করে দিতে হবে
    • ফিল্ড ভেরিফিকেশনে আপনার আবেদনে দেওয়া তথ্য সঠিক পাওয়া গেলে আপনার রেশন কার্ড তৈরি হয়ে যাবে
    • সাধারনত আবেদনের ৩০ দিনের মধ্যে ভেরিফিকেশন করা হয় ৷ সমস্ত ডিটেল ভেরিফাই করার পর সঠিক থাকলে রেশন কার্ড তৈরি হয়ে যাবে ৷ তথ্যে ভুল থাকলে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হতে পারে
    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published: