Cyclone Yaas: ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ি-বাইকের জন্য কীভাবে পাবেন বিমার টাকা, জানুন পদ্ধতি

cyclone yaas car under water

তাহলে কী করতে হবে যদিও আপনার গাড়ির প্রাকৃতিক দুর্যোগে (Natural Calamity) ক্ষতি হয়?

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বাংলা ও ওড়িশার উপকূল অঞ্চলে৷ দুই রাজ্যের উপকূলের জেলাগুলি জলের তলায়৷ বহু গাড়ি, বাইক ভেসে গিয়েছে জলের তোড়ে৷ ক্ষতিও হয়েছে প্রচুর যানবাহনের৷ একই ভাবে দেশের পশ্চিম উপকূলে Cyclone Tauktae-এ একই অবস্থা হয়েছিল৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠে এসেছিল জলে ডুবে যাওয়া গাড়ি-বাইকের ছবি৷ এর ফলে গাড়ির যন্ত্রাংশ খারাপ হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক৷ তবে জলে ডুবে গাড়ি বা বাইকে সমস্যা হলে, এখন বিমার সুবিধা মিলবে৷

    বেশ কিছু বছর আগে কেরলে বিধ্বংসী বন্যার (Kerala floods) পর ইনসিওরেন্স রেগুলেটরি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার (Insurance Regulatory and Development Authority of India)পক্ষ থেকে বিমা সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয় বিমার নিয়মগুলি কিছুটা পরিবর্তন করতে৷ সেই পরিবর্তীত নিয়মগুলির দিকে নজর রাখুন৷

    সাধারণ যেসব মটোর ইনসিওরেন্স (insurance company) থাকে তাতে প্রাকৃতিক দুর্যোগে (natural calamities) গাড়ির ক্ষতি হলে মেলে না কোনও টাকা৷ প্রাকৃতিক দুর্যোগ অর্থাৎ ঘূর্ণিঝড়, বর্জ্রবিদ্যুত, ভূমিকম্প, ধস, বন্যায় কোনও ক্ষতিতে মটোর ইনসিওরেন্স কভারেজ মেলে না৷

    তাহলে কী করতে হবে যদিও আপনার গাড়ির প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতি হয়? পলিসি হোল্ডারদের (Policy Holder) যোগাযোগ করতে হবে বিমা সংস্থার সঙ্গে৷ জলে ডুবে থাকা গাড়ি বা বাইকের ফোটো বা ভিডিও নিতে হবে৷ যা প্রমাণ হিসেবে কাজ করবে৷ সাধারণভাবে বিমা সংস্থাগুলির যোগযোগ থাকে কোন গ্যারাজের (garages) সঙ্গে৷ তারা সেই ছবি গ্যারাজের মিস্ত্রিকে পাঠায়৷ তারা এসে গাড়ির অবস্থা পরিদর্শন করেন এবং কতটা ক্ষতি হয়েছে, তা জানিয়ে দেন বিমা সংস্থাকে৷ সেই ক্ষতি সারাইয়ে কত টাকা লাগবে তা বিবেচনা করে পলিসি হোল্ডারকে ক্ষতিপূরণ দেয় বিমা সংস্থা৷ অবশ্যই কত টাকার বিমা, তার উপরও নির্ভর করে ক্ষতিপূরণের অঙ্কটা৷

    কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

    যান জলে ডুবে গেলে, তা স্পর্শ না করাই ভাল৷ কারণ সেটি এদিক-ওদিক করতে গেলে আরও বিপদ হতে পারে৷ বা গাড়ির আরও ক্ষতি হতে পারে৷ গাড়ির ভিতরে বা বাইরে ক্ষতি হলে, সেই টাকা দেবে বিমা সংস্থা৷ গাড়ির ইঞ্জিন নষ্ট হলে, সেটা জোরপূর্বক স্টার্ট না করাই ভাল৷ সেই চেষ্টা করতে গেলে ইঞ্জিনের আরও ক্ষতি হতে পারে৷ যা বিমা সংস্থা গাফিলতি হিসেবে চিহ্নিত করবে৷ এর ফলে টাকা পাওয়া যাবে না৷

    সাধারণ মানুষের সুবিধার জন্য ইতিমধ্যেই SBI General Insurance টাস্ক ফোর্স গঠন করেছে বিভিন্ন দাবি দাওয়ার দ্রুত সমাধান করতে৷ একই ভাবে নতুন নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে (ড্রোন ক্যামেরা) দ্রুত ক্ষয়ক্ষতি পরিদর্শন করতে৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: