Home /News /business /
Agnipath Recruitment Scheme : সেনা বেতন, পেনশন বিলের ক্ষেত্রে অগ্নিপথ স্কিম কীভাবে কাজ করবে? কতটা লাভ হবে এতে?

Agnipath Recruitment Scheme : সেনা বেতন, পেনশন বিলের ক্ষেত্রে অগ্নিপথ স্কিম কীভাবে কাজ করবে? কতটা লাভ হবে এতে?

Agnipath Recruitment Scheme

Agnipath Recruitment Scheme

Agnipath Recruitment Scheme : কী এই অগ্নিপথ প্রকল্প, কারা আসবেন এর আওতায়, কেনই বা এত আলোচনা এই নতুন প্রকল্পকে ঘিরে, জেনে নেওয়া যাক খুঁটিনাটি।

  • Share this:

Indian নয়াদিল্লি: অগ্নিপথ নিয়োগ প্রকল্প (Agnipath Recruitment Scheme) নিয়ে শুরু হয়েছে জোর গুঞ্জন । কী এই অগ্নিপথ প্রকল্প, কারা আসবেন এর আওতায়, কেনই বা এত আলোচনা এই নতুন প্রকল্পকে ঘিরে, জেনে নেওয়া যাক খুঁটিনাটি ।

এই অগ্নিপথ প্রকল্প আসছে সেনা,  নৌসেনা এবং বিমানবাহিনীর নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে । মঙ্গলবার, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংহকে (Rajnath Singh) করা প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘‘ আমরা সশস্ত্র বাহিনীর জন্য ব্যয় করতে কখনই পিছপা নই । প্রয়োজনীয় যা খরচ করতে হবে, সরকার খরচ করতে রাজি । আমাদের লক্ষ্য দেশের সীমান্ত রক্ষা করা । যা খরচ করা দরকার, তা খরচ করা হবে ।’’

কর্তৃপক্ষের দাবি ২০২০ সাল থেকে প্রতিরক্ষা পেনশনে খাতে প্রায় ৩:৩ লক্ষ কোটি টাকারও বেশি বরাদ্দ করা হয়েছে এবং প্রদান করা হয়েছে । বছরের পর বছর, পেনশনের কারণে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের আয়ের অংশ সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকীকরণের জন্য ব্যবহৃত মূলধন ব্যয়ের থেকে বেশি হয়ে যাচ্ছে বলে দাবি । ফেব্রুয়ারিতে প্রস্তাবিত বাজেটে, সামগ্রিক প্রতিরক্ষা মূল্যের পরিসর ৫.২৫ লক্ষ কোটি টাকা করা হয়েছে । যা গত বছরের বরাদ্দ ৪.৭৮ লক্ষ কোটি টাকার তুলনায় প্রায় ১০ শতাংশ বেশি । তবুও মূল্য সীমার আয়ের অংশ মূলধন ব্যয়ের চেয়ে বেশি হয়ে যাচ্ছে বলে জানাচ্ছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

আরও পড়ুন :  আজ আপনার শহরে কত হল পেট্রোল ও ডিজেলের দাম, জানলে চমকে যাবেন আপনিও....

এই বছর বরাদ্দ করা সম্পূর্ণ আয় হল ৩.৬৫ লক্ষ কোটি টাকা । এর মধ্যে পেনশনের জন্য ১,১৯,৬৯৬ কোটি টাকা ব্যয় হচ্ছে । সূত্রের খবর ২০২০-২১ সালে পেনশন খাতে বরাদ্দ সংশোধন করে ১.১৭ লক্ষ কোটি টাকা করা হয়েছিল । কিন্তু সেই সীমা পেরিয়ে গিয়েছে, পেনশন খাতে প্রায় ১.২০ লক্ষ কোটি টাকা ব্যয় করতে হচ্ছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রককে । গত অর্থবর্ষে পেনশন বিল আরও বেশি ছিল । সেটা দাঁড়িয়েছিল প্রায় ১.২৮ লক্ষ কোটি টাকা ।

সাম্প্রতিক বছরগুলির মতো এ বছরও বাজেটে, প্রতিরক্ষা পেনশনকে সামগ্রিক প্রতিরক্ষা বরাদ্দ সীমার এক চতুর্থাংশের কিছু কম রাখা হয়েছে ।

একই ভাবে, বাহিনীকে দেওয়া পারিশ্রমিকও বছরের পর বছর বাড়ছে । ২০২০-২০২১ সালে সেনাবাহিনীর বেতন এবং ভাতা খাতে ৮৮,৮০০ কোটি টাকারও বেশি ব্যয় করেছে কেন্দ্র । পরবর্তী ২০২১-২০২২ সালে তা ১০,০০০ কোটি টাকাও বেশি বেড়েছে । এই বছর সেনাবাহিনীর বেতন এবং ভাতার জন্য সংশোধিত তহবিল ধরা হয়েছিল ৯৯,৮০০ কোটি টাকারও বেশি ।

আরও পড়ুন : রান্নার তেলের দামে ফের পতন! লিটার প্রতি সর্ষে-বাদাম-সয়াবিন তেলের দর কত? দেখুন...

এই বছর, কেন্দ্রীয় সরকার সেনাবাহিনীর বেতন ও ভাতা খাতে ১.০৭ লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। তিন বাহিনীর মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হল এই সেনাবাহিনী । এতে রয়েছেন ১১ লাখেরও বেশি সেনা এবং আধিকারিক ।

২০২০-২১ সালে নৌ বাহিনীর জন্য বেতন এবং ভাতা খাতে প্রায় ৬,৬৫৯ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল । ২০২১-২২ সালে তা বাড়িয়ে করা হয়েছিল ৭,৮৩২ কোটি টাকা । এ বছরের বাজেটে তা আরও বাড়িয়ে করা হয়েছে ৯,১৩৩ কোটি টাকা ।

আরও পড়ুন :  LIC শেয়ারে রেকর্ড পতন, মাথায় হাত বিনিয়োগকারীদের! বাঁচতে হলে এখুনি করুন এই কাজ

একইভাবে, IAF-এর সংখ্যাও ক্রমশ বাড়ছে । এই খাতেও বাড়ছে খরচ । ২০২০-২১ সালে IAF বেতন এবং ভাতা বাবদ খরচ হয়েছিল ১৫,৯৮৪ কোটি টাকা । ২০২১-২২ সালে তা বাড়িয়ে করা হয় ১৬,৩৪৭ কোটি টাকা । এ বছরের বাজেটে বরাদ্দ আরও বেশ খানিকটা বাড়ানো হয়েছে । এ বছর এই খাতে বাজেট বরাদ্দ হয়েছে ১৮,৩৪৬ কোটি টাকা ।

এ বছরের জন্য তিন বাহিনীর সম্পূর্ণ বেতন এবং ভাতা প্রায় ১.৩৫ লক্ষ কোটি টাকার কাছাকাছি গিয়ে দাঁড়িয়েছে । এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছে পেনশনের ১.২ লক্ষ কোটি টাকা । কেন্দ্রীয় সরকার এই বছর কেবল মজুরি এবং পেনশনের জন্য ২.৫৫ লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে । এ দিকে প্রতিরক্ষা বাহিনীর আধুনিকীকরণের জন্য ব্যবহৃত মূলধন হিসেবে বরাদ্দ করা হয়েছে ২.৩৩ লক্ষ কোটি টাকা ।

পরিসংখ্যান বলছে, ২০১২-১৩ সালের চেয়ে ক্রমশ বেড়েছে প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয়ের বহর । কী ভাবে বাড়ছে এই খাতে বরাদ্দের পরিমাণ । একটু নজর দিলেই বোঝা যাবে । দশ বছর আগে, কেন্দ্রীয় সরকার প্রতিরক্ষা পেনশনের জন্য ৩৯,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছিল । বাহিনীর বেতন এবং ভাতা খাতে বরাদ্দ করা হয়েছিল ৫৬,০০০ কোটি টাকা । মূলধন ব্যয়ের জন্য প্রায় ৮০,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল । গোটা বছরের সামগ্রিক প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দের উর্ধ্বসীমা ছিল ২.৩৮ লক্ষ কোটি টাকা ।

ভাতা ও পেনশন খাতে কী ভাবে খরচ কমানো যায়, সে বিষয়ে একটি প্রাথমিক প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল সেনাবাহিনীর তরফেই । সেটা ২০২০ সালের কথা । সেখানেই নতুন প্রকল্পের প্রস্তাব এসেছিল। প্রাথমিক প্রস্তাবে তিন বছরের মডেল ধরে ভাবনা চিন্তা করা শুরু হয়েছিল ।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published:

Tags: Defence, Indian Army, Rajnath Singh

পরবর্তী খবর