Home /News /bankura /
Bankura: নোংরা আবর্জনা এবং কচুরিপানা দখল নিয়েছে বাঁকুড়া শহরের পুকুরগুলো

Bankura: নোংরা আবর্জনা এবং কচুরিপানা দখল নিয়েছে বাঁকুড়া শহরের পুকুরগুলো

title=

বাঁকুড়া শহর জুড়ে রয়েছে মোট ২৪ টি ওয়ার্ড। সেই বাঁকুড়া শহরের বেশ কিছু ওয়ার্ডে বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে বেশ কয়েকটি পুকুর। নিয়মমতো হচ্ছে না পুকুরগুলো সংস্কারের কাজ।

  • Share this:

    বাঁকুড়া : বাঁকুড়া শহর জুড়ে রয়েছে মোট ২৪ টি ওয়ার্ড। সেই বাঁকুড়া শহরের বেশ কিছু ওয়ার্ডে বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে বেশ কয়েকটি পুকুর। নিয়মমতো হচ্ছে না পুকুরগুলো সংস্কারের কাজ। আর সেই কারণে পুকুরে জমছে প্লাস্টিক , নোংরা আবর্জনা এবং কচুরিপানায় দূষিত হচ্ছে পুকুর। সেই নোংরা জলাশয় থেকেই বাড়ছে মশার উপদ্রব। দীর্ঘদিন কচুরিপানায় ভরে আছে বাঁকুড়া 7 নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় কুচকুচিয়া এবং 1 নম্বর ওয়ার্ড এলাকার নুনগোলা রোড এলাকায় পুকুরগুলি। প্রায়ই 3 বছর আগে বাঁকুড়া জেলা শাসক উমাশঙ্কর এস নিজে পুকুরগুলি পরিদর্শন করে পুকুরগুলি অবিলম্বে সংস্কার করার নির্দেশ দেন বাঁকুড়া পৌরসভাকে। কিন্তু জেলাশাসকের বদলি হওয়ার পর সেই সব এখন অতীত। ভোটের সময় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি পুকুর সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দিলেও ভোট মিটতেই মুখ ফিরিয়ে নেন তারা। বাঁকুড়া 7 নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় কুচকুচিয়ার পুকুরটির বেহাল দশা। সেই পুকুরে প্লাস্টিক, পুকুর ভর্তি কচুরিপানা এবং নোংরা আবর্জনায় ভরে উঠেছে। ছড়াচ্ছে পচা গন্ধ।

    এই এলাকায় প্রায় 200 পরিবারের বাস।যেকোনো সময় বিষক্রিয়া ঘটতে পারে এই পুকুরের জলের মধ্য দিয়ে। তবুও সেই পুকুরের জলে দিব্যি চলছে বাসন মাজা কাপড় কাচা এবং স্নান। এমনকি ছোট্ট শিশুর মনের আনন্দে গ্রীষ্মের তাপদাহ থেকে বাঁচতে দিচ্ছে ঝাঁপ। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ সব জায়গায় জানিও কাজ হয়নি। পুকুর সংস্কারের বিষয়ে বাঁকুড়া কুচকুচিয়ার বাসিন্দা বাপন দাস বলেন প্রশাসন এই বিষয়ে সব কিছুই জানে। দীর্ঘদিন যাবত এই ভাবেই বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে পুকুরটির কোনো বেবস্থা নেওয়া হয় নি প্রশাসনের পক্ষ থেকে। পুকুরে বাসা বেঁধেছে কচুরিপানা, পড়ে রয়েছে নোংরা আবর্জনা এবং প্লাস্টিক। এই এলাকায় প্রায় 200 পরিবারের বাস।

    আরও পড়ুনঃ Bankura: শরীর ফিট রাখতে জঙ্গলের মাঝে ইকো জিম তৈরি গ্রামবাসীদের

    আশেপাশে সেই রকম পুকুর না থাকায় তারা এই পুকুরের উপর নির্ভরশীল। ওই এলাকায় রয়েছে জলের কষ্টও। তাই এই বেহাল পুকুরের এই অবস্থাতেও বাধ্য হয়ে মহিলারা স্নান করেন কাপড় কাচেন এবং বাসন মাজেন। এই পুকুরে স্নান করলে মাঝে মাঝে দেখা যায় বিভিন্ন চর্ম জনিত রোগ। বছর তিনেক আগে একবার বাঁকুড়ার জেলাশাসক এই পুকুরটি পরিদর্শন করেন । তারপর জেলা শাসক পরিবর্তনের পরে আর কাজ হয়নি। তবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ভোট সময় সব প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট চাইতে এলেও ভোটের পর মেলেনা দেখা তাদের।

    আরও পড়ুনঃ Bankura: কালবৈশাখীর তাণ্ডবে উড়ল বাড়ির ছাদ

    তবে বাঁকুড়া পৌরসভা তাদের সাথে কোনো যোগাযোগ করেনি বলে তিনি দাবি করেন। তারা চান পৌরসভা হস্তক্ষেপ করে পুকুরটি যাতে খুব শীঘ্রই সংস্কার করুক। বাঁকুড়া পৌরসভার উপ পৌর প্রধান হীরালাল চট্টরাজ বলেন বেশ কিছু পুকুর এখনো সংস্কার হয়নি সেই বিষয়ে বাঁকুড়া পৌরসভার নজর রয়েছে। জি আই এস প্রকল্পের মধ্য দিয়ে মাস্টার প্ল্যান তৈরি করে পুকুরগুলি পরিষ্কারের কাজ দ্রুত শুরু হবে বলে জানান তিনি।

    JOYJIBAN GOSWAMI
    First published:

    Tags: Bankura, South Bengal

    পরবর্তী খবর