Home /News /alipurduar /
লক্ষীর ভাণ্ডারের টাকা ঢুকল প্রতিবেশী এক পুরুষের অ্য‌কাউন্টে! অবাক কাণ্ড আলিপুরদুয়ারে

লক্ষীর ভাণ্ডারের টাকা ঢুকল প্রতিবেশী এক পুরুষের অ্য‌কাউন্টে! অবাক কাণ্ড আলিপুরদুয়ারে

আলিপুরদুয়ার এক ব্লকের পূর্ব কাঁঠালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের এক মহিলার লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা ঢুকছে প্রতিবেশী এক পুরুষের অ‍্যাকাউন্টে

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা মহিলার অ‍্যাকাউন্টে না ঢুকে প্রতিবেশি এক পুরুষের আ্যকাউন্টে ঢোকায় চাঞ্চল্য আলিপুরদুয়ারে। এমনটা কীভাবে সম্ভব ? প্রশ্ন সকলের মুখে।

    আলিপুরদুয়ার এক ব্লকের পূর্ব কাঁঠালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের এক মহিলার লক্ষ্মীর ভান্ডারের টাকা ঢুকছে প্রতিবেশী এক পুরুষের অ‍্যাকাউন্টে। এই অভিযোগ অলোকা বর্মণ নামের ওই মহিলার। গতবারের দুয়ারে সরকারে আবেদন করেন অলোকা বর্মন নামের এক মহিলা। আবেদনের পর দীর্ঘদিন ধরে টাকা না পাওয়ায় তিনি খোঁজ খবর করতে শুরু করেন।এরপরেই বেরিয়ে আসে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। ইতিমধ্যেই আলোকা বর্মনের তিন কিস্তির টাকা রথীন বর্মন নামে এক ব্যক্তির অ‍্যাকাউন্টে ঢুকেছে। মাসের পর মাসের টাকা না মেলায় অলোকা বর্মণ বিডিও অফিসে এই বিষয়ে অভিযোগ জানান।

    আরও পড়ুন - টার্গেট ফরেস্ট ল্যান্ড! বন দফতরের প্রথম দিনের অভিযানে দখলমুক্ত ১৮ একর

    আরও পড়ুন - ডেঙ্গি ও ম্যালেরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে 'এই' জেলায়, আপনি কতটা চিন্তিত?

    তারপর ব্লক প্রশাসনের তদন্তে উঠে আসে এই তথ্য৷ তবে যে ব্যক্তি টাকা পেয়েছেন অর্থাৎ রথীন বর্মণের দাবি,"আমি এসব কিছুই জানি না৷ আমি একশো দিনের কাজ করি। ভেবেছিলাম ওই টাকাই ঢুকেছে।সেই টাকা তুলেও নিয়েছি আমি।"

    অলোকা বর্মন বলেন,"আমি মাসের পর মাস ব্যাংকে গিয়ে ঘুরে এসেছি। টাকা না পেয়ে বিডিও অফিসে অভিযোগ জানাই। এখন বাকি সহ সব টাকা আমাকে দিতে হবে।' এই ঘটনায় দুয়ারে সরকারে দালাল চক্র সক্রিয়ের অভিযোগ উঠেছে। আবার প্রশাসনের দাবি,প্রযুক্তিগত কোনো কারণে এটা হয়েছে।

    স্থানীয় উপপ্রধান সৌরভ পাল বলেন,"ঘটনাটি জানা ছিল না। তবে ওই ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে লক্ষ্মীর ভান্ডারের সব টাকা ফেরত নিয়ে ওই মহিলা কে দেবার ব্যবস্থা করব। আর আগামীতে এরকম যাতে না হয় সেজন্য আমরা সতর্ক থাকব।"

    অনন্যা দে

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Alipurduar, Lakshmir bhandar

    পরবর্তী খবর