Home /News /alipurduar /
Alipurduar: বাসরা নদীর ভাঙন অব্যাহত, আতঙ্কে গ্রামবাসীরা

Alipurduar: বাসরা নদীর ভাঙন অব্যাহত, আতঙ্কে গ্রামবাসীরা

title=

কালচিনি ব্লকে বাসরা নদীর ভাঙন অব্যাহত। বাসরা নদীর জল ঢুকে পড়ছে গ্রামে।প্রায় অধিকাংশ কৃষিজমি অতলে চলে গিয়েছে।

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার : কালচিনি ব্লকে বাসরা নদীর ভাঙন অব্যাহত। বাসরা নদীর জল ঢুকে পড়ছে গ্রামে। প্রায় অধিকাংশ কৃষিজমি অতলে চলে গিয়েছে। কালচিনি ব্লকে বাসরা নদীর স্রোতে ভেসে গিয়েছে রাধারানী এলাকার পানা সেতু সংলগ্ন রাস্তাটি। বর্তমানে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হয় এলাকাবাসীদের। বাসরা নদীর ভাঙনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত সেন্ট্রাল ডুয়ার্স এলাকা। এলাকাবাসীদের মতে ভাঙনে প্রায় 30% জমি চলে গিয়েছে। বৃষ্টি হলে নদীর জল এলাকায় ঢুকে পরে। বাসরা নদীর পাড়ে পাথরের বাঁধ রয়েছে কিন্তু নদীতে জল বাড়লে ভয়ঙ্কর রূপ নেয় নদী। তখন পাথরের বাঁধের ক্ষয় করতে পারে নদীর জল বলে ধারণা এলাকাবাসীর। এখনও বর্ষা শেষ হয়নি। তাই বৃষ্টি হলেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকাবাসীরা।

    ঘুম,খাওয়া উড়ে যায় তাদের। বাসরা নদীর জলের তোরে নিঃশেষ হয়েছে রাস্তা। সেন্ট্রাল ডুয়ার্স ও কালচিনির যোগাযোগ চলছে নদী পেরিয়ে। প্রতিদিন নদী পেরতে বিরক্ত হয়ে উঠছেন সকলে। অনেক সময় নদীর জলে আটকে যায় বাইক ও গাড়ি। এই সমস্যার সমাধান কবে হবে প্রশ্ন এলাকাবাসীদের?

    আরও পড়ুনঃ বন মহোৎসব উপলক্ষে রাজাভাতখাওয়া প্রকৃতি বীক্ষণ কেন্দ্রে বিশেষ অনুষ্ঠান

    শুধু কালচিনি নয়, জয়গাঁ, হাসিমারা থেকে অনেক শিক্ষক সেন্ট্রাল ডুয়ার্সে আসেন শিক্ষকতা করতে। অনেক সময় তারা স্কুল অবদি যেতে পারেন না। বাসরা নদীর জল বেশি থাকলে তাদের ফিরে যেতে হয় বাড়িতে। যদিও কালচিনি ব্লক প্রশাসনের তরফে সেন্ট্রাল ডুয়ার্স এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে। কৃষি জমি বাঁচাতে এলাকাবাসীদের দাবী পাকা বাঁধের।

    আরও পড়ুনঃ টায়ারে জমছে জল! বাড়ছে মশার লার্ভা, ডেঙ্গু রুখতে চলছে সচেতনতা

    নয়তো পরের বর্ষায় বাসরা নদীর জল ঢুকে নিঃশেষ করে দেবে পুরো গ্রামটি। এদিকে কালচিনি ও সেন্ট্রাল ডুয়ার্সে নিত্য যাতায়াতকারীরা দুই এলাকার মধ্যে সেতুর দাবী জানাচ্ছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নদী পেরতে চাইছেন না তারা।

    Annanya Dey
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Alipurduar, North Bengal

    পরবর্তী খবর