Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: সালিশি সভা বসিয়ে এক পরিবারকে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার নিদান!

Paschim Medinipur: সালিশি সভা বসিয়ে এক পরিবারকে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার নিদান!

সালিশি সভা বসিয়ে এক পরিবারকে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার নিদান দিল গ্রামের মাতব্বররা। মাতব্বরদের ভয়ে ঘরছাড়া পরিবার। ইতিমধ্যে পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর : সালিশি সভা বসিয়ে এক পরিবারকে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার নিদান দিল গ্রামের মাতব্বররা। মাতব্বরদের ভয়ে ঘরছাড়া পরিবার। ইতিমধ্যে পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। একটি ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রীতিমত সালিশি সভা বসিয়ে গ্রামেরই এক পরিবারকে অভিষুক্ত করে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা দেওয়ার নিদান গ্রামের মাতব্বরদের। টাকা আদায়ে জোর পূর্বক জমির দলিলের কপি নিয়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ। মাতব্বরদের ভয়ে বর্তমানে ঘর ছাড়া ওই পরিবার। ঘটনার সূত্রপাত গত ৩০ শে জুলাই রাত সাড়ে ন'টার পর চাকিরহাটে কাশীনাথ চাকির শ্রীহরি ডেকোরেটর্সে আগুন লেগে যায়। ক্ষতি হয় অনেকটাই। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসেও কীভাবে আগুন লাগল তা বুঝতে পারেনি। মালিকও বুঝতে পারেনি আগুন লাগার প্রকৃত কারণ। তবে সেদিনই তত্ব খাড়া করেছিলেন গোডাউনের মালিক কাশীনাথ চাকি।

    এই ঘটনার প্রায় এক সপ্তাহ পর ৬ অগাস্ট আগুন লেগে যাওয়া ডেকরেটরের মালিক কাশীনাথ চাকি গ্রামের কয়েকজন মাতব্বরদের নিয়ে ওই গ্রামেরই বাসিন্দা অন্য এক ডেকরেটরের মালিক তারকনাথ আড়িকে নানান অজুহাত দেখিয়ে পূর্ব মেদিনীপুরের পালপাড়ায় সুকুমার মাইতি নামে এক গনৎকারের কাছে নিয়ে যায়। সেখানে গনৎকার তারকনাথ বাবু ও তার ছেলে এই আগুন লাগানোর ঘটনায় যুক্ত বলে দাবি করেন সকলের সামনে।তারপরই ক্ষতিপূরণের বিধান দিয়ে তারকনাথ বাবুর পরিবারের উপর নানান চাপ তৈরি করা হয় বলে অভিযোগ ওঠে। গত ৬ অগাস্ট সন্ধ্যা থেকে তারকনাথ ও তার দুই ছেলে, ৯ মাসের শিশুর মা দিপালীর উপর প্রকাশ্যে জুলুম ও মারধর শুরু হয় বলে অভিযোগ ওঠে এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে।

    আরও পড়ুনঃ সোমবার বিকেল থেকেই সরকারি বাস সংস্থার যাত্রী টিকিট বুকিং বন্ধ!

    সন্ধ্যায় তাদের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় একটি জায়গায়। সেখানে একাধিক মানুষের সামনে জোর করে আগুন লাগানোর কথা স্বীকার করানো হয় ও সাদা কাগজে সই করে জমির দলিল কেড়ে নিয়ে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা জরিমানার নিদান দেয় মাতব্বররা। আক্রান্ত পরিবার ওখান থেকেই পুলিশকে জানালে দাসপুর থানার পুলিশ আসে ঘটনাস্থলে। উপরন্ত ওই পরিবারকে মাতব্বররা হুঁশিয়ারি দেয়, পুলিশের কাছে মুখ না খুলতে। এমনকি দোষীদের ঘর বাড়ি সম্পত্তি জোর করে দখল নিয়ে টাকা আদায় নেবে বলেও অভিযোগ ওঠে।

    আরও পড়ুনঃ শিলাবতী নদীতে তলিয়ে যাওয়া ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার

    আক্রান্ত পরিবারের ৯ অগাস্ট ওই পরিবার ঘাটাল মহকুমা পুলিশ আধিকারিকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন, বেশ কয়েকজন মাতব্বরদের বিরুদ্ধে। বর্তমানে প্রবল চাপে ভয়ে আড়ি পরিবার প্রাণ রক্ষার দায়ে সবাইকে নিয়ে ঘর ছাড়া। অন্যদিকে গ্রামের মোড়লরা শালিসি সভার কথা স্বীকার করলেও সেই সময় জোর করে সাদা কাগজে সই করানো এবং মারধরের কথা অস্বীকার করেছেন। ঘাটাল মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অগ্নীশ্বর চৌধুরী বলেন\" দুই দিনের দুটি ঘটনায় দুই পরিবারের পক্ষ থেকে দুটি অভিযোগ করা হয়েছে, পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে, গ্রামবাসীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। আগুন লাগানো, শালিসি সভা ডাকা, এই ঘটনায় যারা জড়িত আছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

    Partha Mukherjee
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর