Home /News /west-bardhaman /
West Bardhaman News : ঠিক যেন তপোবন! দুর্গাপুরের নগরবনে সিঙ্গাপুরের ছোঁয়া! জানুন

West Bardhaman News : ঠিক যেন তপোবন! দুর্গাপুরের নগরবনে সিঙ্গাপুরের ছোঁয়া! জানুন

নগরবন এলাকায় বৃক্ষরোপণ বিশিষ্টদের।

নগরবন এলাকায় বৃক্ষরোপণ বিশিষ্টদের।

West Bardhaman News : কেন্দ্রীয় সরকারের আর্থিক সহযোগিতায় দুর্গাপুরে গড়ে উঠতে চলেছে নগরবন। দুর্গাপুর ছাড়া এই রাজ্যের বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুরেও নগরবন তৈরি হবে।

  • Share this:

    #পশ্চিম বর্ধমান : কেন্দ্র সরকারের পরিবেশ মন্ত্রকের একটি বিশেষ প্রকল্পের অধীনে দুর্গাপুরে গড়ে উঠছে নগরবন। রাজ্যের বন দফতরের সঙ্গে সহযোগিতায় এই নগরবন গড়ে তোলা হচ্ছে দুর্গাপুরে। দেশ জুড়ে এই প্রকল্প চালু করেছে কেন্দ্র সরকার। তার মধ্যে রাজ্যের দুটি জেলায় তৈরি হবে নগর বন। প্রথমটি দুর্গাপুর এবং দ্বিতীয়টি বিষ্ণুপুর। সিঙ্গাপুরের আর্টিফিশিয়াল ফরেস্টের ধাঁচে এই নগর বন গড়ে উঠবে দুর্গাপুরে। যেখানে সবুজায়নের পাশাপাশি প্রকৃতির সঙ্গে একাত্ম হওয়ার সুযোগ পাবেন শহরের মানুষ।

    কেন্দ্রীয় সরকারের আর্থিক সহযোগিতায় দুর্গাপুরে শোভাপুর মৌজার অধীন কমলপুরে গড়ে উঠতে চলেছে নগরবন। দুর্গাপুর ছাড়া এই রাজ্যের বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুরেও নগরবন তৈরি হবে। ২৫ হেক্টর জমিতে ১ কোটি টাকা ব্যায়ে গড়ে ওঠা এই নগর বনে বয়স্কদের জন্য যেমন জগিং ট্র্যাক থাকবে, তেমনই ছোটদের বিনোদনের পার্ক থাকবে। অনেকটা পৌরানিক যুগের তপোবনের অনুকরণে তৈরি হবে নগর বন। নগর বনের জন্য চিহ্নিত জমিতে এদিন কিছু গাছ লাগান বনদফতরের কর্তারা।

    উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্যবনপাল কল্যাণ দাস। তিনি বলেন, শহর কেন্দ্রিক এই নগরবন মূলত দূষণ রোধের লক্ষ্য নিয়ে তৈরি করা হচ্ছে। পাশাপাশি মানুষকে প্রাণ ভরে অক্সিজেনের জোগান দেওয়ার জন্য তৈরি করা হচ্ছে এই নগরবন। এই বনে দেশীয় গাছ লাগানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

    জানা গিয়েছে, শহরের মধ্যে নির্দিষ্ট একটি এলাকাজুড়ে এখানে সবুজায়ন করা হবে। যেখানে বড় বড় বিভিন্ন গাছ থাকবে। পাশাপাশি থাকবে প্রচুর ছোট ছোট গাছ। একই জায়গায় থাকবে কিছু মরশুমি ফুলের গাছ। থাকবে মরশুমি ফলের গাছও। তাছাড়াও প্রকৃতির সঙ্গে যাতে মানুষ নিবিড় যোগাযোগ স্থাপন করতে পারে, তার জন্য তৈরি করা হবে একটি ইকোপার্ক। এর উদ্দেশ্য শহরে সবুজায়ন বাড়ানোর পাশাপাশি শহরবাসীর কাছে নতুন গন্তব্য তৈরি করা। যেখানে গিয়ে প্রকৃতির সঙ্গে আত্মস্থ হওয়া যাবে। তা ছাড়াও প্রাতঃভ্রমণের ব্যবস্থার পরিকল্পনাও থাকছে।

    অন্যদিকে এখানে বিরল কিছু গাছ লাগানো হবে। যেখান থেকে চারপাশে দেখতে না পাওয়া বিভিন্ন উদ্ভিদ সম্পর্কে অনেকেই ধারনা পাবেন। নগরবন প্রকল্পের এলাকায় কিছু জলাশয়ও থাকবে। যেখানে জলের ওপর বেঁচে থাকা উদ্ভিদ যেমন পদ্ম, শালুক ইত্যাদি গাছের চাষ করা হবে। অন্যদিকে নির্দিষ্ট জায়গা চিহ্নিত করে বেশ কিছু বিরল গাছ থাকবে। এই নগরবন এলাকায় জলাশয় থাকবে। যেখানে জল নির্ভর উদ্ভিদগুলি রোপণ করা হবে। তবে ধাপে ধাপে সাজিয়ে তোলা হবে এই নগরবন।

    Nayan Ghosh

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Durgapur, Nagarban, West bengal

    পরবর্তী খবর