Home /News /west-bardhaman /
West Bardhaman News: আলু দিয়ে মাছের ঝোল এখন অতীত! বাজারে হাত পুড়ছে মধ্যবিত্তের

West Bardhaman News: আলু দিয়ে মাছের ঝোল এখন অতীত! বাজারে হাত পুড়ছে মধ্যবিত্তের

আসানসোলের

আসানসোলের একটি সবজি এবং মাছের বাজারে আগের তুলনায় ভিড় অনেক কম।

আলু কিনতে গিয়ে পকেট গড়ের মাঠ হয়ে যাচ্ছে মানুষের। মাছ-ভাত প্রিয় বাঙালির কাছে প্রত্যেকদিনের পাতে মাছ তুলে নেওয়া বেশ অস্বস্তিদায়ক হয়েছে

  • Share this:

    #আসানসোলবাজার করতে এসে আকাশছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধির জেরে নাজেহাল সাধারণ মানুষ। বাজারে গিয়ে পকেটে ছ্যাঁকা লাগছে মধ্যবিত্তের। ঊর্ধ্বমুখী দামের জেরে সাধারণ মানুষকে কার্যত বাজার থেকে খালি হাতেই বাড়ি ফিরতে হচ্ছে। ক্রেতাদের খালি হাতে ফিরতে দেখে হতাশ হচ্ছেন বিক্রেতারাও। তবুও ক্রেতাদের সুরাহার জন্য তারা কম দাম নিতে পারছেন না। কারণ তাদের পাইকারি মূল্যে অনেক বেশি টাকা দিয়ে জিনিস কিনতে হচ্ছে। শুধুমাত্র আলু কিনতে গিয়ে পকেট গড়ের মাঠ হয়ে যাচ্ছে মানুষের। মাছ-ভাত প্রিয় বাঙালির কাছে প্রত্যেকদিনের পাতে মাছ তুলে নেওয়া বেশ অস্বস্তিদায়ক হয়েছে। কারণ সাধারণ রুই, কাতলা মাছ বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি সাড়ে তিনশো থেকে চারশো টাকায়। যে আলু কিছুদিন আগে পর্যন্ত ১৮ টাকা কেজি দরে পাওয়া যাচ্ছিল, সেই আলু এখন কেজি প্রতি ২৮ থেকে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

    শুধু আলু বা মাছ নয়, অন্যান্য শাক সবজির দাম বেড়েছে অনেকটাই। ঝিঙে, পটল, বরবটি - ইত্যাদি সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী। পাশাপাশি বেড়েছে বিভিন্ন ফলের দাম। এই মুহূর্তে বাজার দর আকাশছোঁয়া। কিন্তু এই ব্যাপক মূল্য বৃদ্ধির কারণ কী? খুচরা বিক্রেতারা মনে করছেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির জন্য পরিবহন খরচ বেড়েছে। যে কারণে ব্যাপকভাবে বেড়েছে মূল্য। বাজারে আলু থেকে শুরু করে শাক সবজির দাম এই কারণেই বৃদ্ধি বলে তারা মনে করছেন।

    খুচরো বিক্রেতাদের দাবি, যতদিন পর্যন্ত না জ্বালানি তেলের দাম কম হবে, ততদিন এই মূল্যবৃদ্ধি রোখা যাবে না। অন্যদিকে ক্রেতারা এই মূল্যবৃদ্ধির জেরে রীতিমতো আতঙ্কিত। তারা বলছেন, এই মূল্য বৃদ্ধির ব্যাপারে সরকার পদক্ষেপ না করলে, সাধারণ মানুষের সুস্থভাবে বেঁচে থাকা দুষ্কর হবে।

    Nayan Ghosh
    Published by:Samarpita Banerjee
    First published:

    Tags: Fish Market, Potato Price Hike, West Bardhaman

    পরবর্তী খবর