Home /News /west-bardhaman /
Paschim Bardhaman: স্বস্তির বৃষ্টিতে অস্বস্তি বাড়ছে বামুনারায়

Paschim Bardhaman: স্বস্তির বৃষ্টিতে অস্বস্তি বাড়ছে বামুনারায়

title=

স্বস্তির বৃষ্টিতে অস্বস্তি বাড়ছে দুর্গাপুর সংলগ্ন বামুনারা এলাকার মানুষজনের। পোকার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছেন স্থানীয় মানুষজন। সমস্যা মাঝেমধ্যে এতটা গুরুতর হচ্ছে যে, ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হচ্ছে।

  • Share this:

    পশ্চিম বর্ধমান : স্বস্তির বৃষ্টিতে অস্বস্তি বাড়ছে দুর্গাপুর সংলগ্ন বামুনারা এলাকার মানুষজনের। পোকার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছেন স্থানীয় মানুষজন। সমস্যা মাঝেমধ্যে এতটা গুরুতর হচ্ছে যে, ব্যবসা বন্ধ করে দিতে হচ্ছে। স্থানীয় মানুষজনকে বিদ্যুৎ থাকা সত্ত্বেও অন্ধকারে থাকতে হচ্ছে বাড়িতে বদ্ধ হয়ে। রাস্তা চলাচল করতে গিয়ে সমস্যায় পড়ছেন পথচারী থেকে বাইক চালক, গাড়ি চালকরা। ঘরের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে খাবার, সব জায়গাতে বিরাজ করছে পতঙ্গ। তার ফলে দুর্গাপুরের বামুনারা এলাকার মানুষজন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। স্থানীয়দের অভিযোগ বৃষ্টি হওয়ার পরেই এই পোকার অত্যাচার বাড়ছে এলাকায়। বামুনারা এলাকার মানুষজন বলছেন, এই পোকার নাম বাদল পোকা। বৃষ্টি হওয়ার পরেই এই পতঙ্গের দেখা মেলে। সাধারণত কখনও কখনও বৃষ্টি হওয়ার আগে এই পতঙ্গকুলের দেখা পাওয়া যায়। সেজন্যই এই পতঙ্গের নাম বাদল পোকা।

    স্থানীয়দের অভিযোগ, বৃষ্টি হওয়ার পরে হাজারে-হাজারে এই পোকা এসে জমা হচ্ছে এলাকায়। তারা বলছেন, আগেও এই পোকার দেখা পাওয়া যেত। তবে তা সংখ্যায় অনেক কম ছিল। ফলে সমস্যা বিশেষ হত না। কিন্তু চলতি বছরে এই সমস্যা অনেক বেড়ে গিয়েছে। কারণ এই পতঙ্গের দল লক্ষের সংখ্যায় এসে এলাকাজুড়ে দাপাদাপি চালাচ্ছে। ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে।

    আরও পড়ুনঃ শতাব্দী ছুঁতে চলা হাট সাজিয়ে তুলতে উদ্যোগী জেলা প্রশাসন

    মূলত আলোর দিকে আকর্ষিত হয়ে ছুটে যাচ্ছে এই সমস্ত পোকার দল। ফলে যে সমস্ত বাড়িতে আলো জ্বলছে, সেখানে গিয়ে হাজির হচ্ছে তারা। সে জন্য বাধ্য হয়ে একপ্রকার অন্ধকারে দিন কাটাতে হচ্ছে স্থানীয় মানুষজনকে। তাছাড়াও রাস্তায় চলাচল করতে গিয়ে বাইক চালক এবং গাড়ি চালকরা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। এলাকার মানুষজন দ্রুত এই সমস্যার মুক্তি চাইছেন। প্রশাসনের সাহায্য চাইছেন।

    আরও পড়ুনঃ মুখ্যমন্ত্রীর সভাস্থল পরিদর্শনে জেলাশাসক, কমিশনার

    হটাৎ করে পোকার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায়, তারা রীতিমতো চিন্তিত। কেন চলতি বছরে হঠাৎ করে এত বেশি পরিমাণে পতঙ্গের দল এসে হাজির হচ্ছে, তা নিয়ে চিন্তিত সকলেই। তারা চাইছেন, এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণের উপায় পেতে। আর বৃষ্টির সময় দিন কাটাচ্ছেন আতঙ্কে।

    Nayan Ghosh
    First published:

    Tags: Durgapur, Paschim bardhaman

    পরবর্তী খবর