Home /News /technology /
গুগলের নয়া নিয়মের জেরে কোপ, বন্ধ হতে চলেছে Truecaller-এর কল রেকর্ডিং ফিচার

গুগলের নয়া নিয়মের জেরে কোপ, বন্ধ হতে চলেছে Truecaller-এর কল রেকর্ডিং ফিচার

Truecaller to stop call recording feature: কল রেকর্ডিংয়ের সমস্ত অ্যাপ বন্ধ করার কথা আগেই জানিয়েছে গুগল (Google)

  • Share this:

    Truecaller to stop call recording feature: কল রেকর্ডিংয়ের সমস্ত অ্যাপ বন্ধ করার কথা আগেই জানিয়েছে গুগল (Google)। এবার সেই পথে হেঁটে ট্রুকলারও (Truecaller) জানিয়ে দিল, তারাও সারা বিশ্বেই এই কল রেকর্ডিং ফিচার বন্ধ করে দিচ্ছে!

    সম্প্রতি জানা গিয়েছে যে, থার্ড-পার্টি কল রেকর্ডিং অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ (Third-party call recording android app) বন্ধ করতে বড়সড় পদক্ষেপ করতে চলেছে। গুগলের জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, আগামী ১১ মে থেকে গুগল প্লে স্টোরে আর পাওয়া যাবে না কল রেকর্ডিংয়ের (Call recording) জন্য ব্যবহৃত সমস্ত অ্যাপ। শুধু তা-ই নয়, অ্যান্ড্রয়েডের যে কোনও বৈধ কল রেকর্ডিং অ্যাপও আর ওই সময় থেকে কাজ করবে না। তাহলে কেউ কল রেকর্ড করতে চাইলে কী করবেন? জানা যাচ্ছে যে, ফোনে কথা বলার সময় কল রেকর্ড করার ক্ষেত্রে এখন একমাত্র ভরসা স্মার্টফোনের ইন-বিল্ট কল রেকর্ডিং ফিচার (Inbuilt call recording feature)। তাই যেসব ব্যবহারকারীর ফোনে এই ফিচার থাকবে না, তাঁরা ১১ মে-র পর থেকে আর কল রেকর্ড করার সুবিধা পাবেন না।

    আরও পড়ুন - এই গ্রীষ্মে গরম হয়ে যাচ্ছে সাধের স্মার্টফোন? দেখে নিন গরম থেকে ফোন বাঁচানোর ৫টি উপায়

    আরও পড়ুন - অল্পতেই অত্যন্ত ঠান্ডা, সামান্য বিদ্যুতের বিল? স্টাইলিশ লুক, হাজার কামাল

    এদিকে ভারতের ডায়লার অ্যাপগুলির মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় ট্রুকলার। ভারতবর্ষের বেশির ভাগ স্মার্টফোন (Smartphone) ব্যবহারকারীই এই অ্যাপ ব্যবহার করে থাকেন। সেই সঙ্গে এই অ্যাপ ভয়েস কল রেকর্ড (Voice call record) করারও সুবিধা দেয়। এমনকী আমাদের দেশে ট্রুকলার অ্যাপের মধ্যে সবথেকে জনপ্রিয় ফিচারই হল কল রেকর্ডিং। কিন্তু সেই ফিচারই এবার বন্ধ করে দেবে এই অ্যাপ। ট্রুকলারের এক মুখপাত্র বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, “গ্রাহকদের কথা ভেবেই আমরা সব অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের জন্য এই কল রেকর্ডিং সুবিধা চালু করেছিলাম। আর এই সুবিধা গ্রাহকরা বিনামূল্যেই ব্যবহার করতে পারতেন। এই ফিচার ছিল অনুমতি ভিত্তিক এবং গুগল অ্যাকসেসিবিলিটি এপিআই (Google Accessibility API) এনেবল করেই ব্যবহারকারীরা এটা ব্যবহার করতে পারতেন। যাইহোক এখন নতুন গুগল ডেভেলপার প্রোগ্রাম পলিসি অনুযায়ী, আমরা আর এই কল রেকর্ডিংয়ের সুবিধা দিতে পারব না।”

    সেই সঙ্গে ট্রুকলার আশ্বস্ত করেছে যে, যেসব ফোনে আগে থেকেই ইন-বিল্ট কল রেকর্ডিংয়ের সুবিধা আছে, এই নতুন নিয়মের জেরে তাদের উপর কোনও কোপ পড়বে না। আসলে শাওমি, স্যামসাং, ওয়ানপ্লাস, ওপ্পো-র মতো স্মার্টফোনে বিল্ট-ইন কল রেকর্ডার ফিচার থাকে। ১১ মে-র পরও তাই এই সব সংস্থার ফোনে কল রেকর্ড করা যাবে।

    কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, আচমকা কেন এমন সিদ্ধান্ত নিল গুগল? আসলে কয়েক বছর ধরেই কল রেকর্ডিংয়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করে আসছে গুগল। অ্যান্ড্রয়েড ১০ ভার্সন যখন বাজারে এসেছিল, তখন গুগলের তরফে বলা হয়েছিল যে, এই ভার্সনের ব্যবহারকারীরা কল রেকর্ডিং ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন না। আর এটা করা হচ্ছে গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তা রক্ষার স্বার্থেই। ট্রুকলার-সহ সমস্ত কল রেকর্ডিং অ্যাপই এই ফিচারের জন্য অ্যাকসেসিবিলিটি এপিআই ব্যবহার করত। এবার অ্যাকসেসিবিলিটি এপিআই নানা রকম ক্ষেত্রেই অন্তর্ভুক্ত। আর তার ফলে প্রতারক বা অসৎ ডেভেলপাররা ব্যবহারকারীর উপর নজরদারি চালাতে এই ধরনের অনুমতির অপব্যবহার করতে থাকে। এই কারণেই এবার কল রেকর্ডিংয়ের ক্ষেত্রে অ্যাকসেসিবিলিটি এপিআই যাতে কেউ ব্যবহার করতে না-পারেন, তার জন্যই এটা বন্ধ করে দিতে চলেছে গুগল। অর্থাৎ এর জেরে সমস্ত থার্ড-পার্টি অ্যাপ নিজেদের মূল কার্যকারিতা হারাতে চলেছে।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Google, Truecaller

    পরবর্তী খবর