• Home
  • »
  • News
  • »
  • technology
  • »
  • মেড ইন ইন্ডিয়া নয়,চিনা TikTok-কে টক্কর দেওয়া অ্যাপ ‘মিত্রো’ আসলে পাকিস্তানি অ্যাপ!

মেড ইন ইন্ডিয়া নয়,চিনা TikTok-কে টক্কর দেওয়া অ্যাপ ‘মিত্রো’ আসলে পাকিস্তানি অ্যাপ!

News18 এর রিপোর্টে দাবি, মাত্র ২৬০০ টাকায় এর সোর্স  কোড কেনা হয়েছে পাকিস্তানি সফটওয়্যার কোম্পানি  Qboxus-থেকে৷

News18 এর রিপোর্টে দাবি, মাত্র ২৬০০ টাকায় এর সোর্স কোড কেনা হয়েছে পাকিস্তানি সফটওয়্যার কোম্পানি Qboxus-থেকে৷

News18 এর রিপোর্টে দাবি, মাত্র ২৬০০ টাকায় এর সোর্স কোড কেনা হয়েছে পাকিস্তানি সফটওয়্যার কোম্পানি Qboxus-থেকে৷

  • Share this:

    #মুম্বই: জনপ্রিয় অ্যাপ TikTok-কে টক্কর দেওয়া মিত্রো অ্যাপ নিয়ে বিস্ফোরক তথ্য প্রকাশ্যে ৷ News18 এর রিপোর্ট অনুযায়ী, মেড ইন ইন্ডিয়া বলে প্রচার পাওয়া এই অ্যাপ আদতে ভারতে তৈরি নয় ৷ কোনও আইআইটি ছাত্রও এটি বানায়নি ৷ অ্যাপটি আসলে পাকিস্তানি, তৈরি হয়েছে পাকিস্তানে ৷

    চিনা দ্রব্য বর্জনের সঙ্গে সঙ্গেই চিনা অ্যাপ টিকটকও বর্জনের তালিকায় ৷ এরই মাঝে ‘ভারতের তৈরি’ এই অ্যাপ এমন প্রচারে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে মিত্রো অ্যাপ ৷ কিন্তু News18 এর রিপোর্টে দাবি, মাত্র ২৬০০ টাকায় এর সোর্স  কোড কেনা হয়েছে পাকিস্তানি সফটওয়্যার কোম্পানি  Qboxus-থেকে৷ মিত্রো অ্যাপকে নিয়ে এমন খবর বাইরে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নেটিজিনজেনদের মধ্যে ৷  এই অ্যাপটি একদম চিনের টিকটক অ্যাপের মতো কাজ করে। টিকটক ভিডিও বানানো এবং শেয়ার করা আজকাল ইয়ং জেনারেশনের কাছে নতুন ফ্যাশন। তারকা থেকে সাধারণ মানুষ, সকলেই মজে ছিলেন TikTok ভিডিও বানাতে৷ তাই কিছুদিনের মধ্যেই জনপ্রিয়তায় অনেক অ্যাপকে পিছনে ফেলে দিয়েছিল এই অ্যাপটি৷ নতুন এই Mitron App লঞ্চ হওয়ার এক মাসের মধ্যেই প্রায় ৫০ লক্ষ নেটিজেন এই অ্যাপ মোবাইলে ডাউনলোড করে ফেলেছেন। কিছু সপ্তাহ আগেই TikTok অ্যাপ বন্ধ করা নিয়ে সোরগোল শুরু হয়েছিল৷ কারণ এতে একটি ভিডিও আপলোড হয়েছে যাতে অ্যাসিড অ্যাটাকের মত ঘটনাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে৷ এবং এর ফলেই চটেছেন নেটিজেনরা৷ এরপরই শুরু হয় বিতর্ক৷ জাতীয় মহিলা কমিশন জানায় যে TikTok কর্তৃপক্ষকে এই ভিডিওটি সরানোর দাবি জানিয়েছেন তারা৷ এই ভিডিওটি অ্যাসিড আক্রান্তদের ছোট করেছে এবং মহিলা নির্যাতনর কথা বলেছে, যা অপরাধ৷ এরপর থেকেই #BanTikTok-র প্রচার শুরু করেছেন নেটিজেনরা৷ TikTok নিয়ে চলছে নেতিবাচক প্রচার৷ ফলে এই অ্যাপের রেটিং অনেকটা কমেছে৷ ৫ স্টারে ২ থেকে ২.৫ স্টার রেটিং দেওয়া শুরু করেন ভারতীয় গ্রাহকরা। শুধু তাই নয, সমস্ত চিনা দ্রব্য বয়কটের সঙ্গে সঙ্গেই থ্রি ইডিয়ট খ্যাত বিজ্ঞানী সোনাম ওয়াংচুকও এই টিকচিক অ্যাপ ব্যবহারও বন্ধ করতে আর্জি জানিয়েছেন ৷ তা ডাকে এগিয়ে এসেছে বলিউড অভিনেতা-মডেল মিলিন্দ সুমনও ৷ আর এই সুযোগেই জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে নিয়েছে ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই মিত্রো অ্যাপ। জানা গিয়েছে, গুগল প্লে স্টোরে জনপ্রিয় ও পছন্দসই অ্যাপ্লিকেশনের তালিকায় নিজের জায়গা করে নিয়েছে মিত্রো অ্যাপসও। তালিকার ৭ নম্বরে এই রয়েছে এই অ্যাপ্লিকেশন। জনপ্রিয়তা সূচকে মিত্রো অ্যাপের রেটিং ৪.৭।
    Published by:Elina Datta
    First published: