আমেদাবাদে মাঠে নামার আগে জিমে ফিটনেস চর্চা বিরাটের

আমেদাবাদে মাঠে নামার আগে জিমে ফিটনেস চর্চা বিরাটের
চূড়ান্ত প্রস্তুতি, জিমে ফিটনেস চর্চায় ব্যস্ত বিরাট

কোহলি অবশ্য নেটে নামার আগেই হোটেলের জিমে ঘাম ঝরাতে শুরু করে দিয়েছেন। কার্ডিও করার পাশাপাশি চলছে ওয়েট ট্রেনিং।

  • Share this:

    #আমেদাবাদ: বৃহস্পতিবার আমেদাবাদের পৌঁছে গিয়েছে টিম ইন্ডিয়া। সিরিজের তৃতীয় টেস্ট শুরু হবে বুধবার থেকে। তার আগে হোটেলের ভেতরেই নিভৃতবাস পর্ব কাটাচ্ছে দল। দিন দুয়েকের ভেতর নেট সেশন শুরু হবে। পিঙ্ক বলে খেলা হবে। দিন রাতের টেস্ট। তাই আমেদাবাদে চ্যালেঞ্জটা অন্যরকম। গোলাপি বলে খুব বেশি খেলেনি ভারত। গত বছর ইডেনে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে একমাত্র পিঙ্ক বল টেস্ট খেলেছিল ভারত। শামি, ইশান্তরা সহজেই জিতেছিলেন ওই টেস্টে। কিন্তু এবারের প্রতিপক্ষের নাম ইংল্যান্ড।

    ভারতের থেকে যাঁদের গোলাপি বলে খেলার অভিজ্ঞতা বেশি। যদিও এস জি বলে নয়, কোকাবুরা এবং ডিউক বলেই খেলেছে রুট ব্রিগেড, তাই এস জি বল কীরকম আচরণ করবে জানা নেই তাঁদের। তবে সেটা অনুশীলনে বুঝে নেওয়ার সুযোগ থাকছে ইংলিশদের সামনে। বিরাট কোহলি দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংস ব্যর্থ হলেও দ্বিতীয় ইনিংসে রান পেয়েছিলেন। ইংলিশ বোলারদের বিরুদ্ধে নিজের স্টান্স কিছুটা বদলেছেন ভারত অধিনায়ক।

    তবে তিনি নিজেও জানেন আমেদাবাদ টেস্টে লড়াইটা সহজ নয়। চেন্নাইয়ে যেমন স্পিন সহায়ক উইকেট ছিল, এখানে ততটা স্পিন সহায়ক উইকেট হবে না। বরং কিছুটা হলেও সুবিধে পাবে পেসাররা। কোহলি অবশ্য নেটে নামার আগেই হোটেলের জিমে ঘাম ঝরাতে শুরু করে দিয়েছেন। কার্ডিও করার পাশাপাশি চলছে ওয়েট ট্রেনিং।


    ভারতকে এই ম্যাচ জিততে হলে কোহলিকে সামনে থেকে ব্যাট হাতে রান করতে হবে সেটা জানেন ভারত অধিনায়ক। ফিটনেসে কোনও খামতি রাখতে চান না। পরপর চারটি টেস্টে হেরেছিলেন অধিনায়ক হিসেবে। চেন্নাইতে দ্বিতীয় টেস্টে দুর্দান্ত কামব্যাক করে টিম ইন্ডিয়া। বিশাল ব্যবধানে জয় পায়। এই জয়ের ফলে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে কোহলি ব্রিগেড।

    শারদুল ঠাকুরকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বিজয় হাজারের জন্য। বদলি হিসেবে আসতে চলেছেন উমেশ যাদব। ফিটনেস টেস্টের পরেই উমেশের নাম ঘোষণা হবে। বুমরাহ ফিরবেন নিশ্চিত। তাঁর সঙ্গে ইশান্ত এবং উমেশ হতে চলেছেন দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পেসার। উমেশ না পারলে সিরাজ আসবেন দলে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: