Home /News /sports /
SC East Bengal vs Chennaiyin: দুই গোল হজম করে অসাধারণ কামব্যাক ইস্টবেঙ্গলের, চেন্নাইকে রুখে দিল লাল হলুদ

SC East Bengal vs Chennaiyin: দুই গোল হজম করে অসাধারণ কামব্যাক ইস্টবেঙ্গলের, চেন্নাইকে রুখে দিল লাল হলুদ

ফ্রিকিক থেকে বিশ্বমানের গোল করলেন সিডল

ফ্রিকিক থেকে বিশ্বমানের গোল করলেন সিডল

SC East Bengal denied Chennaiyin FC chance to rise third spot in ISL. পিছিয়ে পড়েও দুরন্ত কামব্যাক করে চেন্নাই এক্সপ্রেস' থামিয়ে দিল ইস্টবেঙ্গল

  • Share this:

    ইস্টবেঙ্গল -২ চেন্নাইন এফসি -২

    গোয়া: সম্মানের ডার্বি হেরে যাওয়ার পর এই লড়াইটা করবে ইস্টবেঙ্গল হয়তো অনেকে কল্পণা করতে পারেনি। বড় ম্যাচেও শেষের কয়েক মিনিট বাদ দিলে ইস্টবেঙ্গল লড়াকু ফুটবল উপহার দিয়েছিল। কিন্তু সেদিন কপাল সহায় ছিল না। আজ লড়াই এর দাম পাওয়া গেল। আইএসএলে চেন্নাইয়িন এফসির বিরুদ্ধে এই নিয়ে চতুর্থ ম্যাচ ড্র রাখল এসসি ইস্টবেঙ্গল। তা সম্ভব হল অসাধারণ লড়াই আর কামব্যাকে।

    আরও পড়ুন - U19 World Cup, IND vs AUS: ইয়াশের শতরান, রশিদের ব্যাটে অজিদের বিরুদ্ধে সেমিতে লড়াকু রান ভারতের

    ম্যাচের ১৪ মিনিটের মধ্যে জোড়া গোল হজমের পরও হতোদ্যম না হয়ে যে লড়াই এদিন তিলক ময়দানে মারিও রিভেরার দল দেখাল তা মনে রাখবেন সমর্থকরা। ম্যাচের সেরা ড্যারেন সিডল ও পরিবর্ত হিসেবে নামা তেরিনা নামতের বিশ্বমানের গোল রুখে দিল চেন্নাইয়িন এফসির অগ্রগমন। চলতি আইএসএলে দুই দলের প্রথম সাক্ষাত গোলশূন্যভাবে শেষ হয়েছিল। এদিন অবশ্য শুরুতেই গোল পেয়ে যায় চেন্নাইয়িন এফসি।

    জেরি লালরিনজুয়ালা লাল হলুদ বক্সে যে দুরন্ত ক্রসটি রেখেছিলেন তাতে মাথা ছোঁয়ান সুহেল পাশা। বলের গতি এতটাই বেশি ছিল যে পা সরাতে পারেননি হীরা মণ্ডল। বলটি তাঁর পায়ে লেগে জালে জড়িয়ে যায়। আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে এসসি ইস্টবেঙ্গল। এক্ষেত্রে হীরাকে দায়ী করা না গেলেও চেন্নাইনের দ্বিতীয় গোলটি কিন্তু হীরার বড় ভুলের কারণেই।

    হীরার মিস পাস ধরে অনবদ্য দক্ষতায় অরিন্দম ভট্টাচার্যকে জোরালো শটে পরাস্ত করেন নিন্থোই। তবে রিভেরা এসে এসসি ইস্টবেঙ্গলকে যে বদলে দিয়েছেন তা বোঝা যায় দুই গোল হজমের পরেই। যে লড়াইয়ের জন্য পরিচিত এসসি ইস্টবেঙ্গল সেই চেনা মেজাজের লড়াকু লাল হলুদকেই পাওয়া গেল আজ। প্রথমার্ধে খুব বেশি আক্রমণ তুলে আনতে না পারলেও বা চেন্নাইয়িনের গোলকিপার দেবজিৎ মজুমদারকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে না পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে প্রশংসনীয় ফুটবল উপহার দিল রিভেরার দল।

    ৬১ মিনিটের বিশ্বমানের ফ্রিকিক থেকে ব্যবধান কমান লাল হলুদের ড্যারেন সিডল। এরপরেও ক্রমাগত গোল শোধের মরিয়া প্রয়াস চালিয়ে যেতে থাকে এসসি ইস্টবেঙ্গল। ৭৭ মিনিটে জোড়া পরিবর্তন লাল হলুদের খেলাকে আরও ছন্দময় করে তোলে। আন্তোনিও পেরোসেভিচ ও সৌরভ দাসের জায়গায় ফ্রান সোতা ও লালরিনলিয়ানা নামতেকে নামান রিভেরো। ৮৬ মিনিটে আদিল খান ও হীরা মণ্ডলের জায়গায় নামানো হয় মহম্মদ রফিক ও রাজু গায়কোয়াড়কে।

    রাজুর লম্বা থ্রো লাল হলুদের আক্রমণকে শক্তিশালী করে তোলে। রাজুর থ্রো চেন্নাইয়ের এক ফুটবলারের গায়ে লেগে প্রায় গোলে ঢুকেই যাচ্ছিল, ঝাঁপিয়ে পড়ে বাঁচান দেবজিৎ। লাল হলুদ হ্যান্ডবল হয়েছে বলে দাবি করলেও রেফারি পেনাল্টি দেননি। তবে ওয়াহেংবামের কর্নার থেকে দুরন্ত হেডে আইএসএলে নিজের প্রথম গোলটি করেন নামতে।

    সমতা ফেরায় লাল হলুদ। ১৫ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে এসসি ইস্টবেঙ্গল উঠে এলো ১০ নম্বরে। ১৪ ম্যাচে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে উঠে গেল চেন্নাইয়িন। মারিও রিভেরা জানান প্রত্যেকে লড়াই করেছে বলের জন্য। এই ম্যাচ ইস্টবেঙ্গল জিততেও পারত। তবে ছেলেদের লড়াইয়ে তিনি খুশি।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    Tags: ISL, SC East Bengal

    পরবর্তী খবর