• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • OTHER SPORTS TOKYO OLYMPICS GOLD MEDALIST NEERAJ CHOPRA SAYS BIOPIC NOT HIS PRIORITY AT THE MOMENT RRC

Neeraj Biopic : এখনই বায়োপিক ভাবনায় নেই সোনার ছেলে নীরজের

অবসর নেওয়ার পর বায়োপিক নিয়ে ভাববেন নীরজ

Neeraj Chopra says biopic not his priority at the moment. বায়োপিক যখন অবসর নেবেন তখন ভাববেন নীরজ। মজা করে জানিয়েছেন বায়োপিক করার মত আরো বেশি পদক জিতে সিনেমার মশলা বাড়াতে চান

  • Share this:

    #টোকিও: ভারতের সোনার ছেলে। সুদর্শন তো বটেই। উচ্চতা, লম্বা চুল এবং পেশীবহুল বাহু। বলিউডের অনেক নায়কের থেকে হ্যান্ডসাম তিনি। তাঁকে পছন্দ করেন এমন তালিকা ক্যাটরিনা কাইফ থেকে শুরু করে আরো কয়েকজন নায়িকা আছেন। অভিনয় নামার প্রস্তাব আগেই পেয়েছিলেন। কিন্তু নাকচ করে দেন। তার ফল সকলের চোখের সামনে। ভারতের অলিম্পিক ইতিহাসে নতুন সূর্যোদয় ঘটিয়েছেন তিনি।

    দেশে ফিরে মায়ের হাতের চুরমা এবং গোলগাপ্পা খাবেন বলে মুখিয়ে আছেন। কথা উঠছে তাঁকে নিয়ে বলিউডে বায়োপিক করার। দাবিটা এমন কিছু অযৌক্তিক বলা যাবে না। কিন্তু নীরজ এখনই এসব নিয়ে ভাবতে চান না। পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন এই মুহূর্তে নিজের ক্যারিয়ার ছাড়া অন্যদিকে মন দেবেন না। দেশের হয়ে আরও পদক জিততে চান। আরো সম্মান নিয়ে আসতে চান।

    পরের বছর এশিয়ান গেমস এবং কমনওয়েলথ গেমসে স্বর্ণপদক জেতা প্রাথমিক লক্ষ্য। নিজের জ্যাভলিন ছোঁড়ার দূরত্ব বাড়িয়ে ৯০ মিটার করতে চান। তারপর প্রস্তুতি নেবেন প্যারিসের জন্য। বায়োপিক যখন অবসর নেবেন তখন ভাববেন। মজা করে জানিয়েছেন বায়োপিক করার মত আরো বেশি পদক জিতে সিনেমার মশলা বাড়াতে চান। বায়োপিক করার অনেক সময় পাওয়া যাবে। কিন্তু এখন অন্যদিকে মন দেওয়ার কোন ভাবনা নেই।

    যে জিনিসের জন্য তার পরিচয়, সেটাই তার ধ্যানজ্ঞান। অলিম্পিক্সে তাঁর নিজের হাতের তৈরি ছাত্র নীরজ চোপড়া জ্যাভলিন থ্রোতে দেশকে সোনা জিতিয়েছেন৷ ২০১৬ তে নীরজ চোপড়াকে তিনি পেয়েছিলেন তখন একেবারে বন্য জ্যাভলিন ছোঁড়ার ধরণ ছিল৷ কিন্তু ২০১৮ তে অনেকটা উন্নতি হয়, ২০১৯ ভাল পারফর্ম করতে শুরু করেন তিনি৷

    কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে ২০২০তে একটি টুর্নামেন্টে খেলতে পেরেছিলেন নীরজ চোপড়া (Neeraj Chopra) ৷ এতেই রীতিমতো ক্ষুব্ধ নীরজ চোপড়ার কোচ Uwe Hohn ৷ তিনি বলেছেন প্রাক্তন হাই পারফরমার ডিরেক্টর ভলকের হারমান যে পদ্ধতি শুরু করেছিলেন সেটা খুবই ভাল ছিল৷ অ্যাথলেটিক্সের পরিকাঠামোর বাইরের উন্নয়ন ছিল ৷ কিন্তু সাই (SAI) ও এএফআই (AFI) এমন মানুষদের দ্বারা পরিচালিত হয় তারা থাকতে কোনও পরিবর্তন আনা দুঃসাধ্য৷ তিনি আরও বলেছেন, এগুলি অশিক্ষা বা কম জানা -র থেকে এরকম কিনা তা তিনি জানেন না৷

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: