corona virus btn
corona virus btn
Loading

নিউজ18 বাংলার খবরে সিলমোহর, অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেল এ বছরের আইপিএল

নিউজ18 বাংলার খবরে সিলমোহর, অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেল এ বছরের আইপিএল

বুধবার বোর্ডের তরফে সব ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: নিউজ18 বাংলার খবরে সিলমোহর। অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেল ২০২০ সালের আইপিএল। বুধবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিল বিসিসিআই।সেই খবর নিউজ18 বাংলাকে জানালেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তবে আইপিএল-১৩ আপাতত বাতিল করা হচ্ছে না। সেপ্টেম্বর মাসে আইপিএল নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। অর্থাৎ লকডাউন উঠে গেলেও মে জুন,জুলাই,অগাস্ট মাস পর্যন্ত আইপিএল হবে না। বোর্ড সূত্রে খবর সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর মাসের উইন্ডোতে আইপিএল করার ভাবনা কর্তাদের। বুধবার বোর্ডের তরফে সব ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়।টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকের পর আইপিএল নিয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়।

বেশ কয়েকদিন ধরেই আইপিএল ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করছিলেন বোর্ড কর্তারা। আইপিএল যে অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হবে, সেই সিদ্ধান্ত দিন কয়েক আগেই নিয়ে ফেলেন সৌরভ, জয় শাহরা। নিউজ18 বাংলার ওয়েবে সেই খবর প্রকাশিত হয়। আসলে প্রধানমন্ত্রীর লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি পর্যন্ত অপেক্ষা করেছিলেন বোর্ড কর্তারা। বুধবার টেলিকনফারেন্সে আইপিএল অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে সিদ্ধান্ততে সিলমোহর  দিয়ে দেন সৌরভরা। এদিন  সৌরভ, জয় শাহ-সহ বৈঠকে ছিলেন আইপিএল কমিটির চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল।

আইপিএলের কোনও বীমা অর্থাৎ ইনস্যুরেন্স নেই। তাই টুর্নামেন্ট একান্ত না আয়োজন করতে পারলে বিপুল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড ও সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজি। তাই আইপিএল বাতিল ঘোষণা করলেন না বোর্ড কর্তারা।

নির্দিষ্ট সূচি অনুযায়ী ২৯ মার্চ শুরু হওয়ার কথা ছিল আইপিএল। কিন্তু ভারতে করোনা প্রভাব বাড়তে থাকায় গত মাসেই ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত আইপিএল পিছিয়ে দেওয়া হয়। ১৫ এপ্রিলের পর আইপিএল নিয়ে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা ছিল। বোর্ড কর্তারা ভেবেছিলেন লকডাউন উঠে গেলে ছোট আকারে প্রয়োজনে দর্শকশূন্য গ্যালারিতে আইপিএল আয়োজন করবেন। কিন্তু লকডাউনের মেয়াদ বেড়েছে ৩ মে পর্যন্ত। এমনকি ভারতে দিনে দিনে যেভাবে করোনার প্রভাব বাড়ছে, অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করছেন মে মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত লকডাউন চলতে পারে। লকডাউন সম্পূর্ণ উঠলেও তড়িঘড়ি টুর্নামেন্ট আয়োজন করা সম্ভবও নয়। জুন, জুলাই মাসে ভারতে বর্ষা। ফলে সেই সময় টুর্নামেন্ট অসম্ভব। এই সব দিক বিচার করে অগাস্ট পর্যন্ত আইপিএল না করার সিদ্ধান্ত নিলেন কর্তারা। সেপ্টেম্বরে আইপিএল নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত।

বোর্ড সূত্রে খবর, সেপ্টেম্বরে দুবাইয়ে এশিয়া কাপ বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে করোনা সংক্রমনের জেরে। এমনকী, অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়াতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাতিল হতে পারে। তবে এশীয় ক্রিকেট কাউন্সিল ও আইসিসি দুুই টুর্নামেন্ট নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেনি। বিশ্ব ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থা বর শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতের প্রথম ম্যাচ হওয়ার কথা। তবে করোনা প্রভাব থেকে বাঁচতে অস্ট্রেলিয়া ছয় মাসের জন্য বিদেশি কোনও ব্যক্তিকে সে দেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা করেছে। যে মেয়াদ শেষ হওয়ার কথার সেপ্টেম্বর শেষে। তারপর দিন ১৫-১৬ বিশ্বকাপ আয়োজনে সময় পাবে আইসিসি।

যদি দুটি টুর্নামেন্ট বাতিল হয়। সেই উইন্ডোয় নতুন ফরম্যাটে আইপিএল আয়োজনের ভাবনা রয়েছে বোর্ড কর্তাদের। তবে টুর্নামেন্টগুলো আয়োজন হলে এই বছর আয়োজন করা কার্যত অসম্ভব হয়ে যাবে বোর্ডের পক্ষে।

Eeron Roy Barman

First published: April 16, 2020, 9:22 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर