কথা কম, খেলায় মন দাও। পেনকে ভদ্র হওয়ার বার্তা গুরু গ্রেগের

কথা কম, খেলায় মন দাও। পেনকে ভদ্র হওয়ার বার্তা গুরু গ্রেগের
photo/zee news

টিম পেন, তুমি অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক। সেটা ভুলে যেও না। গোটা দেশ তোমার দিকে তাকিয়ে আছে। তাই ভদ্র ও বিনয়ী হও।

  • Share this:

    #ব্রিসবেন: নিজের ক্রিকেট জীবনে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে এমন একটি কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন যে কারণে আজও সমালোচিত হতে হয় তাঁকে। শেষ বলে নিউজিল্যান্ডের জিততে প্রয়োজন ছিল ছয় রান। ভাই ট্রেভরকে আন্ডার আর্ম বোলিং করার নির্দেশ দেন গ্রেগ চ্যাপেল। কিন্তু বয়স বেড়েছে, অভিজ্ঞ চোখে ঠিক, ভুলের পার্থক্য ধরতে পারেন। এমনিতে ভারতীয় ক্রিকেটে তাঁর সম্পর্কে ভাল সার্টিফিকেট কেউ দেবে না। কিন্তু অবশেষে ন্যায্য কথা বলেছেন গ্রেগ চ্যাপেল। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক টিম পেন সিডনি থেকে বিভিন্ন ঝামেলায় জড়িয়ে শিরোনাম কেড়েছেন। কখনও আম্পায়ারকে গালাগাল, কখনও অশ্বিনকে স্লেজিং, আবার কখনও কিংবদন্তি সুনীল গাভাসকারকে নিয়ে উল্টোপাল্টা মন্তব্য।

    গ্রেগ তাঁর কলামে লিখেছেন, "শুনে রাখো টিম পেন, তুমি অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক। সেটা ভুলে যেও না। গোটা দেশ তোমার দিকে তাকিয়ে আছে। তাই ভদ্র ও বিনয়ী হও। মানুষের সঙ্গে ভাল ব্যবহার করতে শেখো। তুমি কত বড় ক্রিকেটার সেটা মানুষ মনে রাখবে না। ভাল মানুষ হলে সেটাই সকলে মনে রাখবে। মানুষের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করলে দুর্বল চরিত্র প্রকাশ পায়। তোমার কাজ নিয়মের মধ্যে থেকে ক্রিকেট খেলা। সততার সঙ্গে দলকে নেতৃত্ব দেওয়া। বিপক্ষ ক্রিকেটার কিংবা আম্পায়ারের সঙ্গে অহেতুক ঝামেলায় জড়ানো তোমায় সাজে না।"

    উল্লেখ্য সিডনিতে উইকেটকিপিং করার সময় পাঁচটি ক্যাচ ফেলেছিলেন তিনি। পরে সুনীল গাভাসকার জানিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক হিসেবে পেন মোটেই সঠিক লোক হতে পারেন না। তাঁর মাঠে বেশি কথা না বলে বোলিং এবং ফিল্ডিং পরিবর্তন ঠিক করে করা উচিত বলে জানিয়েছিলেন কিংবদন্তি ভারতীয় ব্যাটসম্যান। পরে অবশ্য নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক।সাধারণত অস্ট্রেলিয়ান মিডিয়া বিপক্ষ দলের ফোকাস নষ্ট করার জন্য বিভিন্ন কাজ করে থাকে। কিন্তু গ্রেগ হঠাৎ করে নিজেদের দেশের ক্রিকেট অধিনায়কের ভুল ধরছেন আবার সংশোধন করতে বলছেন, সাধারণত এমন অভিজ্ঞতা অতীতে হয়নি। তাহলে কী সত্যিই বদলে গেল অস্ট্রেলিয়া? নাকি এটাও ভারতকে ফাঁদে ফেলার গোপন চাল? প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে।


    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    লেটেস্ট খবর